Connect with us

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৩: উদ্বোধনী আয়োজনে সৌদি আরবের টাকায় বানানো জনি ডেপের সিনেমা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

মাইওয়েন, জনি ডেপ ও পিয়ের রিশার (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৬তম আসরের পর্দা উঠলো। উদ্বোধনী সিনেমা হিসেবে প্রতিযোগিতার বাইরে দেখানো হয়েছে ফ্রান্সের মাইওয়েন পরিচালিত ‘জান দ্যু ব্যারি’। ফরাসি ভাষায় নির্মিত এই সিনেমা গতকালই ফ্রান্সের সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে। এর মাধ্যমে তিন বছর পর বড় পর্দায় প্রত্যাবর্তন করলেন হলিউড সুপারস্টার জনি ডেপ। সর্বশেষ ২০২০ সালে ‘মিনামাটা’ সিনেমায় দেখা গেছে তাকে।

সাগরপাড়ের শহর কানে ফুরফুরে মেজাজে দেখা গেছে জনি ডেপকে। লালগালিচায় পা রাখার আগে সড়ক বিভাজকে অপেক্ষমাণ ভক্তদের সানন্দে অটোগ্রাফ দিয়েছেন, ছবি তুলেছেন। ভক্তদের কারও হাতে রাখা কাগজে লেখা ছিলো, ‘অভিনন্দন, জনি।’ কেউবা কাগজে হৃদয় আকৃতি এঁকে লিখে এনেছিলেন, ‘আমরা দুঃখিত।’

জনি ডেপ (ছবি: টুইটার)

প্রাক্তন স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে মানহানি মামলায় লড়াইয়ের পর এবারই প্রথম কোনো সিনেমার মাধ্যমে দর্শকদের সামনে এলেন ৫৯ বছর বয়সী এই তারকা। এতে রাজা পঞ্চদশ লুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। রাজার প্রেমিকা জান ভোবেরনিয়ারের জীবন ও উত্থান-পতন দেখা গেছে ‘জান দ্যু ব্যারি’তে। দারিদ্র্যের বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে রাজা পঞ্চদশ লুইয়ের বৃত্তে পৌঁছে যায় মেয়েটি। প্রথম দেখায় একে অপরের প্রেমে পড়েন তারা। জানের ভালোবাসা পেয়ে জীবনকে নতুনভাবে আবিষ্কার করেন রাজা। তাই মেয়েটিকে ছাড়া কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেন না তিনি। কিন্তু রাজসভায় কেউই মেয়েটিকে চায় না।

জনি ডেপ (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৩৫ মিলিমিটার ফিল্মে ধারণকৃত ‘জান দ্যু ব্যারি’র বেশিরভাগ শুটিং হয়েছে প্যালেস অব ভার্সাইয়ে। সোমবারে এটি সাপ্তাহিক বন্ধ, সপ্তাহের সেদিনই কাজ করেছেন জনি ডেপ-মাইওয়েন জুটি। সিনেমাটির বাজেট ২৪০ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এরমধ্যে বড় অঙ্ক ফান্ড হিসেবে দিয়েছে সৌদি আরবের রেড সি ফিল্ম ফাউন্ডেশন।

জনি ডেপ (ছবি: টুইটার)

জনি ডেপের সিনেমাকে উদ্বোধনী আয়োজনের জন্য বেছে নেওয়ায় বিতর্কিত হচ্ছে কান কর্তৃপক্ষ। যদিও কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের পরিচালক থিয়েরি ফ্রেমো মন্তব্য করেন, অভিনয় থেকে তো আর নিষিদ্ধ হননি জনি। ফলে তার সিনেমা অফিসিয়াল সিলেকশনে না রাখার কোনো কারণ নেই।

মাইওয়েন ও জনি ডেপ (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

জনি ডেপের নতুন সিনেমার পরিচালক মাইওয়েনের বিরুদ্ধে সম্প্রতি মামলা হয়। প্যারিসের একটি রেস্তোরাঁয় একজন সাংবাদিকের মাথা ঝাঁকিয়ে ও তার মুখে থুথু ছিটানোর অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। ‘জান দ্যু ব্যারি’ তার পরিচালিত ষষ্ঠ সিনেমা। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয়ও করেছেন তিনি। ৪৬ বছর বয়সী এই তারকা একাধারে পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, অভিনেত্রী ও প্রযোজক। ২০১১ সালে প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ‘পোলিস’-এর মাধ্যমে কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে প্রথমবার জায়গা পান তিনি। এটি জুরি প্রাইজ জেতে। ২০১৫ সালে অফিসিয়াল সিলেকশনে স্থান করে নেয় তার পরিচালিত ‘মাই কিং’।

জনি ডেপ (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ছাড়াও গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে গতকাল রাত ১১টা ৩০ মিনিটে আবার দেখানো হয় ‘জান দ্যু ব্যারি’। এর আগে রাত ৯টা ৩০ মিনিটে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের বাজিন থিয়েটারে সিনেমাটি প্রদর্শিত হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান
গতকাল (১৬ মে) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে অনুষ্ঠানের মাস্টার অব সিরিমনি (সঞ্চালক) ছিলেন অভিনেত্রী কিয়ারা মাস্ত্রোইয়ান্নি। তিনি একে একে স্বাগত জানান মূল প্রতিযোগিতা শাখার বিচারকদের। তারা হলেন জুরি প্রেসিডেন্ট রুবেন অস্টলান্ড, মরিয়ম টুজানি, দঁনি মিনোশেঁ, রুঙ্গানো নিয়োনি, ব্রি লারসন, পল ড্যানো, আতিক রহিমি, দামিয়ান সিফ্রন ও জুলিয়া দুকুরনো।

মাইকেল ডগলাস (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

এরপর সম্মানসূচক স্বর্ণপাম দেওয়া হয় সম্মানিত অতিথি আমেরিকান অভিনেতা মাইকেল ডগলাসকে। তিনি বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে শত শত ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, কিন্তু কান একটাই। এটি ৭৬ বছরের পুরনো। আমি এই উৎসবের চেয়েও বুড়ো!’

(বাঁ থেকে) মাইকেল ডগলাস, ক্যাথেরিন দ্যুনোভ ও উমা থারম্যান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

মাইকেল ডগলাসের হাতে পুরস্কার তুলে দেন আমেরিকান অভিনেত্রী উমা থারম্যান। তখন মঞ্চে ছিলেন ফরাসি অভিনেত্রী ক্যাথেরিন দ্যুনোভ। অনুষ্ঠানে তাকে স্বাগত জানান তার মেয়ে কিয়ারা। এবারের কান উৎসবের অফিসিয়াল পোস্টারকন্যা ইউক্রেনের প্রতি সম্মান জানান। কবি লেসিয়া ওক্রাইঙ্কার লেখা পঙক্তি উচ্চারণ করেন তিনি। এরপর আনুষ্ঠানিকভাবে এবারের আসর ঘোষণা করেন।

(বাঁ থেকে) মাইকেল ডগলাস ও ক্যাথেরিন দ্যুনোভ (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংবাদকর্মীদের সুবিধার্থে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের দ্যুবুসি থিয়েটারের পর্দায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখানো হয়। ফ্রান্স টু টেলিভিশন চ্যানেল এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্রুট সরাসরি সম্প্রচার করেছে এই আয়োজন।

‘ম্যাড লাভ’ (১৯৬৯) সিনেমার দৃশ্য (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কান ক্ল্যাসিকস
কানের ধ্রুপদি সিনেমার শাখা কান ক্ল্যাসিকসে দেখানো হয়েছে প্রয়াত ফরাসি ফিল্মমেকার জ্যাক রিভেতের ‘ম্যাড লাভ’ (১৯৬৯)। পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের দ্যুবুসি থিয়েটারে দুপুর ২টায় শুরু হয় এর প্রদর্শনী। সিনেমাটির দৈর্ঘ্য চার ঘণ্টারও বেশি। ৫৪ বছর আগে সিনেমা হলে মুক্তি পায় এটি। এর গল্প ফিল্মমেকার সেবাস্তিয়ান ও অভিনেত্রী ক্লেয়ারের দাম্পত্য জীবনের টানাপোড়েনকে কেন্দ্র করে।

সিনেমা দ্যু লা প্লাজ
কালজয়ী সিনেমার পুনরুদ্ধার করা প্রিন্ট এবং সাম্প্রতিক সময়ে চিরবিদায় নেওয়া মাস্টার ফিল্মমেকারদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হয় কানের সিনেমা দ্যু লা প্লাজে (বিচ সিনেমা)। সাগরপাড়ে সিনেমা দেখানোর এই আয়োজনে গতকাল ছিলো ১৯৯৫ সালে কান উৎসবের সর্বোচ্চ পুরস্কার স্বর্ণপাম জয়ী এমির কুস্টুরিকার ‘আন্ডারগ্রাউন্ড’। এর ব্যাপ্তি ২ ঘণ্টা ৪৭ মিনিট। ম্যাসি সৈকতে রাত ৯টা ৩০ মিনিটে অনেক দর্শক বিনামূল্যে এটি উপভোগ করেছেন।

ফটোকল ও সংবাদ সম্মেলন
উদ্বোধনী দিন সকালে সংবাদ সম্মেলন করেন কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের পরিচালক থিয়েরি ফ্রেমো। এরপর দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন মূল প্রতিযোগিতা শাখার ৯ বিচারক। এর আগে ফটোকলে অংশ নেন তারা। এছাড়া ফটোকলে এসেছিলেন মাইকেল ডগলাস।

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কানসৈকতে ৯ বছর পর ফিরছে ‘ফিউরিওসা’

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র দৃশ্যে আনিয়া টেলর-জয় (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের অফিসিয়াল সিলেকশনে প্রথমে যুক্ত হলো ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। আগামী ১৫ মে প্রতিযোগিতার বাইরে এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে। পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে এই প্রদর্শনীতে উপস্থিত থাকবেন সিনেমাটির পরিচালক জর্জ মিলার, আমেরিকান অভিনেত্রী আনিয়া টেলর-জয়, অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থ ও ব্রিটিশ অভিনেতা টম বার্ক।

২০১৫ সালে কান উৎসবের প্রতিযোগিতার বাইরে দেখানো হয় ‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’। সেই সিনেমার প্রিক্যুয়েল হিসেবে ৯ বছর পর তৈরি হয়েছে ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। সব মিলিয়ে ‘ম্যাড ম্যাক্স’ ফ্রাঞ্চাইজের পঞ্চম কিস্তি এটি। অন্য সিনেমাগুলো হলো– ‘ম্যাড ম্যাক্স’ (১৯৭৯), ‘ম্যাড ম্যাক্স টু: দ্য চ্যালেঞ্জ’ (১৯৮১), ‘ম্যাড ম্যাক্স: বিয়ন্ড থান্ডারডোম’ (১৯৮৫)। সবই পরিচালনা করেছেন জর্জ মিলার।

‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’ পাঁচটি শাখায় অস্কার জিতেছে। এতে ফিউরিওসা চরিত্রে অভিনয় করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকান-আমেরিকান তারকা শার্লিজ থেরন। কে এই ফিউরিওসা? তার শৈশব থেকে কৈশোরে পরিণত হওয়ার গল্প দেখা যাবে এবার। নতুন সিনেমায় নাম ভূমিকায় থাকছেন আনিয়া টেলর-জয়। লুটেরা দলের অন্যতম সদস্যের ভূমিকায় দেখা দেবেন ‘থর’ তারকা ক্রিস হেমসওয়ার্থ। এছাড়া আছেন অস্ট্রেলিয়ান তিন অভিনেতা লকি হিউম, নাথান জোন্স ও জন হাওয়ার্ড।

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র শুটিংয়ে আনিয়া টেলর-জয়, জর্জ মিলার ও ক্রিস হেমসওয়ার্থ (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

নতুন পর্বে থাকছে ‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’-এর ১৫-২০ বছর আগের গল্প, যখন অল্প বয়সী মেয়ে ফিউরিওসাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় লুটেরা বাহিনী। তার মা লড়াকু মনোভাবের। মেয়েকে সেভাবেই তৈরি করেছেন তিনি। মাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভয়ঙ্কর সব বাধা পেরিয়ে ঘরে ফেরার রুদ্ধশ্বাস পথচলা শুরু করে ফিউরিওসা।

কান উৎসবে প্রদর্শনীর পর আগামী ২২ মে ওয়ার্নার ব্রাদার্স ডিসকভারির পরিবেশনায় ফ্রান্সে এবং আগামী ২৪ মে যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পাবে ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। এটি প্রযোজনা করেছেন ডগ মিচেল ও জর্জ মিলার। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন জর্জ মিলার ও নিকো লাথাউরিস।

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র পোস্টার (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

২০১৬ সালে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৬৯তম আসরের মূল প্রতিযোগিতা শাখার বিচারকদের প্রধান ছিলেন জর্জ মিলার। সর্বশেষ ২০২২ সালে ৭৫তম কান উৎসবে তার পরিচালিত ‘থ্রি থাউজেন্ড ইয়ারস অব লংগিং’ দেখানো হয় প্রতিযোগিতার বাইরে। আবার কানসৈকতে ফিরতে পারছেন বলে রোমাঞ্চিত ৭৯ বছর বয়সী এই অস্ট্রেলিয়ান নির্মাতা।

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র পোস্টার (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

এবারের কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের পুরো অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা করা হবে আগামী ১১ এপ্রিল। আগামী ১৪ মে উৎসবটির উদ্বোধন হবে। দক্ষিণ ফ্রান্সে ভূমধ্যসাগরের তীরে ১১ দিনের মহাযজ্ঞ চলবে ২৫ মে পর্যন্ত।

পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৪: উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন যিনি

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

ক্যামিল কোতাঁন (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরে মিস্ট্রেস অব সিরিমনিস থাকছেন ফরাসি অভিনেত্রী ও কমেডিয়ান ক্যামিল কোতাঁন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও সমাপনী আয়োজন সঞ্চালনা করবেন তিনি। আয়োজকরা গতকাল (১৫ মার্চ) সোশ্যাল মিডিয়ায় এই তথ্য জানিয়েছে।

কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে ক্যামিল কোতাঁনের দুটি সিনেমা জায়গা পেয়েছে। ২০১৯ সালে আঁ সার্তাঁ রিগা শাখায় ছিল ক্রিস্তফ অঁনোরে পরিচালিত ‘অন অ্যা ম্যাজিক্যাল নাইট’। ২০২১ সালে প্রতিযোগিতার বাইরে দেখানো হয় টম ম্যাককার্থি পরিচালিত ও ম্যাট ডেমন অভিনীত ‘স্টিলওয়াটার’।

ক্যামিল কোতাঁন মূলত ফরাসি কমেডি ধাঁচের সিনেমা ও টিভি সিরিজের পরিচিত মুখ। ‘স্টিলওয়াটার’সহ আমেরিকান কয়েকটি প্রযোজনায় কাজ করেছেন ৪৫ বছর বয়সী এই তারকা। রবার্ট জেমেকিস পরিচালিত ও ব্র্যাড পিট অভিনীত ‘অ্যালাইড’ (২০১৬) ইংরেজি ভাষায় তার প্রথম সিনেমা।

রিডলি স্কট পরিচালিত ‘হাউস অব গুচি’তে (২০২১) ইতালিয়ান ফ্যাশন ডিজাইনার মাউরিৎসিও গুচির প্রেমিকা পাওলা ফ্রাঞ্চি চরিত্রে অভিনয় করেন ক্যামিল কোতাঁন। হলিউডে তার কাজের তালিকায় আরও আছে কেনেথ ব্রানা পরিচালিত ‘অ্যা হন্টিং ইন ভেনিস’ (২০২৩)।

ক্যামিল কোতাঁন (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

সর্বশেষ গত বছর ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী গোল্ডা মেয়ারের ব্যক্তিগত সহকারী লু কাড্ডার চরিত্রে দেখা গেছে ফরাসি এই তারকাকে। ৭৪তম বার্লিন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মূল প্রতিযোগিতায় স্বর্ণভালুকের জন্য লড়েছে ব্রুনো দ্যুমোঁর পরিচালনায় তার অভিনীত ‘দ্য এম্পায়ার’।

ভূমধ্যসাগরের তীরে দক্ষিণ ফ্রান্সের কান শহরের পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে উৎসবটির পর্দা উঠবে আগামী ১৪ মে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ক্যামিল কোতাঁন একে একে মূল প্রতিযোগিতা শাখার বিচারকদের স্বাগত জানাবেন। এবারের জুরি প্রেসিডেন্ট থাকছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। আগামী ২৫ মে কানের সমাপনী আয়োজনেও সঞ্চালক থাকবেন ক্যামিল কোতাঁন।

পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৪: আঁ সাঁর্তে রিগার প্রধান বিচারক এই তরুণ পরিচালক-অভিনেতা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

৬৯তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে “ইট’স অনলি দ্য এন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড” সিনেমার সংবাদ সম্মেলনে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের অফিসিয়াল সিলেকশনের অংশ আঁ সাঁর্তে রিগা শাখার প্রধান বিচারক থাকবেন কানাডিয়ান পরিচালক-অভিনেতা হাভিয়ার দোলান। উৎসবটির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

এক বিবৃতিতে ৩৪ বছর বয়সী হাভিয়ার দোলান বলেন, ‘আঁ সাঁর্তে রিগার জুরি প্রেসিডেন্ট হিসেবে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ফিরতে উৎসব কর্তৃপক্ষের দেওয়া সম্মান পেয়ে আমি অভিভূত। সিনেমা নির্মাণের চেয়ে অন্যান্য নির্মাতাদের মেধা ও কর্মদক্ষতা খুঁজে দেখা আমার ব্যক্তিগত ও পেশাদার পথচলায় বরাবরই অপরিহার্য মনে করেছি। আঁ সাঁর্তে রিগার জুরি সদস্যদের সঙ্গে শৈল্পিক সিনেমার প্রতি নিজেকে নিবেদিত করার সুযোগ হবে।’

৭৫তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

নিজের লেখা ছোটগল্প অবলম্বনে হাভিয়ার দোলান ১৯ বছর বয়সে প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা ‘আই কিল্ড মাই মাদার’-এর কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখেছেন এবং পরিচালনা, প্রযোজনা ও অভিনয় করেছেন। অভিষেকেই মাস্টারস্ট্রোক দেখিয়েছেন তিনি। ২০০৯ সালে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের প্যারালাল শাখা ডিরেক্টর’স ফোর্টনাইটে তিনটি পুরস্কার জেতে এই সিনেমা। ৮২তম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসে (অস্কার) কানাডা থেকে মনোনীত হয় এটি।

৬৯তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের লালগালিচায় হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের সঙ্গে হাভিয়ার দোলানের নিবিড় সম্পর্ক। ২০১০ সালে তার দ্বিতীয় সিনেমা ‘হার্টবিটস’ আঁ সাঁর্তে রিগায় নির্বাচিত হয়। এর মাধ্যমে মাত্র ২১ বছর বয়সে পরিচালনা, শৈল্পিক নির্দেশনা, পোশাক ও সম্পাদনাসহ সবদিকে নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন তিনি।

৬৫তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ‘লরেন্স অ্যানিওয়েজ’ সিনেমার ফটোকলে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২০১২ সালে হাভিয়ার দোলানের তৃতীয় সিনেমা ‘লরেন্স অ্যানিওয়েজ’ কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের আঁ সাঁর্তে রিগায় নির্বাচিত হয়। এতে অনবদ্য নৈপুণ্যের সুবাদে সেরা অভিনেত্রী হন কানাডিয়ান তারকা সুজান ক্লেমোঁ।

কানে সুজান ক্লেমোঁ ও হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

হাভিয়ার দোলানের চতুর্থ সিনেমা ‘টম অন দ্য ফার্ম’ ২০১৩ সালে ৭০তম ভেনিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মূল প্রতিযোগিতায় নির্বাচিত হয় এবং ফিপরেসি অ্যাওয়ার্ড জিতে নেয়। একই বছর টরন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে দেখানো হয় এটি।

৬৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২০১৪ সালে ‘মমি’র মাধ্যমে প্রথমবার কানের মূল প্রতিযোগিতায় জায়গা করে নেন তিনি। এতে তুলে ধরা হয় ছেলেকে লালন-পালন করতে গিয়ে একজন একা মায়ের বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা।

কানের জুরি প্রাইজ জয়ের পর হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

প্রয়াত ফরাসি-সুইস কিংবদন্তি জ্যঁ-লুক গদারের ‘গুডবাই টু ল্যাঙ্গুয়েজ’ সিনেমার সঙ্গে যৌথভাবে জুরি প্রাইজ জেতে ‘মমি’। গদারের বয়স তখন ৮৪ বছর আর দোলানের বয়স ২৫ বছর। ৬৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মূল প্রতিযোগিতা শাখার প্রধান বিচারক ছিলেন নিউজিল্যান্ডের নারী পরিচালক জেন ক্যাম্পিয়ন।

কানের জুরি প্রাইজ হাতে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

‘মমি’র সুবাদে জুরি প্রাইজ জিতে হাভিয়ার দোলান বলেন, ‘আসুন আমাদের স্বপ্নকে ধরে রাখি। কারণ আমরা একসঙ্গে মিলে পৃথিবী বদলে দিতে পারি। যারা সাহসী, কর্মঠ এবং কখনো হাল ছেড়ে না দেয় না, তাদের পক্ষে সবকিছুই করা সম্ভব।’

কানে ‘মমি’র সংবাদ সম্মেলনে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৬৮তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মূল প্রতিযোগিতা শাখায় বিচারকের আসনে ছিলেন হাভিয়ার দোলান। সেই আসরে কোয়েন ভ্রাতৃদ্বয়ের (জোয়েল ও এথান) নেতৃত্বে কাজ করেন তিনি।

৬৯তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে গ্রাঁ প্রিঁ জয়ের পর হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২০১৬ সালে হাভিয়ার দোলান পরিচালিত “ইট’স অনলি দ্য এন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড” গ্রাঁ প্রিঁ ও ইকুমেনিক্যাল জুরি প্রাইজ জিতেছে। কানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার গ্রাঁ প্রিঁ জয়ী দ্বিতীয় কানাডিয়ান পরিচালক তিনি। ফরাসি নাট্যকার-অভিনেতা জ্যঁ-লুক লাগার্সের নাটক অবলম্বনে তৈরি হয়েছে এটি।

৬৯তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে গ্রাঁ প্রিঁ হাতে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২০১৮ সালে টরন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে হাভিয়ার দোলান পরিচালিত ‘দ্য ডেথ অ্যান্ড লাইফ অব জন এফ. ডোনাভ্যান’ সিনেমার ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়। এটি ইংরেজি ভাষায় তার প্রথম কাজ।

কানে ‘ম্যাথায়াস অ্যান্ড ম্যাক্সিম’ সিনেমার উদ্বোধনী প্রদর্শনীর আগে লালগালিচায় কানাডিয়ান অভিনেত্রী ক্যাথেরিন ব্রুনে ও হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২০১৯ সালে ৭২তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মূল প্রতিযোগিতায় স্থান পায় হাভিয়ার দোলানের ফরাসি ও ইংরেজি ভাষার সিনেমা ‘ম্যাথায়াস অ্যান্ড ম্যাক্সিম’। এতে ছয় বছর পর ফের নিজের পরিচালনায় অভিনয় করেন তিনি।

৭২তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

২০২২ সালে ছোট পর্দার জন্য হাভিয়ার দোলান পরিচালনা করেছেন ‘দ্য নাইট লগ্যান ওয়োক আপ’। কানাডায় ভিডিওট্রন এবং ফ্রান্সে ক্যানাল প্লাসে এটি দেখানো হয়।

৭২তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৭২তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে হাভিয়ার দোলান (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মূল প্রতিযোগিতা শাখায় প্রধান বিচারক থাকবেন ‘বার্বি’ সিনেমার পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। এবারের অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা করা হবে আগামী ১১ এপ্রিল। চিরাচরিতভাবে মে মাসেই হবে উৎসবটি। আগামী ১৪ মে এই আয়োজনের পর্দা উঠবে। দক্ষিণ ফ্রান্সে ভূমধ্যসাগরের তীরে ১১ দিনের মহাযজ্ঞ চলবে ২৫ মে পর্যন্ত।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ