Connect with us

হলিউড

অস্কারে ১০ বছর নিষিদ্ধ উইল স্মিথ

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

উইল স্মিথ
উইল স্মিথ (ছবি: অস্কার)

অস্কারের সব ধরনের আয়োজন থেকে ১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথ। গতকাল (৮ এপ্রিল) থেকে শুরু হওয়া এই নিষেধাজ্ঞার কারণে ২০৩২ সাল পর্যন্ত সশরীরে কিংবা ভার্চুয়ালি অ্যাকাডেমির কোনও অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার অনুমতি পাবেন না তিনি। শুক্রবার (৮ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসে অ্যাকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের গভর্নরস বোর্ড এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

উইল স্মিথের পদত্যাগপত্র গ্রহণের পাশাপাশি ৯৪তম অস্কারে তার চড়-কাণ্ডের ঘটনায় কীভাবে উপযুক্ত জবাব দেওয়া যায় তা নিয়ে আলোচনা করতে এই সভা ডাকা হয়। এরপর অ্যাকাডেমি পরিবারের কাছে খোলা চিঠি দিয়েছে গভর্নর’স বোর্ড। এতে সই করেছেন অ্যাকাডেমি সভাপতি ডেভিড রুবিন এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ডন হাডসন।

সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে উইল স্মিথ অ্যাকাডেমির সিদ্ধান্তকে মেনে নিয়েছেন এবং সম্মান জানিয়েছেন।

উইল স্মিথের আচরণের প্রতিক্রিয়ায় তাকে ১০ বছর নিষিদ্ধ করার পদক্ষেপ নেওয়ার কথা খোলা চিঠির শেষাংশে জানিয়েছে গভর্নর’স বোর্ড। পারফর্মার ও অতিথিদের সুরক্ষা এবং অ্যাকাডেমির ওপর আস্থা ফিরিয়ে আনার বৃহত্তর লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

অস্কার আয়োজকদের আশা, এ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সঙ্গে যুক্ত এবং প্রভাবিত সবার জন্য উতরে ওঠা এবং স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার সময় শুরু হলো।

খোলা চিঠির শুরুতে বলা হয়েছে, ‘গত বছর চলচ্চিত্রে যারা অসাধারণ মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন, ৯৪তম অস্কারে তাদের সম্মান জানাতে চেয়েছি আমরা। কিন্তু মঞ্চে উইল স্মিথের অমার্জনীয় ও বেদনাদায়ক আচরণের কারণে সেইসব উদযাপনের মুহূর্ত ঢাকা পড়েছে।’

চিঠিতে অ্যাকাডেমি কর্তৃপক্ষ উল্লেখ করেছে, ‘লাইভ সম্প্রচারের সময় আমরা মিলনায়তনে ওই পরিস্থিতির যথাযথ সমাধান করতে পারিনি। এজন্য আমরা দুঃখিত। আমাদের অতিথি, দর্শক এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের অ্যাকাডেমি পরিবারের জন্য উদাহরণ স্থাপনের একটি সুযোগ ছিল, কিন্তু নজিরবিহীন এ ঘটনার জন্য আমরা অপ্রস্তুত ছিলাম।’

ক্রিস রক ও উইল স্মিথ

৯৪তম অস্কারে ক্রিস রককে চড় মেরেছেন উইল স্মিথ (ছবি: সংগৃহীত)

উইল স্মিথের কাছ থেকে এভাবে আঘাত পাওয়ার মতো অস্বাভাবিক পরিস্থিতিতে সংযম বজায় রাখার জন্য আমেরিকান কমেডিয়ান ক্রিস রকের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে অ্যাকাডেমি গভর্নর বোর্ড। একইসঙ্গে লাইভ সম্প্রচার চলাকালীন তিন সঞ্চালক ওয়ান্ডা সাইকস, রেজিনা হল ও অ্যামি শুমার, মনোনীত ও বিজয়ী শিল্পী-কুশলী এবং পুরস্কার তুলে দিতে আসা তারকারা সুস্থির থাকায় সবার প্রতি ধন্যবাদ জানিয়েছেন বোর্ড সদস্যরা।

গত ২৭ মার্চ হলিউডের ডলবি থিয়েটারে ৯৪তম অস্কার অনুষ্ঠান চলাকালে মঞ্চে পুরস্কার দিতে আসেন আমেরিকান কমেডিয়ান ক্রিস রক। বিজয়ীর নাম ঘোষণার আগে মিলনায়তনে সামনের সারিতে বসা উইল স্মিথের স্ত্রী জাডা পিঙ্কেট স্মিথকে নিয়ে রসিকতা করেন ৫৭ বছর বয়সী এই অভিনেতা। অ্যালোপেসিয়ায় আক্রান্ত স্ত্রীর চুল পড়া নিয়ে কৌতুক শুনে স্বাভাবিক থাকতে পারেননি উইল স্মিথ। মঞ্চে উঠে ক্রিস রককে চড় মেরে বসেন তিনি। মুহূর্তেই সেই ঘটনা কাঁপিয়ে দিয়েছে তামাম দুনিয়ার বিনোদন অঙ্গন।

পরে জনসমক্ষে ক্ষমা চেয়েছেন উইল স্মিথ। এরপর অ্যাকাডেমির সদস্য থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। চড়ের ঘটনা জন্ম দেওয়ায় তার কয়েকটি সিনেমার শুটিং থমকে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, কয়েকটি সিনেমা থেকে ৫৩ বছর বয়সী এই আমেরিকান অভিনেতা বাদ পড়তে পারেন।

চড় মেরে সুস্থ পরিবেশ নষ্ট করলেও ঠিকই অস্কারে সেরা অভিনেতা শাখার পুরস্কার জিতেছেন উইল স্মিথ। ‘কিং রিচার্ড’ ছবিতে টেনিস তারকা ভেনেসা ও সেরেনা উইলিয়ামসের বাবার ভূমিকায় হৃদয়ছোঁয়া নৈপুণ্য দেখিয়েছেন তিনি। এর আগে আরও দু’বার সেরা অভিনেতা শাখায় মনোনীত হয়েছিলেন তিনি।

পড়া চালিয়ে যান
1 Comment

1 Comment

  1. Avatar

    Mehedi Hasan

    April 9, 2022 at 4:50 am

    মনে হচ্ছে এই নিউজ পোর্টালে দেশ বিদেশের সকল বিনোদন সংবাদ পাওয়া যাবে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

হলিউড

আন্তর্জাতিক মুক্তির আগেই বাংলাদেশের পর্দায় ‘দ্য ফল গাই’

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘দ্য ফল গাই’ সিনেমার পোস্টারে রায়ান গসলিং ও এমিলি ব্লান্ট (ছবি: ইউনিভার্সেল পিকচার্স)

আশির দশকে অ্যাকশন-অ্যাডভেঞ্চারভিত্তিক আমেরিকান টিভি সিরিজ ‘দ্য ফল গাই’ তুমুল জনপ্রিয়তা পায়। সেই ‘দ্য ফল গাই’ এবার এলো বড় পর্দায়। সিরিজের নামেই রাখা হয়েছে সিনেমার নাম। ইউনিভার্সেল পিকচার্সের পরিবেশনায় এটি যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পাবে ৩ মে। তবে চমকপ্রদ খবর হলো, বাংলাদেশের বড় পর্দায় ইতোমধ্যে চলে এসেছে ‘দ্য ফল গাই’। আজ (১ মে) এটি মুক্তি দিয়েছে স্টার সিনেপ্লেক্স। ফলে বিশ্বের অনেক দেশের আগেই বাংলাদেশের দর্শকরা এই সিনেমা দেখার সুযোগ পাচ্ছেন।

অ্যাকশন-কমেডি ধাঁচের সিনেমা ‘দ্য ফল গাই’ পরিচালনা করেছেন আমেরিকার ডেভিড লিচ। ‘জন উইক’, ‘অ্যাটমিক ব্লন্ড’ ও ‘বুলেট ট্রেন’-এর মতো অ্যাকশনধর্মী সিনেমা পরিচালনার আগে তিনি নিজেই একজন স্টান্টম্যান ছিলেন। ব্র্যাড পিট ও ম্যাট ডেমনের স্টান্ট-ডাবল হিসেবে কাজ করেছেন ৪৮ বছর বয়সী এই নির্মাতা। আমেরিকান সংবাদমাধ্যম এন্টারটেইনমেন্ট উইকলিকে তিনি বলেন, ‘সিনেমাটি পুরো স্টান্ট সম্প্রদায়ের প্রতি ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ। স্টান্টম্যান ও পর্দার আড়ালের ক্রুরা মিলেই একটি সিনেমাকে পূর্ণতা এনে দেন। সিনেমায় তাদের অবদান ও না-বলা গল্প সবার সামনে তুলে ধরতেই সিনেমাটি তৈরি করা।’

‘দ্য ফল গাই’ সিনেমার পোস্টারে রায়ান গসলিং (ছবি: ইউনিভার্সেল পিকচার্স)

গল্পে দেখা যাবে, হলিউড স্টান্ট পারফরমার কোল্ট সিভার্স সাবেক প্রেমিকার প্রথম পরিচালিত সিনেমায় কাজ করে। তার উদ্দেশ্য শুধুই সিনেমাটির প্রধান অভিনেতাকে ঘিরে ষড়যন্ত্রের কুলকিনারা করা। কোল্ট সিভার্স চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘বার্বি’ তারকা রায়ান গসলিং। তিনি ও পরিচালক ডেভিড লিচ সিনেমাটির দুই প্রযোজক।

‘দ্য ফল গাই’তে নির্মাতা চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘ওপেনহাইমার’ খ্যাত ব্রিটিশ তারকা এমিলি ব্লান্ট। এছাড়াও আছেন অ্যারন টেলর-জনসন, হানা ওয়াডিংহাম, স্টেফানি সু, উইনস্টন ডিউক, টেরেসা পালমার।

‘দ্য ফল গাই’ সিনেমার পোস্টারে রায়ান গসলিং ও এমিলি ব্লান্ট (ছবি: ইউনিভার্সেল পিকচার্স)

সিনেমাহলে মুক্তির আগে গিনেস বুকে জায়গা করে নিয়েছে ২ ঘণ্টা ৬ মিনিট দৈর্ঘ্যের ‘দ্য ফল গাই’। সর্বাধিক ক্যানন রোলের (শূন্যে গাড়িকে চক্কর দেওয়ানো) অন্যরকম রেকর্ড গড়েছে এটি। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে শুটিংয়ের সময় স্টান্ট ড্রাইভার লোগান হোলাডে একটি গাড়িতে সর্বাধিক সাড়ে আট বার ক্যানন রোল করে ভেঙেছেন ২০০৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত জেমস বন্ড ফ্র্যাঞ্চাইজের ‘ক্যাসিনো রয়েল’-এর স্টান্টম্যান অ্যাডাম কার্লির সাতটি ক্যানন রোলের রেকর্ড।

পড়া চালিয়ে যান

হলিউড

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’: মহাকাশে ট্রেলার প্রকাশ!

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: প্যারামাউন্ট পিকচার্স)

হলিউডের জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজ ‘ট্রান্সফরমার্স’ পৃথিবীর সীমানা পেরিয়ে পৌঁছে গেলো মহাকাশে! ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ১ লাখ ২৫ হাজার ফুট ওপরে এর নতুন কিস্তি ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’-এর ট্রেলার প্রকাশিত হয়েছে। ইতিহাসে এর আগে এমনটি ঘটেনি!

গতকাল (১৮ এপ্রিল) ইউটিউবে প্যারামাউন্ট পিকচার্সের চ্যানেলে, ট্রান্সফরমার্স মুভির সব সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে এবং ইনস্টাগ্রামে অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থের অ্যাকাউন্টে সরাসরি দেখানো হয় মনিটর নিয়ে একটি নভোযানের মহাকাশযাত্রা। ১ লাখ ২৫ হাজার ফুট ওপরে পৌঁছাতে লেগেছে প্রায় ১ ঘণ্টা। ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ সিনেমার ট্রেলারের প্রিমিয়ার শুরুর ৭ সেকেন্ড আগে পর্দায় হাজির হন অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থ ও আমেরিকান অভিনেতা ব্রায়ান টাইরি হেনরি। আগে থেকে ধারণকৃত ভিডিওতে তারা বলেন, “ট্রান্সফরমার্স বন্ধুরা, একটুও নড়বেন না। ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ ট্রেলার শুরু হচ্ছে এখন!”

ইউটিউবে মহাকাশযাত্রা ও ট্রেলারের প্রিমিয়ার দেখা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৬ লাখ বার। এর হাইলাইটসের ভিউ সংখ্যা ৬০ হাজার। ট্রেলারটির ভিউ ১৮ ঘণ্টায় ছাড়িয়েছে ৭০ লাখের ঘর।

সিনেমাটিতে অরিয়ন প্যাক্স ওরফে অপটিমাস প্রাইম চরিত্রে ক্রিস হেমসওয়ার্থ ও ডি-সিক্সটিন ওরফে মেগাট্রনের ভূমিকায় কণ্ঠ দিয়ে অভিনয় করেছেন ব্রায়ান টাইরি হেনরি। এছাড়া ভয়েস আর্টিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন স্কারলেট জোহানসন, কিগ্যান-মাইকেল কি, স্টিভ বুশেমি, লরেন্স ফিশবার্ন ও জন হ্যাম।

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’-এ দেখা যাবে, জনপ্রিয় দুই ট্রান্সফরমার অপটিমাস প্রাইম ও মেগাট্রনের শেকড়ের গল্প। তারা শত্রু হিসেবে পরিচিত হলেও একসময় ভাইয়ের মতো বন্ধু ছিলো। চৌকস এই দুই ট্রান্সফরমার মিলেই সাইবারট্রনের ভাগ্য চিরতরে বদলে দিয়েছিলো।

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ কম্পিউটার গ্রাফিক্স অ্যানিমেটেড সিনেমা। এবারই প্রথম ‘ট্রান্সফরমার্স’ সিরিজের কোনো সিনেমার পুরোটাই এভাবে তৈরি হলো। এটি পরিচালনা করেছেন জশ কুলি। নির্বাহী প্রযোজকদের মধ্যে আছেন স্টিভেন স্পিলবার্গ। চলতি বছরের ২০ সেপ্টেম্বর সিনেমাহলে মুক্তি পাবে ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’।

পড়া চালিয়ে যান

হলিউড

ঢাকায় বড় পর্দায় আবার গডজিলা বনাম কং

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ সিনেমার পোস্টার (ছবি:ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

মনস্টার জগতের দুই মহারথী গডজিলা ও কংয়ের দ্বৈরথ সিনেমাপ্রেমীদের কাছে বরাবরই বেশ উপভোগ্য। বিশাল আকারের এই দুটি চরিত্র আবার একসঙ্গে আসছে বড় পর্দায়। ‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ নামের সিনেমায় দেখা যাবে তাদের তাণ্ডব। ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্সের পরিবেশনায় আগামীকাল (২৯ মার্চ) আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে এটি। একই দিনে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাবে এই সিনেমা।

সর্বশেষ ২০২১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘গডজিলা ভার্সেস কং’ সিনেমায় কিং কং ও গডজিলার দ্বৈরথ দেখা গেছে। করোনা মহামারিতে এটি দর্শকদের দারুণ সাড়া পায়। এবার আসছে এর বহুল প্রতীক্ষিত সিক্যুয়েল। লিজেন্ডারি পিকচার্সের প্রযোজনায় আগের পর্বের সাফল্যের সুবাদে এবারের কিস্তিও পরিচালনা করেছেন অ্যাডাম উইনগার্ড। আগের সিনেমার অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে ফিরছেন রেবেকা হল, ব্রায়ান টাইরি হেনরি ও কেইলি হটেল। নতুন যুক্ত হয়েছেন ড্যান স্টিভেনস, অ্যালেক্স ফার্নস, ফালা চেন, র‌্যাচেল হাউস।

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি:ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ হলো ‘মনস্টারভার্স’ ফ্রাঞ্চাইজের পঞ্চম কিস্তি, গডজিলা ফ্রাঞ্চাইজের ৩৮তম পর্ব এবং কিং কং ফ্রাঞ্চাইজের ১৩তম সিনেমা। ১ ঘণ্টা ৫৫ মিনিটের সিনেমাটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ১৫ কোটি ডলার।

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি:ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

গডজিলা আর কং প্রাগৈতিহাসিক দুই দানব। কং নির্জন রহস্যময় দ্বীপ স্কাল আইল্যান্ডের বাসিন্দা আর গডজিলা প্রশান্ত মহাসাগরের জলরাশির গভীর তলদেশ থেকে উঠে আসে। নতুন সিনেমায় বিশ্বে লুকিয়ে থাকা এক বিশাল অনাবিষ্কৃত হুমকি নিয়ে তাদের মধ্যে লড়াই হবে। গডজিলা আণবিক নিশ্বাস ছাড়লেও শেষ পর্যন্ত কাবু হয় কংয়ের বাহুবলের কাছে, নাকি ‘অবমানব’ কংয়ের মানবিক সত্তার কাছে? সেই উত্তর মিলবে গল্পে। টাইটানদের ইতিহাস, তাদের উৎস, স্কাল আইল্যান্ড এবং তার বাইরের রহস্যগুলো তুলে ধরা হয়েছে এই সিনেমায়। সেই সঙ্গে রয়েছে পৌরাণিক যুদ্ধ।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ