Connect with us

সিনেমা হল

অদ্ভুত মিনিয়নরা ফিরছে স্টার সিনেপ্লেক্সে

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু

‘মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ইউনিভার্সাল পিকচার্স)

কটকটে হলুদ রঙ। ছোট্ট ছোট্ট তিনটে আঙুল। অদ্ভুত সব অঙ্গভঙ্গির সঙ্গে বিদঘুটে ভাষা। এগুলো মিনিয়নদের চেনার উপায়। প্রায় সাত বছর পর বড় পর্দায় ফিরছে তারা। ‘ডেস্পিকেবল মি’ ফ্র্যাঞ্চাইজির পঞ্চম সিনেমা ‘মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু’তে দেখা যাবে তাদের। আগামী ১ জুলাই আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পাবে এটি। একই দিন থেকে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে উপভোগ করা যাবে এই সিনেমা।

২০১০ সালে ইউনিভার্সাল পিকচার্সের ইল্যুমিনেশন এন্টারটেইনমেন্টের ‘ডেস্পিকেবল মি’তে ক্রিমিনাল মাস্টারমাইন্ড গ্রু ও তার বন্ধু ড. নেফারিওর অনুগত হিসেবে প্রথমবার বড় পর্দায় দেখা যায় মিনিয়নদের। ‘ডেস্পিকেবল মি টু’ (২০১৩) এবং ‘ডেস্পিকেবল মি থ্রি’তেও (২০১৭) ছিলো তারা। ২০২৪ সালে আসবে ‘ডেস্পিকেবল মি ফোর’।

তবে তার আগে ‘ডেস্পিকেবল মি’র দুটি প্রিক্যুয়েলের পরিকল্পনা করে নির্মাতারা। এর অংশ হিসেবে ২০১৫ সালের ১০ জুলাই মুক্তি পায় ‘মিনিয়নস’। এবার আসছে সেই সিনেমার সিক্যুয়েল ‘মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু’। কাইল ব্যাল্ডার পরিচালনায় এতেও গ্রু চরিত্রে অভিনয় করেছেন স্টিভ ক্যারেল।

মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু

‘মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ইউনিভার্সাল পিকচার্স)

আগের মতোই মিনিয়নদের অদ্ভুত সব কার্যক্রম ও হাস্যরস রয়েছে নতুন সিনেমায়। ‘ডেস্পিকেবল মি’তে আঁকাবাঁকা দাঁত থাকলেও ‘ডেস্পিকেবল মি টু’তে তাদের দেখা গেছে সোজা দাঁতে। নীল রঙের প্যান্টের সঙ্গে হাতে কালো দস্তানা আর চোখে ধাতব চশমা, লম্বাটে বা গোল মাথা, কারও মাথায় চুল আছে, কারও মাথায় নেই, কেউ একচোখা আবার কারও দুটো চোখ। তবে দেখতে যেমনই হোক, তাদের কাণ্ডকারখানা দেখলে হাসি চেপে রাখা কঠিন।

মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু

‘মিনিয়নস: দ্য রাইজ অব দ্য গ্রু’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ইউনিভার্সাল পিকচার্স)

মিনিয়ন শব্দের অর্থ বলতে বোঝানো হয় ভৃত্য বা অনুগত। মনিব গ্রুকে খুব ভালোবাসলেও তারা প্রায়ই কাজ করতে গিয়ে বিভিন্ন রকম গোলমাল পাকিয়ে ফেলে। এজন্য গ্রুকে পড়তে হয় ফ্যাসাদে। তবে গ্রুও কিন্তু তার পোষা মিনিয়নদের খুব ভালোবাসে, এমনকি তাদের প্রত্যেকের নামও আলাদাভাবে জানা তার। গ্রু ও ড. নেফারিও কুমতলবের পরিকল্পনায় সিদ্ধহস্ত হলেও একইসঙ্গে তারা খুব বন্ধুবৎসল আর কৌতুকপ্রিয়। মিনিয়নরা অক্সিজেন ছাড়া বাঁচতে পারে, ভয়ংকর সব অস্ত্র বানাতে পারে, কম্পিউটার ব্যবহার করতে পারে, এমনকি গাড়িও চালাতে পারে।

সিনেমা হল

পঞ্চম সপ্তাহে ‘তুফান’, ৪৫ শো স্টার সিনেপ্লেক্সে

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘তুফান’ সিনেমার পোস্টারে মিমি চক্রবর্তী, শাকিব খান, মাসুমা রহমান নাবিলা ও চঞ্চল চৌধুরী (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খানের ‘তুফান’ মুক্তির পঞ্চম সপ্তাহে পা রাখলো। এখনো দুরন্ত গতিতে ব্যবসা করছে এটি। দর্শক চাহিদা অব্যাহত থাকায় অভিজাত মাল্টিপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্স আগামী ১৮ জুলাই পর্যন্ত এই সিনেমাকে ৪৫টি শো বরাদ্দ দিয়েছে।

আজ (১২ জুলাই) থেকে প্রতিদিন স্টার সিনেপ্লেক্সের বসুন্ধরা সিটি শাখায় ১০টি, এসকেএস টাওয়ার শাখায় ৮টি, সীমান্ত সম্ভার শাখায় ৭টি, মিরপুরে সনি স্কয়ার শাখায় ৭টি, বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘর শাখায় ৪টি, চট্টগ্রামের বালি আর্কেড শাখায় ৬টি, রাজশাহীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাই-টেক পার্কে ৩টি করে শো চালানো হচ্ছে। এরমধ্যে বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘর শাখায় কেবল আজ দুটি শো থাকবে। আগামীকাল থেকে প্রতিদিন ৪টি শো চলবে এখানে।

শাকিবের ‘তুফান’ নিয়ে দেশ-বিদেশে ডামাডোল অব্যাহত রয়েছে। ঈদুল আজহার দিন (১৭ জুন) মুক্তির পর থেকে দারুণ ব্যবসা করছে রায়হান রাফী পরিচালিত এই সিনেমা। এসভিএফের পরিবেশনায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মুক্তি পেয়েছে এটি। এরমধ্যে রয়েছে আমেরিকা, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, সুইডেন, নেদারল্যান্ডস, স্পেন, পর্তুগাল, ডেনমার্ক, সিঙ্গাপুর, আবুধাবি, ওমান, কাতার ও বাহরাইন। এরপর ৫ জুলাই ভারতে মুক্তি পায় সিনেমাটি। আগামী ২৮ জুলাই ‘তুফান’ মুক্তি পাবে মালয়েশিয়ায়।

‘তুফান’ সিনেমার পোস্টারে মাসুমা রহমান নাবিলা, শাকিব খান, মিমি চক্রবর্তী ও চঞ্চল চৌধুরী (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

‘তুফান’-এ শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ওপার বাংলার মিমি চক্রবর্তী ও বাংলাদেশের মাসুমা রহমান নাবিলা। সিআইডি আকরাম চরিত্রে দর্শক মাতিয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী। এছাড়া বিভিন্ন চরিত্রে পর্দায় এসেছেন ফজলুর রহমান বাবু, শহীদুজ্জামান সেলিম, গাজী রাকায়েত, সালাহউদ্দিন লাভলু, সুমন আনোয়ার প্রমুখ।

‘তুফান’ সিনেমায় শাকিব খান ও মিমি চক্রবর্তী (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

সিনেমাটির সব গান সাড়া ফেলেছে। আকাশ সেনের কথা, সুর ও সংগীতে ‘দুষ্টু কোকিল’ গেয়েছেন দিলশাদ নাহার কনা। টাইটেল গানে কণ্ঠ দিয়েছেন আরিফ রহমান জয়। এতে র‍্যাপ করেছেন রাপাস্তা দাদু। এর কথা লিখেছেন তাহসান শুভ, সুর ও সংগীত পরিচালনায় নাভেদ পারভেজ। আইটেম গান ‘লাগে উরাধুরা’ গেয়েছেন প্রীতম হাসান ও দেবশ্রী অন্তরা। এটি লিখেছেন শরিফ উদ্দিন ও রাসেল মাহমুদ। সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন রাজ্জাক দেওয়ান ও প্রীতম হাসান।

‘তুফান’ প্রযোজনা করেছেন প্রযোজক আলফা-আই স্টুডিওজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার শাকিল। এর ডিজিটাল পার্টনার চরকি।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমা হল

স্টার সিনেপ্লেক্সে জুন মাসে হলিউড-বলিউডকে টেক্কা দিয়ে শীর্ষে ‘তুফান’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘তুফান’ সিনেমায় শাকিব খান (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

দেশের অভিজাত মাল্টিপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্সে জুন মাসে টিকিট বিক্রিতে হলিউড ও বলিউডকে টেক্কা দিয়ে শীর্ষস্থান দখল করেছে রায়হান রাফী পরিচালিত ‘তুফান’। গত মাসে সবচেয়ে বেশি টিকিট বিক্রি হওয়া ১০টি সিনেমার তালিকা আজ (১ জুলাই) সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করেছে স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ। এরমধ্যে বাংলা আরেকটি সিনেমা রয়েছে।

গত ১৭ জুন ঈদুল আজহায় মুক্তির দিন থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে স্টার সিনেপ্লেক্সের আটটি শাখায় টিকিট বিক্রি, শো সংখ্যা ও আয়ে বেশ এগিয়ে ছিলো ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান অভিনীত ‘তুফান’। তালিকার আরেক বাংলা সিনেমা হলো সুমন ধর পরিচালিত ‘আগন্তুক’। এতে অভিনয় করেছেন পূজা চেরি ও শ্যামল মওলা।

তালিকার দুই ও তিন নম্বরে জায়গা পেয়েছে যথাক্রমে জাপানের অ্যানিমেটেড সিনেমা ‘হাইকু!! দ্য ডাম্পস্টার ব্যাটেল’ ও জর্জ মিলার পরিচালিত ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। চারে আছে বলিউড তারকা রাজকুমার রাও ও জানভী কাপুরের ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহি’। পাঁচ থেকে ১০ নম্বরে অবস্থান করেছে যথাক্রমে ইশানা নাইট শ্যামালান পরিচালিত ‘ওয়াচার্স’, ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস’ সিনেমার স্পিন-অফ প্রিক্যুয়েল ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস: ডে ওয়ান’, উইল স্মিথ অভিনীত ‘ব্যাড বয়েজ: রাইড অর ডাই’, প্রাগৈতিহাসিক দুই দানবকে কেন্দ্র করে নির্মিত ‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ এবং অ্যানিমেটেড সিনেমা ‘কুংফু পান্ডা ফোর’।

‘তুফান’ সিনেমায় শাকিব খান (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

স্টার সিনেপ্লেক্সসহ দেশের শতাধিক সিনেমাহলে রমরমা ব্যবসা করছে ‘তুফান’। গত ২৮ জুন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শতাধিক সিনেমাহলে মুক্তি পেয়েছে এটি। এরমধ্যে রয়েছে আমেরিকা, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, সুইডেন, নেদারল্যান্ডস, স্পেন, পর্তুগাল, আবুধাবি, ওমান, কাতার ও বাহরাইন। বেশিরভাগ দেশেই দর্শকরা সিনেমাটি দেখে মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন।

‘তুফান’ সিনেমায় শাকিব খান (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

বলিউডের বাণিজ্য বিশ্লেষক হিসেবে তরণ আদর্শ সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টগুলোতে উল্লেখ করেছেন, আগামী ৫ জুলাই ভারতে মুক্তি পাবে ‘তুফান’। এর আন্তর্জাতিক পরিবেশক এসভিএফ, ডিজিটাল পার্টনার চরকি। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে আলফা-আই স্টুডিওজ লিমিটেড।

‘তুফান’ সিনেমার পোস্টারে মাসুমা রহমান নাবিলা, শাকিব খান, মিমি চক্রবর্তী ও চঞ্চল চৌধুরী (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

‘তুফান’-এ শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের মাসুমা রহমান নাবিলা ও ভারতের মিমি চক্রবর্তী। সিআইডি আকরাম চরিত্রে দর্শকদের মন জয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী। এছাড়া বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, শহীদুজ্জামান সেলিম, গাজী রাকায়েত, সালাহউদ্দিন লাভলু, সুমন আনোয়ার প্রমুখ।

‘তুফান’ সিনেমার গানে শাকিব খান ও মাসুমা রহমান নাবিলা (ছবি: আলফা-আই স্টুডিওস)

সিনেমাটির গানগুলো সাড়া ফেলেছে। ‘দুষ্টু কোকিলা’ শিরোনামের গানে আকাশ সেনের কথা, সুর ও সংগীতে কণ্ঠ দিয়েছেন দিলশাদ নাহার কনা। টাইটেল গান ‘তুফান’ গেয়েছেন আরিফ রহমান জয়। এতে র‍্যাপ করেছেন রাপাস্তা দাদু। এর কথা লিখেছেন তাহসান শুভ, সুর ও সংগীত পরিচালনায় নাভেদ পারভেজ। আইটেম গান ‘লাগে উরাধুরা’ গেয়েছেন প্রীতম হাসান ও দেবশ্রী অন্তরা। এর কথা লিখেছেন শরিফ উদ্দিন ও রাসেল মাহমুদ। সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন রাজ্জাক দেওয়ান ও প্রীতম হাসান। ‘ফেঁসে যাই’ শিরোনামের গান গেয়েছেন হাবিব ওয়াহিদ। এর কথা লিখেছেন তন্ময় পারভেজ, সুর ও সংগীত পরিচালনায় আরাফাত মহসীন নিধি।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমা হল

নিঃশব্দতার সাসপেন্স নিয়ে বাংলাদেশে ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস: ডে ওয়ান’

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস: ডে ওয়ান’ সিনেমার পোস্টারে লুপিটা নিয়োঙ্গো ও জোসেফ কুইন (ছবি: প্যারামাউন্ট পিকচার্স)

বিন্দুমাত্র শব্দ না করে কীভাবে জীবনধারণ সম্ভব? বুদ্ধিদীপ্ত চিত্রনাট্যে এমন পীড়াদায়ক নিঃশব্দতার সাসপেন্স নিয়ে সাজানো ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস’ মুক্তি পায় ২০১৮ সালে। এর দুই বছর পর আসে সিক্যুয়েল ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস পার্ট টু’। দুটিই দর্শকদের আকৃষ্ট করেছে। এবার মুক্তি পাচ্ছে প্রথম সিনেমার স্পিন-অফ প্রিক্যুয়েল ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস: ডে ওয়ান’। প্যারামাউন্ট পিকচার্সের পরিবেশনায় এটি আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পাবে আগামী ২৮ জুন। একই দিন বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাবে এই সিনেমা।

‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস’ ফ্র্যাঞ্চাইজের নতুন পর্ব পরিচালনা করেছেন মাইকেল সারনোস্কি। তিনি ও আগের দুই সিনেমার পরিচালক জন ক্রাসিনস্কি মিলে গল্প আর চিত্রনাট্য লিখেছেন। প্রযোজকদের মধ্যে আছেন জন ক্রাসিনস্কি ও ‘ট্রান্সফরমার্স’ ফ্র্যাঞ্চাইজের নির্মাতা মাইকেল বে।

প্লাটিনাম ডিউনস এবং সানডে নাইট প্রোডাকশনের যৌথ প্রযোজনায় লন্ডনে এর শুটিং হয়েছে। এতে অভিনয় করেছেন অস্কারজয়ী লুপিটা নিয়োঙ্গো, জোসেফ কুইন, অ্যালেক্স উলফ, এলিয়ান উমুহিরে। আগের পর্বে থাকা ডিমন হানসাউ আবারও ফিরছেন।

জন ক্রাসিনস্কির হাত ধরে শুরু হয় অভিনব ধাঁচের ফ্র্যাঞ্চাইজ ‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস’। দর্শকদের নতুন অভিজ্ঞতা দিয়েছে আগের সিনেমা দুটি। এগুলোতে ক্ষোভ, অনুশোচনা কিংবা ভালোবাসা তো বটেই; উল্লাস কিংবা কান্নায় ভেঙে পড়ার মতো দৃশ্য ফুটিয়ে তোলা হয়েছে কেবল মুখের অভিব্যক্তিতে। সংলাপের স্বল্পতা থাকায় দর্শকের একাগ্র মনোযোগ ধরে রাখে নজরকাড়া ভিজ্যুয়াল।

‘অ্যা কোয়ায়েট প্লেস’ সিরিজের প্রথম দুটি সিনেমা বক্স অফিসে সাফল্য পেয়েছে। এবারের পর্বও সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।

পড়া চালিয়ে যান
Advertisement

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ