Connect with us

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কানসৈকতে বেবি ট্যাক্সি, চাবুক মারা তারকার জন্য সারপ্রাইজ স্বর্ণপাম

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

কানসৈকতে হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: টুইটার)

ভূমধ্যসাগরের তীরে একটি বেবি ট্যাক্সি। বহুল প্রতীক্ষিত ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’তে ব্যবহৃত হয়েছে এটি। কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৬তম আসরের তৃতীয় দিনে (১৮ মে) সিনেমাটির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়েছে। এ উপলক্ষে কানসৈকতে আনা হয়েছে এই বাহন। রোদ ঝলমলে দিনে এর সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলেছেন হলিউড তারকা হ্যারিসন ফোর্ড। তার সঙ্গে ছিলেন ব্রিটিশ অভিনেত্রী ফিবি ওয়ালার ব্রিজ, ডেনিশ অভিনেতা ম্যাডস মিকেলসেন, আমেরিকান অভিনেতা বয়েড হলব্রুক, ফরাসি অভিনেতা এথান ইসিডোর এবং আমেরিকান পরিচালক জেমস ম্যানগোল্ড।

কানসৈকতে জেমস ম্যানগোল্ড, হ্যারিসন ফোর্ড ও ফিবি ওয়ালার-ব্রিজ (ছবি: টুইটার)

ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ারের আগে উৎসবের প্রাণকেন্দ্র পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরের সামনে লালগালিচায় ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র কলাকুশলীদের নেতৃত্ব দিয়েছেন যথারীতি হ্যারিসন ফোর্ড। তার সঙ্গে আরো ছিলেন স্ত্রী ক্যালিস্টা ফ্লকহার্ট। তখন ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’ তারকার নাম ধরে চিৎকার করছিলো হাজার হাজার ভক্ত। সবার অভিবাদনে হাত নেড়ে সাড়া দেন তিনি। ১৫ বছর আগে ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য কিংডম অব দ্য ক্রিস্টাল স্কাল’ সিনেমার ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ারের জন্য সর্বশেষ কানে এসেছিলেন বর্ষীয়ান এই অভিনেতা। পর্দায় আবার চেনা টুপি ও চাবুক হাতে দেখা গেলো তাকে।

কানসৈকতে হ্যারিসন ফোর্ডের সঙ্গে ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র অভিনয়শিল্পীরা (ছবি: টুইটার)

লুমিয়ের থিয়েটারে হ্যারিসন ফোর্ড পা রাখতেই আমন্ত্রিত দর্শকরা তাকে করতালিতে সিক্ত করেন। এরপর প্রদর্শনী শুরুর আগে ৮০ বছর বয়সী এই আমেরিকান অভিনেতার হাতে সম্মানসূচক স্বর্ণপাম তুলে তাকে চমকে দেন কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের সভাপতি ইরিস নোব্লোক। তখন মঞ্চে ছিলেন উৎসবটির পরিচালক থিয়েরি ফ্রেমো। বিনোদন দুনিয়ায় দীর্ঘ ও সফল ক্যারিয়ারের জন্য তাকে এই স্বীকৃতি দেওয়া হলো। অনুষ্ঠানে ‘স্টার ওয়ারস’ থেকে শুরু করে ‘ব্লেড রানার ২০৪৯’, ‘উইটনেস’, ‘দ্য ফিউজিটিভ’সহ তার অভিনীত বিভিন্ন সিনেমার অংশবিশেষ দিয়ে সাজানো একটি ভিডিও প্রদর্শন করেছে আয়োজকরা।

হ্যারিসন ফোর্ডকে সম্মানসূচক স্বর্ণপাম তুলে দেন কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের সভাপতি ইরিস নোব্লোক (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে ২ হাজার ৩০০ আসনে উপস্থিত সবাই দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানান হ্যারিসন ফোর্ডকে। স্বর্ণপাম গ্রহণের পর আবেগপ্রবণ হয়ে তিনি বলেন, ‘আমাকে খুব নাড়া দিয়েছে এই সম্মান। আমি অনেক গর্বিত। অনেকে বলে, মৃত্যুর সময় ঘনিয়ে এলে মানুষ নিজের চোখের সামনে জীবনকে দেখতে পায়। মাত্রই চোখের সামনে আমার জীবন দেখেছি। এটি আমার জীবনের একটা বড় অংশ, তবে আমার জীবনের পুরোটা নয়। আমার চমৎকার স্ত্রী আমার আবেগ ও স্বপ্নকে সমর্থন দিয়ে জীবনটা সচল রেখেছে। এজন্য আমি কৃতজ্ঞ।’

কান উৎসবের সম্মানসূচক স্বর্ণপাম পেয়েছেন হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

এরপর দর্শকদের উদ্দেশে হ্যারিসন ফোর্ড বলেন, ‘আপনাদেরও আমি ভালোবাসি। আপনারাই আমার লক্ষ্য এনে দিয়েছেন এবং জীবনকে অর্থবহ করেছেন। সেজন্য আমি কৃতজ্ঞ।’

হ্যারিসন ফোর্ডের সঙ্গে ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র কলাকুশলীরা (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

বিশ্ব সিনেমার ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজের মধ্যে অ্যাকশন-অ্যাডভেঞ্চারধর্মী ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’ অন্যতম। এর পঞ্চম ও শেষ পর্ব ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’ দেখে মুগ্ধ হয়েছেন দর্শকরা। তাই প্রদর্শনী শেষে লুমিয়ের থিয়েটারে টানা পাঁচ মিনিট দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানান তারা। তখন আনন্দে থেমে থেমে চোখ ভিজে উঠছিলো হ্যারিসন ফোর্ডের। ইন্ডিয়ানা জোন্স চরিত্রে এটাই যে তার শেষ অভিনয়! সিনেমাটির দুই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান দ্য ওয়াল্ট ডিজনি কোম্পানির সিইও বব ইগার এবং লুকাসফিল্মের সভাপতি ক্যাথলিন কেনেডি হাজির ছিলেন প্রদর্শনীতে। ২০১৩ সালে প্যারামাউন্ট পিকচার্সের কাছ থেকে ফ্র্যাঞ্চাইজটির পরিবেশনা স্বত্ব কিনে নেওয়ার পর এটাই ডিজনির প্রথম ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’ সিনেমা।

কান উৎসবের ফটোকলে ফিবি ওয়ালার-ব্রিজ, জেমস ম্যানগোল্ড ও হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

উৎসবের চতুর্থ দিন (১৯ মে) দুপুরে হ্যারিসন ফোর্ডের সঙ্গে ফটোকলে অংশ নেন ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র কলাকুশলীরা। এরপর তারা হাজির হন সংবাদ সম্মেলনে। বেপরোয়া অভিযাত্রী ইন্ডিয়ানা জোন্স চরিত্র থেকে অবসর নেওয়া প্রসঙ্গে রসিকতার সুরে হ্যারিসন ফোর্ড বলেন, ‘এটা কি স্পষ্ট নয়? আমাকে থামতে হবে এবং একটু বিশ্রাম নিতে হবে। আমি তার (ইন্ডিয়ানা জোন্স) ওপর জীবনের গুরুত্ব এবং তার মধ্যে প্রয়োজনীয় নতুনত্ব দেখতে চেয়েছি। এটা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। বয়ে চলা জীবনের অবশিষ্টাংশ দেখতে পারা অসাধারণ ব্যাপার। আমার প্রতি কান উৎসবের উষ্ণতা এবং এখানকার মানুষের অনুভূতিসহ বরণ করার ঘটনা অকল্পনীয়। এসব আমার খুব ভালো লাগছে। কাজ করতে আমার ভালো লাগে এবং এই চরিত্রটিকে আমি ভালোবাসি। এটি আমার জীবনে যা এনে দিয়েছে সেসব ভালো লেগেছে।’

হ্যারিসন ফোর্ডের সঙ্গে ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র কলাকুশলীরা (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

সমালোচকদের মন জয় করেছে সিনেমাটি। তাদের চোখে, এবারের পর্ব নস্টালজিক। এতে পুরনো দিনের অনুভূতি জাগে। গল্পের প্রয়োজনে পুরনো ফুটেজ ব্যবহার করে এআই প্রযুক্তির সহায়তায় তরুণ বয়সে ফিরে যান হ্যারিসন ফোর্ড। এ প্রসঙ্গে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘এটি ফটোশপের জাদু নয়। ৩৫ বছর আগে আমাকে দেখতে এমনই লাগতো। এটি শুধু একটি কসরত। আমি মনে করি, খুব দক্ষতার সঙ্গে কাজটি করা হয়েছে। আমি এটা নিয়ে খুব খুশি।’

কান উৎসবের লালগালিচায় ফিবি ওয়ালার-ব্রিজ, জেমস ম্যানগোল্ড, হ্যারিসন ফোর্ড, ম্যাডস মিকেলসেন ও বয়েড হলব্রুক (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

নতুন প্রযুক্তির সুবাদে কি তাহলে হ্যারিসন ফোর্ড ভবিষ্যতে ইন্ডিয়ানা জোন্স চরিত্রে আবার হাজির হতে পারেন? সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্ন উঠলে লুকাসফিল্মের সভাপতি ক্যাথলিন কেনেডি সাফ জানিয়ে দেন, ‘না।’

কান উৎসবে হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৮০ বছর বয়সেও হ্যারিসন ফোর্ডকে খুব আবেদনময় হিসেবে খুঁজে পেয়েছেন একজন নারী সাংবাদিক! নতুন সিনেমায় তার শার্ট খুলে ফেলার একটি দৃশ্য বেশ উপভোগ্য লেগেছে তার। তখন ফোর্ড বলেন, ‘এই শরীর নিয়ে আমি ধন্য। লক্ষ্য করার জন্য ধন্যবাদ।’

কান উৎসবের লালগালিচায় ক্যালিস্টা ফ্লকহার্ট ও হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

চার দশকেরও বেশি সময় আগে ১৯৮১ সালে মুক্তি পায় ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’ সিরিজের প্রথম সিনেমা ‘রেইডার্স অব দ্য লস্ট আর্ক’। এটি ছাড়াও বিশ্ব-ভ্রমণকারী প্রত্নতত্ত্ববিদ ইন্ডিয়ানা জোন্স চরিত্রে আরো তিনটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন হ্যারিসন ফোর্ড। এগুলো হলো ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য টেম্পল অব ডুম’ (১৯৮৪), ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য লাস্ট ক্রুসেড’ (১৯৮৯) এবং ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য কিংডম অব দ্য ক্রিস্টাল স্কাল’ (২০০৮)। বক্স অফিসে এগুলোর সম্মিলিত আয়ের পরিমাণ ২০০ কোটি মার্কিন ডলার।

কান উৎসবের লালগালিচায় হ্যারিসন ফোর্ড ও ম্যাডস মিকেলসেন (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’ ফ্র্যাঞ্চাইজ সৃষ্টি করেছেন জর্জ লুকাস। তিনিই আগের চারটি সিনেমার গল্প ও চিত্রনাট্য লেখায় যুক্ত ছিলেন। এবার আর সেই দায়িত্ব পালন করেননি। তবে নির্বাহী প্রযোজক হিসেবে আছেন কিংবদন্তি দুই পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গ ও জর্জ লুকাস।

কান উৎসবের লালগালিচায় ক্যালিস্টা ফ্লকহার্ট ও হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

‘ইন্ডিয়ানা জোন্স’ সিরিজের আগের চারটি সিনেমা পরিচালনা করেন স্টিভেন স্পিলবার্গ। এবারেরটি বানিয়েছেন জেমস ম্যানগোল্ড। তার ঝুলিতে আছে ‘দ্য উলভারিন’ (২০১৩) এবং ‘ফোর্ড ভার্সেস ফেরারি’র (২০১৯) মতো সিনেমা। কানে অবশ্য ৫৯ বছর বয়সী এই আমেরিকান নির্মাতা নতুন নন। ১৯৯৫ সালে উৎসবটির সমান্তরাল বিভাগ ডিরেক্টরস’ ফোর্টনাইটে ছিলো তার পরিচালিত প্রথম সিনেমা ‘হেভি’। ২৮ বছর পর আবার কানসৈকতে ফিরলেন তিনি।

কান উৎসবের সম্মানসূচক স্বর্ণপাম পেয়েছেন হ্যারিসন ফোর্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২ ঘণ্টা ২২ মিনিট দৈর্ঘ্যের ‘ইন্ডিয়ানা জোন্স অ্যান্ড দ্য ডায়াল অব ডেস্টিনি’র গল্প ১৯৬৯ সালের প্রেক্ষাপটে মহাকাশে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে প্রতিযোগিতাকে কেন্দ্র করে। ইতিহাসের গতিপথ পরিবর্তন করার ক্ষমতা রাখে এমন একটি নিদর্শন পুনরুদ্ধারের অভিযানে বের হয় ইন্ডিয়ানা জোন্স। তার সঙ্গী ধর্মের মেয়ে হেলেনা শো। তাদের সামনে বাধা মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসায় কর্মরত একজন সাবেক নাৎসি।

কান উৎসবের লালগালিচায় জেমস ম্যানগোল্ড, হ্যারিসন ফোর্ড, ম্যাডস মিকেলসেন ও বয়েড হলব্রুক (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

ফ্রান্সে আগামী ২৮ জুন এবং যুক্তরাষ্ট্রে আগামী ৩০ জুন মুক্তি পাবে সিনেমাটি। এতে আরো অভিনয় করেছেন টোবি জোন্স, আন্তোনিও ব্যান্ডেরাস, শোনেট রেনে উইলসন।

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৪: আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় নির্বাচিত ১৮ সিনেমা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘সন্তোষ’ সিনেমার দৃশ্যে শাহানা গোস্বামী (ছবি: এমকেটু ফিল্মস)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরে অফিসিয়াল সিলেকশনের অংশ আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় নির্বাচিত হয়েছে ১৮টি সিনেমা। এগুলোর মধ্যে সেরা কাজগুলো বেছে নিতে প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন কানাডিয়ান পরিচালক-অভিনেতা জেভি দোলান। তার নেতৃত্বাধীন বিচারক প্যানেলে থাকছেন মরক্কোর পরিচালক আজমেই এল মুদির, ফরাসি পরিচালক মাইমুনা দুকুরে, লাক্সামবার্গিশ-জার্মান অভিনেত্রী ভিকি ক্রিপস, আমেরিকান সমালোচক টড ম্যাকার্থি।

ফ্রান্সের ভূমধ্যসাগরীয় শহর কানে আগামী ১৪ মে উৎসবের পর্দা উঠবে। এর পরদিন পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের দ্যুবুসি থিয়েটারে রয়েছে আঁ সাঁর্তে রিগার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এতে দেখানো হবে আইসল্যান্ডের রুনার রুনারসন পরিচালিত ‘হোয়েন দ্য লাইট ব্রেকস’।

‘দ্য শেমলেস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: আরবান ফ্যাক্টরি)

এবারের কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। এর আগের দিন (২৪ মে) স্থানীয় সময় রাত ৮টায় পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের দ্যুবুসি থিয়েটারে আঁ সাঁর্তে রিগার সমাপনী অনুষ্ঠানে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

‘নোরা’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ব্ল্যাক সুগার পিকচার্স)

আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় নির্বাচিত ১৮টি সিনেমা

  • আরমান্ড (হল্ফদান উলমন তন্দেল, নরওয়ে; প্রথম সিনেমা)
  • ফ্লো (গিন্ট জিলবালোদিস, লাটভিয়া)
  • ব্ল্যাক ডগ (গুয়ান হু, চীন)
  • দ্য স্টোরি অব সুলেমান (বরিস লোজকাইন)
  • ডগ অন ট্রায়াল (লেটিটিয়া ডশ, ফ্রান্স/সুইজারল্যান্ড; প্রথম সিনেমা)
  • দ্য কিংডম (জুলিয়ান কোলোনা, ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
  • হোয়েন দ্য লাইট ব্রেকস (রুনার রুনারসন, আইসল্যান্ড)
  • মাই সানশাইন (হিরোশি ওকুয়ামা, জাপান)
  • নিকি (সেলিন স্যালে, ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
  • নোরা (তৌফিক আল জায়দি, সৌদি আরব)
  • অন বিকামিং অ্যা গিনি ফাউল (রুঙ্গানো নিয়োনি, জাম্বিয়া/ওয়েলশ)
  • সন্তোষ (সন্ধ্যা সুরি, ভারত/যুক্তরাজ্য)
  • সেপ্টেম্বর সেইস (আরিয়েন লাবেদ, গ্রিস/ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
  • দ্য ড্যামড (রবার্তো মিনারভিনি, ইতালি)
  • দ্য শেমলেস (কনস্তান্তিন বোজানভ, বুলগেরিয়া)
  • দ্য ভিলেজ নেক্সট টু প্যারাডাইস (মো হারাবে, সোমালিয়া; প্রথম সিনেমা)
  • ভিয়েত অ্যান্ড নাম (ট্রুয়ং মিন কুই, ভিয়েতনাম)
  • হলি কাউ (লুইস কুরভয়জিয়ের, ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৪: মূল প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ২২ সিনেমা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘মেগালোপলিস’ সিনেমায় অ্যাডাম ড্রাইভার ও নাতালি এমানুয়েল (ছবি: আমেরিকান জোয়িট্রোপ)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের মধ্য দিয়ে আবার মেতে উঠবে ফ্রান্সের ভূমধ্যসাগরীয় তীর। আগামী ১৪ মে সাগরপাড়ের শহরে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে উৎসবটির পর্দা উঠবে।

মূল প্রতিযোগিতা শাখায় প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। তার নেতৃত্বাধীন বিচারক প্যানেলে থাকছেন আমেরিকান অভিনেত্রী লিলি গ্ল্যাডস্টোন, ফরাসি অভিনেত্রী এভা গ্রিন, অভিনেতা ওমর সি, লেবানিজ পরিচালক নাদিন লাবাকি, জাপানিজ পরিচালক হিরোকাজু কোরি-এদা, ইতালিয়ান অভিনেতা পিয়ারফ্রান্সেসকো ফাভিনো, স্প্যানিশ পরিচালক হুয়ান আন্তোনিও বায়োনা ও তুর্কি চিত্রনাট্যকার এব্রু জেলান।

এবারের কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। সমাপনী অনুষ্ঠানে দেওয়া হবে সর্বোচ্চ পুরস্কার স্বর্ণপাম। মূল প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ২২টি সিনেমার মধ্যে একটি জিতবে এটি। তালিকাটি দেখে নিন।

মূল প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ২২টি সিনেমা

‘দ্য অ্যাপ্রেনটিস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: স্কাইথিয়া ফিল্মস)

  • দ্য অ্যাপ্রেনটিস (আলি আব্বাসি, ইরান/ডেনমার্ক)
  • মোটেল ডেস্টিনো (করিম আইনুজ, ব্রাজিল)

‘বার্ড’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: বিবিসি ফিল্ম)

  • বার্ড (আন্ড্রেয়া আর্নল্ড, যুক্তরাজ্য)

‘এমিলিয়া পেরেস’ সিনেমায় সেলেনা গোমেজ (ছবি: ফ্রান্স টু সিনেমা)

  • এমিলিয়া পেরেস (জ্যাক অদিয়াঁর, ফ্রান্স)

‘আনোরা’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: নিয়ন)

  • আনোরা (শন বেকার, যুক্তরাষ্ট্র)
  • মেগালোপলিস (ফ্রান্সিস ফোর্ড কপোলা, যুক্তরাষ্ট্র)
  • দ্য শ্রাউডস (ডেভিড ক্রোনেনবার্গ, কানাডা)
  • দ্য সাবস্ট্যান্স (কোরালি ফারজাঁ, ফ্রান্স)
  • গ্র্যান্ড ট্যুর (মিগেল গোমেজ, পর্তুগাল)

‘মার্সেলো মিয়ো’র পোস্টার (ছবি: আদ ভিতাম ডিস্ট্রিবিউশন)

  • মার্সেলো মিয়ো (ক্রিস্তফ অনোরেঁ, ফ্রান্স)

‘কট বাই দ্য টাইডস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: এক্সস্ট্রিম পিকচার্স)

  • কট বাই দ্য টাইডস (জিয়া জাং-কি, চীন)
  • অল উই ইমাজিন অ্যাজ লাইট (পায়েল কাপাডিয়া, ভারত)

‘কাইন্ডস অব কাইন্ডনেস’ সিনেমায় এমা স্টোন (ছবি: সার্চলাইট পিকচার্স)

  • কাইন্ডস অব কাইন্ডনেস (ইয়োর্গোস লানতিমোস, গ্রিস)
  • বিটিং হার্টস (জিল লুঁলুশ, ফ্রান্স)
  • ওয়াইল্ড ডায়মন্ড (আগাত রিদাঁজে, প্রথম সিনেমা, ফ্রান্স)

‘ও কানাডা’ সিনেমায় জ্যাকব এলোর্ডি (ছবি: ফরগন ফিল্ম পিএসসি)

  • ও কানাডা (পল শ্রেডার, যুক্তরাষ্ট্র)

‘লিমোনোভ: দ্য ব্যালাড’ সিনেমায় বেন হুইশো (ছবি: ফ্রান্স থ্রি সিনেমা)

  • লিমোনোভ–দ্য ব্যালাড (কিরিল সেরেব্রেনিকোভ, রাশিয়া)
  • পার্তেনোপে (পাওলো সরেন্তিনো, ইতালি)

‘দ্য গার্ল উইথ দ্য নিডেল’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: নরডিস্ক ফিল্ম ডেনমার্ক)

  • দ্য গার্ল উইথ দ্য নিডেল (মান্নেস ফন হোর্ন, সুইডেন)
  • দ্য মোস্ট প্রেসাস অব কারগোজ (মিশেল অ্যাজানাভিসুস, ফ্রান্স)
  • দ্য সিড অব দ্য স্যাক্রেড ফিগ (মোহাম্মদ রাসুলফ)

‘থ্রি কিলোমিটারস টু দ্য এন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: মেমেন্টো ডিস্ট্রিবিউশন)

  • থ্রি কিলোমিটারস টু দ্য এন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড (এমানুয়েল পারবু, রোমানিয়া)
পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কানের অফিসিয়াল পোস্টারে আকিরা কুরোসাওয়ার প্রতি সম্মান

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টার (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টারে জাপানের কিংবদন্তি পরিচালক আকিরা কুরোসাওয়ার প্রতি সম্মান জানানো হয়েছে। তার পরিচালিত ‘র‌্যাপসোডি ইন অগাস্ট’ সিনেমার একটি দৃশ্য রাখা হয়েছে পোস্টারে। ১৯৯১ সালে ৪৪তম কান উৎসবে প্রতিযোগিতার বাইরে এর উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়। এরপর ১৯৯৩ সালে ৪৬তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রতিযোগিতার বাইরে প্রদর্শিত হয় তাঁর শেষ সিনেমা ‘মাদাদায়ো’।

কানের এবারের আসরের অফিসিয়াল পোস্টারে দেখা যাচ্ছে, রাতে খোলা আকাশের নিচে পাশাপাশি বসে আছে শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ। তাদের ওপর ঠিকরে পড়েছে চাঁদের আলো। সামনে বিস্তৃত আকাশ, পাহাড় ও সবুজ বন। এতে ফুটে উঠেছে কাব্যিক সৌন্দর্য, সম্মোহনী জাদু ও চলচ্চিত্রের দৃশ্যমান সরলতা।

কান উৎসবের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘পোস্টারটি আমাদের একত্রিত থাকা ও সবকিছুর মধ্যে সম্প্রীতির গুরুত্বের কথা মনে করিয়ে দেয়।’ এটি ডিজাইন করেছে প্যারিসের চারু ও কারুশিল্প প্রতিষ্ঠান হার্টল্যান্ড ভিলার লিওনেল আভিনিয়োঁ ও স্টেফান দে ভিভিয়েজ।

আকিরা কুরোসাওয়া (জন্ম: ২৩ মার্চ, ১৯১০; মৃত্যু: ৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৮)

‘র‌্যাপসোডি ইন অগাস্ট’ সিনেমার গল্পে দেখা যায়, ১৯৪৫ সালের ৯ আগস্ট নাগাসাকি বোমা হামলার শিকার একজন বৃদ্ধা যুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রাচীর হিসেবে প্রেম ও সততার প্রতি নিজের বিশ্বাসকে নাতি-নাতনি ও আমেরিকান ভাগ্নের চিন্তাভাবনায় ছড়িয়ে দেন।

আগামী ১৪ মে ভূমধ্যসাগরের তীরে দক্ষিণ ফ্রান্সের কান শহরের পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে এবারের কান উৎসবের পর্দা উঠবে। মূল প্রতিযোগিতা শাখায় প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় প্রধান বিচারক থাকবেন কানাডিয়ান পরিচালক-অভিনেতা হাভিয়ার দোলান।

৭৭তম কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন ফরাসি কমেডিয়ান-অভিনেত্রী ক্যামিল কোতাঁন।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ