Connect with us

টেলিভিশন

নাট্যনির্মাতা মোহন খান মারা গেছেন

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

মোহন খান (ছবি: ফেসবুক)

নাট্যকার ও নাট্য পরিচালক মোহন খান আর নেই। গতকাল (৩০ মে) রাত ১১টা ৫০ মিনিটে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিনি (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)।

কিছুদিন আগে মোহন খানের ব্রেইন টিউমার ধরা পড়ে। গত ১০ এপ্রিল অপারেশন শেষে বাসায় ফেরার চার দিন পর পড়ে গিয়ে আঘাত পান তিনি। এ কারণে আবার অসুস্থ হওয়ায় ২৭ এপ্রিল হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। গত ৪ মে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয় তাকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর সুস্থ হতে পারেননি তিনি।

মোহন খানের মৃত্যুতে টেলিভিশন অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ছোট পর্দার অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় শোক জানিয়েছেন ও স্মৃতিচারণ করেছেন।

মোহন খান (ছবি: ফেসবুক)

তিন দশকের বেশি সময় টেলিভিশন অঙ্গনে কাজ করেছেন মোহন খান। ছোট পর্দার জন্য ১৯৮৮ সাল থেকে নাটক পরিচালনা ও রচনা করেছেন তিনি। তার প্রথম নাটক ‘আমার দুধমা’ প্রচারিত হয় বিটিভিতে। সমুদ্রকেন্দ্রিক গল্প নিয়েই বেশি কাজ করেছেন তিনি।

মোহন খানের লেখা বিটিভির জনপ্রিয় নাটক ‘তিতির ও শঙ্খচিল’ প্রযোজনা করেন প্রয়াত আবদুল্লাহ আল মামুন। এছাড়া ‘নিঃসঙ্গ গাঙচিল’ ‘সমুদ্রে গাঙচিল’, ‘সেই আমরা’, ‘নীড়ের খোঁজে গাঙচিল’, ‘জেগে উঠো সমুদ্র’, ‘মেঘবালিকা’, ‘দূরের মানুষ’, ‘আঙ্গুর লতা’, ‘হৃদয়পুরের গল্প’সহ অনেক একক ও ধারাবাহিক নাটক এবং টেলিফিল্ম পরিচালনা করেন তিনি।

বেসরকারি টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলার অনুষ্ঠান বিভাগে কাজ করেছেন মোহন খান। তার লেখা বেশকিছু গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

টেলিভিশন

কোটা সংস্কার আন্দোলনে সহিংসতার ঘটনায় তারকারা যা বললেন

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ দেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন শোবিজ তারকারা। সোশ্যাল মিডিয়ায় তারা নিজেদের ভাবনা তুলে ধরেছেন। একইসঙ্গে তাদের প্রত্যাশা, শিক্ষাঙ্গনসহ দেশে শান্তি ফিরে আসুক।

অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী পেশাগত কাজে প্রায় ২০ দিন আমেরিকায় থাকার পর গত ১৬ জুলাই রাতে ঢাকায় ফিরেছেন। সেখানে বসে কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত পরিস্থিতির খবর দেখে হতবাক ও শোকাহত হয়েছেন তিনি। ফেসবুক স্ট্যাটাসে সেই তথ্য জানিয়ে চঞ্চল লিখেছেন, ‘সমাধানের অন্য কোনো পথ কি খোলা ছিলো না? গুলি কেন করতে হলো? বুকের রক্ত না ঝরিয়ে সুষ্ঠু সমাধান করা যেতো না? যা ঘটে গেলো এটা যেমন মোটেও কাঙ্ক্ষিত নয়, বিষয়টা তেমনি হৃদয়বিদারক, মর্মান্তিক ও সভ্যতা বহির্ভূত! আমি খুব সাধারণ একজন মানুষ এবং অভিভাবক হিসেবে রাজনীতির এত এত কঠিন কৌশল বুঝি না! শুধু একটা প্রশ্ন বুঝি। তরুণ তাজা যে প্রাণগুলো অকালে ঝরে গেলো, তার দায় কে নেবে? যে মায়ের বুক খালি হলো, তার আর্তনাদ কি কোনো জনমে শেষ হবে? হায়রে দুর্ভাগা দেশ! নোংরা রাজনীতির নামে এই রক্তপাত বন্ধ হোক!’

অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব লিখেছেন, ‘সংঘাত-রক্তপাতে কোনো সমাধান আসে না। শিক্ষার্থীদের কথাগুলো শুনে তাদের সাথে কথা বলে যুক্তিতর্ক দিয়ে কি সমাধান হয় না? আমাদের কি কথা বলার মতো কারো মুখ নেই? কথা শোনার মতো কান নেই? সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর আঘাত করা হচ্ছে, তারা আমাদেরই কারো না কারো সন্তান, ভাইবোন, বন্ধু কিংবা সহপাঠী। আমার করজোড়ে অনুরোধ, দয়া করে সকল প্রতিনিধি আলোচনায় বসুন, সকল ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটুক অতিদ্রুতই। আর রক্ত দেখতে চাই না, আর কারো প্রাণ যাক চাই না। চাই না আর কোনো বাবা-মায়ের কোল খালি হোক। সংঘাত চাই না। সমাধান উপহার দিন। সহিংসতায় কখনো সমাধান আসে না।’

অভিনেত্রী তানজিন তিশার মন্তব্য, ‘শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড। আজকের শিক্ষার্থীরা আগামীর দেশ গড়ার কারিগর। কিন্ত আজ ভালো নেই আমার দেশ, আমার শহর। শিক্ষাঙ্গনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরে আসুক। খুব দ্রুত চলমান সংকটের সমাধান হবে, সেটাই প্রত্যাশা করছি।’

সংগীতশিল্পী প্রিন্স মাহমুদের জন্মদিন ছিলো গতকাল। তিনি নিজের ফেসবুক প্রোফাইল ব্ল্যাক করে লিখেছেন, ‘এই সময় জন্মদিন-টিন পালনের নয়। লজ্জাহীন, বে-হায়ার মতো হাস্যরস ছবি দেওয়ারও সময় নয়।’

হেলমেট বাহিনীর মারধরের শিকার হওয়া শিক্ষার্থীদের একটি গ্রাফিতি ফেসবুক প্রোফাইল করেছেন সংগীতশিল্পী ইমরান মাহমুদুল। তিনি লিখেছেন, ‘আর কোনো মায়ের বুক খালি হোক চাই না, দেখতে চাই না রক্তাক্ত মুখ। শুনতে চাই না আর কোনো আর্তনাদ। তাই দয়া করে আলোচনার টেবিলে বসে যৌক্তিক সমাধানের উপায় খুঁজুন। ছেলে-মেয়েগুলোকে বাসায় ফিরতে দিন নিরাপদে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিরাপদ রাখুন, প্লিজ। শান্তি ফিরে আসুক আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিতে। সহিংসতা নয়, দ্রুত সঠিক সমাধান হোক।’

একই গ্রাফিতি ফেসবুকে পোস্ট করে নতুন প্রজন্মের অভিনেত্রী সাদিয়া আয়মান তার ছোট ভাই সাদের বিদেশে পড়তে চলে যাওয়ার ঘটনা জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, “আমি ওকে প্রায় রোজই বলতাম, ‘কেন যাবি তুই দেশের বাইরে, এখানে কত ভালো ভালো ইউনিভার্সিটি আছে, চাকরির সুযোগ সুবিধা আছে, তুই চলে গেলে তোর মায়া হবে না এই দেশের জন্য? কষ্ট লাগবে না মানুষগুলোর জন্য?’ সাদ কোনো উত্তর দিতো না। চুপ করে থাকতো। আমি ভাবতাম কথাবার্তা কম বলে তাই চুপ করে শুনে শুধু। কিন্তু আজ মনে হলো শান্তশিষ্ট আমার ছোট ভাইটা একা একা ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছে। ও নিশ্চয়ই বুঝেছে এই দেশের প্রতি ওর মায়া রেখে লাভ নেই কারণ এই দেশ দেশের সন্তানদের মায়া করে না। যতগুলো স্টুডেন্টদের রক্তাক্ত ছবি দেখছি, ততবারই বুকের মধ্যে একটা ধাক্কা লাগছে। মনে হচ্ছে আমার ছোট ভাই ওদের মধ্যে কেউ!”

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির আহ্বান, ‘আমার ভাইবোনদের আর কেউ আঘাত করবেন না।’

চিত্রনায়ক নিরব হোসেন লিখেছেন, ‘আমার সোনার বাংলা আজ ভালো নেই। শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড আর আজকের শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। কিন্তু সেই শিক্ষার্থীদের রক্তক্ষরণ হচ্ছে, এটা মেনে নেওয়া যায় না। সকল শিক্ষাঙ্গনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরে আসুক। অতিদ্রুত চলমান সংকটের সমাধান হোক এটাই কাম্য। ছাত্র-ছাত্রীদের শরীরের আর এক ফোঁটাও রক্ত না ঝরুক।’

চিত্রনায়ক ইমন লিখেছেন, ‘আর কোনো সংঘাত চাই না। চাই না কোনো হানাহানি। সবার মাঝে শান্তি ফিরে আসুক। ভালো থাকুক আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি।’

মুশফিক আর. ফারহানের মন্তব্য, ‘এই যে সন্তানসম ছাত্রদের লাঠিপেটা করছেন, বুকের কাছে এসে বিঁধিয়ে দিলেন বুলেট। ঘুম আসে তো রাতে? কই আমরা তো ঘুমাতে পারছি না?’

অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজলের আশা, ‘এই মুহূর্তে সবাই বাংলাদেশের এই পরিস্থিতির জন্য দোয়া করবেন,যাতে সঠিক পদক্ষেপ ও সময়োপযোগী যৌক্তিকতা বজায় রেখে সবকিছু সঠিক সমাধান হয়।’

পড়া চালিয়ে যান

টেলিভিশন

শাকিব সপ্তাহে ছোট পর্দায় সাত সিনেমা

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

শাকিব খান (ছবি: ফেসবুক)

ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান অভিনীত ‘তুফান’ বড় পর্দায় দর্শক মাতিয়ে যাচ্ছে। এবার ছোট পর্দায় তার সাফল্য উদযাপন করা হবে। বেসরকারি চ্যানেল দীপ্ত টিভি টানা সাতদিন দুপুর ২টায় এই তারকার একটি করে সিনেমা প্রচার করবে।

আগামী ৬ জুলাই থাকছে কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘বীর’। এতে শাকিবের সঙ্গে অভিনয় করেছেন শবনম বুবলী। ৭ জুলাই দেখানো হবে জাকির হোসেন রাজুর ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’। ত্রিভুজ প্রেমের এই সিনেমায় শাকিবের বিপরীতে আছেন অপু বিশ্বাস ও রুমানা খান।

‘বীর’ সিনেমায় শাকিব খান (ছবি: এসকে ফিল্মস)

আজাদী হাসনাত ফিরোজ পরিচালিত ‘তুমি আমার মনের মানুষ’ রয়েছে ৮ জুলাই। এতে শাকিবের নায়িকা অপু বিশ্বাস। ৯ জুলাই প্রচার হবে শাহীন সুমনের ‘মন যেখানে হৃদয় সেখানে’। অভিনয়ে শাকিব খান, অপু বিশ্বাস, নিরব, রত্না, ববিতা, অরুণা বিশ্বাস ও মিশা সওদাগর।

শাকিব খান (ছবি: ফেসবুক)

এনায়েত করিম পরিচালিত ‘বাহাদুর সন্তান’ থাকছে ১০ জুলাই। এতে শাকিবের বিপরীতে আছেন একা। ১১ জুলাই দেখানো হবে এফ আই মানিক পরিচালিত ‘মায়ের হাতে বেহেস্তের চাবি’। অভিনয়ে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস।

শাকিব সপ্তাহের শেষ দিন (১২ জুলাই) রয়েছে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘শিকারি’। অভিনয়ে শাকিব খান, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, অমিত হাসান, খরাজ মুখোপাধ্যায়, সুপ্রিয় দত্ত ও রাহুল দেব। সিনেমাটি যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন জাকির হোসেন সীমান্ত ও জয়দীপ মুখার্জী।

পড়া চালিয়ে যান

টেলিভিশন

আবার ভিকির পরিচালনায় মেহজাবীন, এবারের ঈদে ‘তিথি ডোর’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

মেহজাবীন চৌধুরী (ছবি: ফেসবুক)

অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী ঈদুল আজহা উপলক্ষে কেবল একটি টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন। এর নাম রাখা হয়েছে ‘তিথি ডোর’। এতে তার চরিত্রের নাম নিশাত। এটি লিখেছেন ও পরিচালনা করেছেন ভিকি জাহেদ। এর মাধ্যমে তারা আবার একসঙ্গে কাজ করলেন। ঢাকা ও আশেপাশের এলাকায় শুটিং হয়েছে।

মেহজাবীন মনে করেন, বর্তমান সময়ে মেয়েদের জন্য ‘তিথি ডোর’ নাটকের গল্পটি প্রাসঙ্গিক ও গুরুত্বপূর্ণ। চারপাশে অনেকেই বিভিন্ন সমস্যায় ভুগে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। সেই চাপ নিতে না পেরে একপর্যায়ে কেউ কেউ আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন। তাদের কাছে তখন আত্মহত্যাই একমাত্র সমাধান মনে হয়। নাটকের মাধ্যমে এ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি হতে পারে বলে আশা তার।

মেহজাবীন চৌধুরী (ছবি: ফেসবুক)

‘তিথি ডোর’ টেলিফিল্মের চিত্রনাট্য লিখেছেন জাহান সুলতানা। ঈদের পরদিন (১৮ জুন) দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে চ্যানেল আইয়ে প্রচার হবে এটি।

দুই-তিন বছর ধরে হাতেগোনা নাটকে অভিনয় করছেন মেহজাবীন। গত বছর ১৬ ডিসেম্বর মেহজাবীনের সর্বশেষ নাটক ‘অনন্যা’ মুক্তি পায় ইউটিউবে সিনেমাওয়ালা চ্যানেলে। মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের পরিচালনায় এই কাজের জন্য মেরিল-প্রথম আলো তারকা জরিপ পুরস্কার জিতেছেন তিনি।

ভিকি জাহেদ (ছবি: ফেসবুক)

এদিকে ভিকি জাহেদের পরিচালনায় মেহজাবীনের নতুন ওয়েব সিরিজ ‘মিথ্যাবাদী’ শিগগিরই মুক্তি দেবে ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচই। এর গল্পে দেখা যাবে, স্বামীর প্রতি শতভাগ বিশ্বস্ত স্ত্রী। কিন্তু মা হওয়ার চার বছর পর সে জানতে পারে তার স্বামী সন্তান জন্মদানে সম্পূর্ণভাবে অক্ষম। স্ত্রীর মনে প্রশ্ন, তাহলে তার সন্তান কার! সন্দেহের বশীভূত হয়ে শ্বশুর ও ভাসুরের বিরুদ্ধে মামলা করে সে।

মেহজাবীন চৌধুরী (ছবি: ফেসবুক)

ভিকি জাহেদের পরিচালনায় ‘পুনর্জন্ম’ ফ্র্যাঞ্চাইজের সব পর্বে অভিনয় করেছেন মেহজাবীন। চরকির ‘রেডরাম’ ওয়েব ফিল্মে তারা একসঙ্গে কাজ করেছেন। তাদের ওয়েব সিরিজগুলো হলো ‘আমি কি তুমি’ (আইস্ক্রিন), ‘আরারাত’ (বিঞ্জ) ও ‘দ্য সাইলেন্স’ (বিঞ্জ)। অন্যান্য নাটকের তালিকায় আছে ‘চম্পা হাউস’, ‘শেষ দেখা’, ‘জন্মদাগ’ (চ্যানেল আই), ‘চিরকাল আজ’, ‘ঘুণ’ (আরটিভি), ‘রেহনুমা’ (সিএমভি), ‘ইরিনা’, ‘মজনু’ (লাইভ টেকনোলজিস)।

পড়া চালিয়ে যান
Advertisement

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ