Connect with us

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

এবারের কান উৎসবের এসব বিষয় জানেন কী?

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৬তম আসর শুরু হলো। গতকাল (১৬ মে) দক্ষিণ ফ্রান্সে ভূমধ্যসাগরের তীরে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনে উৎসবটির পর্দা উঠেছে। সিনেমার এই অলিম্পিকতুল্য আসর চলবে ১২ দিন। চলুন জেনে নেওয়া যাক এবারের কিছু টুকিটাকি তথ্য।

রুবেন অস্টলান্ড (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৫০ বছর পর
মূল প্রতিযোগিতা শাখার বিচারকদের সভাপতি দুইবারের স্বর্ণপাম জয়ী সুইডিশ পরিচালক রুবেন অস্টলান্ড। কান উৎসবে ৫০ বছর পর আবার সুইডেনের কোনো নির্মাতা জুরি প্রেসিডেন্ট হলেন। সর্বশেষ ১৯৭৩ সালে কানে প্রধান বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন প্রয়াত সুইডিশ অভিনেত্রী ইনগ্রিড বার্গম্যান।

‘ফোর ডটারস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: টেনিট ফিল্মস)

রেকর্ডসংখ্যক নারী
এবারের মূল প্রতিযোগিতা শাখায় রয়েছে কানের ইতিহাসে রেকর্ডসংখ্যক সাত নারী পরিচালকের কাজ। এগুলো হলো অস্ট্রিয়ার জেসিকা হাউজনার পরিচালিত ‘ক্লাব জিরো’, ইতালির আলিস রোরওয়াকারের ‘লা কিমেরা’, তিউনিসিয়ার কাউতার বেন হানিয়ার ‘ফোর ডটারস’, ফ্রান্সের জাস্টিন ত্রিয়েত পরিচালিত ‘অ্যানাটমি অব অ্যা ফল’ ও ক্যাথেরিন ব্রেইয়াতের ‘লাস্ট সামার’, ইতালির ক্যাথরিন কোরসিনির ‘হোমকামিং’ এবং সেনেগালের বংশোদ্ভুত ফরাসি তরুণী রামাতা তুলাই সি’র প্রথম সিনেমা ‘ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা’।

স্বর্ণপামের লড়াইয়ে প্রথম
ছয় পরিচালক প্রথমবার স্বর্ণপামের জন্য লড়াই করার জায়গা পেলেন। তারা হলেন ট্র্যান আন হাং (দ্য প্যাশন অব দুদা বুফ্যঁ, ভিয়েতনাম/ফ্রান্স), রামাতা তুলাই সি (ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা, সেনেগাল/ফ্রান্স) এবং কারি আইনুজ (ফায়ারব্র্যান্ড, ব্রাজিল)।

দ্বিতীয় কৃষ্ণাঙ্গ নারী
বিশ্ব সিনেমার অন্যতম অভিজাত ক্লাবে নাম লেখাতে যাচ্ছেন রামাতা তুলাই সি। আগামী ২০ মে গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরের সিঁড়িতে পা রাখার সঙ্গে ইতিহাস গড়বেন তিনি। ওইদিন মূল প্রতিযোগিতা শাখায় তার পরিচালিত ‘ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা’র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে। কানের ৭৬ বছরের ইতিহাসে স্বর্ণপামের লড়াইয়ে যুক্ত হওয়া তিনি দ্বিতীয় কৃষ্ণাঙ্গ নারী। চার বছর আগে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী হিসেবে এই রেকর্ড গড়েন আরেক সেনেগালের বংশোদ্ভূত ফরাসি পরিচালক মাতি দিওপ।

‘গুডবাই জুলিয়া’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: ফেসবুক)

সুদানের ইতিহাস
আঁ সেঁর্তা রিগা শাখায় নির্বাচিত ১৭টি সিনেমার মধ্যে রয়েছে মোহাম্মদ করদোফানি পরিচালিত প্রথম সিনেমা ‘গুডবাই জুলিয়া’। কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে এবারই প্রথম উত্তর আফ্রিকার দেশটির কোনো সিনেমা জায়গা পেলো। ২০১১ সালে সুদান দুটি দেশে বিভক্ত হওয়ার আগে রাজধানী খার্তুমে এর শুটিং হয়েছে। এতে প্রথমবার বড় পর্দার জন্য অভিনয় করেছেন সুপারমডেল সিরান রিয়াক। এছাড়া আছেন ঈমান ইউসুফ, নাজার গোমা, জির দুয়ানি।

প্রামাণ্যচিত্রের মেলা
এবারের আসরে মূল প্রতিযোগিতায় ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমার পাশাপাশি আছে ১টি প্রামাণ্যচিত্র। এটি হলো চীনের ওয়াং বিং পরিচালিত ‘ইয়ুথ (স্প্রিং)’। এতে দেখা যাবে, গ্রামাঞ্চল থেকে সাংহাই যাওয়ার পর একদল তরুণ চীনা নববর্ষ উদযাপন করতে বাড়ির পথে রওনা দেয়।

কানের ইতিহাসে সর্বশেষ ২০০৪ সালে স্বর্ণপামের লড়াইয়ে ছিলো প্রামাণ্যচিত্র। সেই বছর মাইকেল মুর পরিচালিত ‘ফারেনহাইট নাইন/ইলেভেন’ পুরস্কারটি জিতে নেয়। এছাড়া ২০০৮ সালে মূল প্রতিযোগিতা শাখায় স্থান পায় ইসরায়েলের আরি ফোলম্যান পরিচালিত অ্যানিমেটেড প্রামাণ্যচিত্র ‘ওয়াল্টজ অ্যান্ড বশির’।

এবারের অফিসিয়াল সিলেকশনে আরো কয়েকটি প্রামাণ্যচিত্র জায়গা পেয়েছে। চীনের ওয়াং বিং পরিচালিত ‘ম্যান ইন ব্ল্যাক’ দেখানো হবে স্পেশাল সেশনসে। একই শাখায় রয়েছে জার্মান চিত্রশিল্পী আনজেল্ম কিফারের ওপর ত্রিমাত্রিক প্রযুক্তিতে নির্মিত ‘আনজেল্ম’ স্পেশাল সেশনসে দেখানো হবে। এর পরিচালক জার্মান নির্মাতা উইম ওয়েন্ডার্সের ‘পারফেক্ট ডেজ’ লড়বে মূল প্রতিযোগিতায়। একই পরিচালকের একাধিক কাজ কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে গত কয়েক আসরে দেখা যায়নি। এবার সেই ব্যতিক্রম ঘটনা ঘটেছে। দুই নির্মাতার দুটি করে সিনেমা রয়েছে অফিসিয়াল সিলেকশনে।

স্পেশাল সেশনস বিভাগে রয়েছে আরেকটি প্রামাণ্যচিত্র। এর নাম ‘অকিউপাইড সিটি’। এটি পরিচালনা করেছেন ব্রিটিশ নির্মাতা স্টিভ ম্যাককুইন।

‘স্ট্রেঞ্জ ওয়ে অব লাইফ’ শর্টফিল্মের পোস্টার (ছবি: এল দেসেও)

প্রযোজনায় ফ্যাশন হাউস
বিখ্যাত ফরাসি ফ্যাশন হাউস ইভ সাঁ লোরন সিনেমা প্রযোজনায় যুক্ত হলো। তাদের প্রযোজিত শর্টফিল্ম ‘স্ট্রেঞ্জ ওয়ে অব লাইফ’ থাকছে স্পেশাল সেশনসে। এটি পরিচালনা করেছেন পেড্রো আলমোদোভার। এটি ইংরেজি ভাষায় স্প্যানিশ এই নির্মাতার দ্বিতীয় শর্টফিল্ম। ২০২০ সালে তিনি ইংরেজি ভাষায় পরিচালনা করেন ‘দ্য হিউম্যান ভয়েস’।

‘স্ট্রেঞ্জ ওয়ে অব লাইফ’ শর্টফিল্মে অভিনয় করেছেন ইথান হক ও পেড্রো পাসকাল। এতে তাদের দেখা যাবে মধ্যবয়সী দুই ব্যক্তির ভূমিকায়, দীর্ঘ ২৫ বছর পর যাদের দেখা হয়। শেরিফ জ্যাক ও সিলভা একসময় ভাড়াটে বন্দুকধারী হিসেবে একসঙ্গে কাজ করতো। ২৫ বছর পর একদিন পুরনো বন্ধুর বাড়িতে যায় সিলভা। তবে জ্যাককে সে জানায়, পুরনো স্মৃতি রোমন্থনের জন্য ফিরে আসেনি সে। তার আসল উদ্দেশ্য অন্যকিছু।

১৯৬২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইভ সাঁ লোরন। ফ্যাশন দুনিয়ায় এর সুনাম ব্যাপক। হলিউডের অনেক তারকার প্রিয় ব্র্যান্ড এটি। ডেভিড ক্রোনেনবার্গ ও পাওলো সরেন্তিনোর নতুন সিনেমা দুটি প্রযোজনা করছে এই প্রতিষ্ঠান।

‘ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: লা শ্যঁভ-সুরি)

আরব বসন্ত
আরব অঞ্চলের (মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা) পরিচালকদের মধ্যে মূল প্রতিযোগিতায় রয়েছে আলজেরিয়ান-ব্রাজিলিয়ান নির্মাতা কারি আইনুজের ‘ফায়ারব্র্যান্ড’, তিউনিসিয়ার কাওতার বেন হানিয়ার ‘ফোর ডটারস’ এবং সেনেগালিজ-ফরাসি পরিচালক রামাতা-তুলাই সি’র ‘ব্যানেল অ্যান্ড অ্যাদামা’।

ফরাসি-আলজেরিয়ান নির্মাতা এলায়েস বেলকেদারের ‘ওমর দ্য স্ট্রবেরি’ দেখানো হবে মিডনাইট সেশনসে। আঁ সেঁর্তা রিগায় স্থান পেয়েছে মরক্কোর আসমা এল মুদিরের ‘দ্য মাদার অব অল লাইস’, ইরানের আলি আসগরি ও আলি রেজা খাতামির ‘টেরেস্ট্রিয়াল ভার্সেস’, সুদানের মোহাম্মদ করদোফানির প্রথম সিনেমা ‘গুডবাই জুলিয়া’ এবং মরক্কোর কামাল লাজরাকের প্রথম সিনেমা ‘হাউন্ডস’।

মরক্কোর তরুণী জিনেব ওয়াকরিম (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

প্রথমবার মরক্কোর ফিল্ম স্কুল
লা সিনেফে প্রথমবার জায়গা করে নিয়েছে মরক্কোর ফিল্ম স্কুলের সিনেমা। এটি হলো জিনেব ওয়াকরিম পরিচালিত ‘মুন’ (১৩ মিনিট)। তিনি মারাকেশের স্কুল অব ভিজ্যুয়াল আর্টসের (ইএসএভি) শিক্ষার্থী।

‘ফায়ারব্র্যান্ড’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: ব্রুহাহা এন্টারটেইনমেন্ট লিমিটেড)

লাতিন আমেরিকা হাতেগোনা
৭৬তম কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে লাতিন আমেরিকান দেশের সংখ্যা হাতেগোনা। মূল প্রতিযোগিতায় আছে ব্রাজিলিয়ান নির্মাতা কারি আইনুজের ইংরেজি সিনেমা ‘ফায়ারব্র্যান্ড’। কান প্রিমিয়ারে দেখানো হবে মেক্সিকোর আমাত এসকালান্তে পরিচালিত ‘লস্ট ইন দ্য নাইট’। আঁ সেঁর্তা রিগায় রয়েছে পর্তুগালের জোয়াও সালাভিৎসা ও ব্রাজিলের রেনে নাদের মেসোরার ‘দি বুরিটি ফ্লাওয়ার’, আর্জেন্টিনার রদ্রিগো মোরেনোর ‘দি ডেলিনকোয়েন্টস’ এবং চিলির ফেলিপে গালভেজের প্রথম সিনেমা ‘দ্য সেটেলার্স’।

প্রথমবার কোরিয়ান নারী ব্যান্ড
১৯৯৭ সাল থেকে কান উৎসবের অফিসিয়াল স্পন্সর হিসেবে আছে শপার্ড। সুইস এই ব্র্যান্ডের দূতিয়ালি করেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তারকারা। এ তালিকায় আছে দক্ষিণ কোরিয়ার মেয়েদের ব্যান্ড অ্যাসপা। তারাই প্রথম কোরিয়ান পপ গানের দল হিসেবে কানের লালগালিচায় পা রাখবে।

কোরিয়ান আরেক নারী ব্যান্ড ব্ল্যাকপিঙ্কের সদস্য জেনি কানের লালগালিচায় হাজির হবেন। স্যাম লেভিনসন পরিচালিত এইচবিও সিরিজ ‘দ্য আইডল’-এর প্রচার করতে কানসৈকতে যাবেন তিনি।

৭৬তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টার

৫৫ বছরের পুরনো ছবি দিয়ে পোস্টার
ভূমধ্যসাগরের তটভূমি। ‌১ জুন, ১৯৬৮। দক্ষিণ-পূর্ব ফ্রান্সের উপকূলীয় শহর সাঁ-ত্রপে’র কাছে পঁম্পেলন সৈকতে দাঁড়িয়ে ক্যাথেরিন দ্যুনোভ। আলা কাভালিয়ের পরিচালিত ‘লা শামাদ’ সিনেমার শুটিং করছিলেন এই ফরাসি অভিনেত্রী। এতে লুসিল চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। তখন তোলা একটি সাদাকালো ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের অফিসিয়াল পোস্টার।

নেটফ্লিক্সকে ‘না’
২০১৭ সালে কান উৎসব কর্তৃপক্ষ নীতি চালু করে, মূল প্রতিযোগিতা শাখায় জায়গা পেতে হলে যেকোনো সিনেমা ফ্রান্সের সিনেমা হলে মুক্তি দিতে হবে। কিন্তু ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্স এই শর্ত মেনে নেয়নি। এ কারণে প্রতিষ্ঠানটির সিনেমা স্বর্ণপামের লড়াইয়ে যুক্ত হয়নি কখনো। এবারও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি।

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৪: আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় নির্বাচিত ১৮ সিনেমা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘সন্তোষ’ সিনেমার দৃশ্যে শাহানা গোস্বামী (ছবি: এমকেটু ফিল্মস)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরে অফিসিয়াল সিলেকশনের অংশ আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় নির্বাচিত হয়েছে ১৮টি সিনেমা। এগুলোর মধ্যে সেরা কাজগুলো বেছে নিতে প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন কানাডিয়ান পরিচালক-অভিনেতা জেভি দোলান। তার নেতৃত্বাধীন বিচারক প্যানেলে থাকছেন মরক্কোর পরিচালক আজমেই এল মুদির, ফরাসি পরিচালক মাইমুনা দুকুরে, লাক্সামবার্গিশ-জার্মান অভিনেত্রী ভিকি ক্রিপস, আমেরিকান সমালোচক টড ম্যাকার্থি।

ফ্রান্সের ভূমধ্যসাগরীয় শহর কানে আগামী ১৪ মে উৎসবের পর্দা উঠবে। এর পরদিন পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের দ্যুবুসি থিয়েটারে রয়েছে আঁ সাঁর্তে রিগার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এতে দেখানো হবে আইসল্যান্ডের রুনার রুনারসন পরিচালিত ‘হোয়েন দ্য লাইট ব্রেকস’।

‘দ্য শেমলেস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: আরবান ফ্যাক্টরি)

এবারের কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। এর আগের দিন (২৪ মে) স্থানীয় সময় রাত ৮টায় পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের দ্যুবুসি থিয়েটারে আঁ সাঁর্তে রিগার সমাপনী অনুষ্ঠানে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

‘নোরা’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ব্ল্যাক সুগার পিকচার্স)

আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় নির্বাচিত ১৮টি সিনেমা

  • আরমান্ড (হল্ফদান উলমন তন্দেল, নরওয়ে; প্রথম সিনেমা)
  • ফ্লো (গিন্ট জিলবালোদিস, লাটভিয়া)
  • ব্ল্যাক ডগ (গুয়ান হু, চীন)
  • দ্য স্টোরি অব সুলেমান (বরিস লোজকাইন)
  • ডগ অন ট্রায়াল (লেটিটিয়া ডশ, ফ্রান্স/সুইজারল্যান্ড; প্রথম সিনেমা)
  • দ্য কিংডম (জুলিয়ান কোলোনা, ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
  • হোয়েন দ্য লাইট ব্রেকস (রুনার রুনারসন, আইসল্যান্ড)
  • মাই সানশাইন (হিরোশি ওকুয়ামা, জাপান)
  • নিকি (সেলিন স্যালে, ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
  • নোরা (তৌফিক আল জায়দি, সৌদি আরব)
  • অন বিকামিং অ্যা গিনি ফাউল (রুঙ্গানো নিয়োনি, জাম্বিয়া/ওয়েলশ)
  • সন্তোষ (সন্ধ্যা সুরি, ভারত/যুক্তরাজ্য)
  • সেপ্টেম্বর সেইস (আরিয়েন লাবেদ, গ্রিস/ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
  • দ্য ড্যামড (রবার্তো মিনারভিনি, ইতালি)
  • দ্য শেমলেস (কনস্তান্তিন বোজানভ, বুলগেরিয়া)
  • দ্য ভিলেজ নেক্সট টু প্যারাডাইস (মো হারাবে, সোমালিয়া; প্রথম সিনেমা)
  • ভিয়েত অ্যান্ড নাম (ট্রুয়ং মিন কুই, ভিয়েতনাম)
  • হলি কাউ (লুইস কুরভয়জিয়ের, ফ্রান্স; প্রথম সিনেমা)
পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৪: মূল প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ২২ সিনেমা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘মেগালোপলিস’ সিনেমায় অ্যাডাম ড্রাইভার ও নাতালি এমানুয়েল (ছবি: আমেরিকান জোয়িট্রোপ)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের মধ্য দিয়ে আবার মেতে উঠবে ফ্রান্সের ভূমধ্যসাগরীয় তীর। আগামী ১৪ মে সাগরপাড়ের শহরে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে উৎসবটির পর্দা উঠবে।

মূল প্রতিযোগিতা শাখায় প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। তার নেতৃত্বাধীন বিচারক প্যানেলে থাকছেন আমেরিকান অভিনেত্রী লিলি গ্ল্যাডস্টোন, ফরাসি অভিনেত্রী এভা গ্রিন, অভিনেতা ওমর সি, লেবানিজ পরিচালক নাদিন লাবাকি, জাপানিজ পরিচালক হিরোকাজু কোরি-এদা, ইতালিয়ান অভিনেতা পিয়ারফ্রান্সেসকো ফাভিনো, স্প্যানিশ পরিচালক হুয়ান আন্তোনিও বায়োনা ও তুর্কি চিত্রনাট্যকার এব্রু জেলান।

এবারের কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। সমাপনী অনুষ্ঠানে দেওয়া হবে সর্বোচ্চ পুরস্কার স্বর্ণপাম। মূল প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ২২টি সিনেমার মধ্যে একটি জিতবে এটি। তালিকাটি দেখে নিন।

মূল প্রতিযোগিতা শাখায় নির্বাচিত ২২টি সিনেমা

‘দ্য অ্যাপ্রেনটিস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: স্কাইথিয়া ফিল্মস)

  • দ্য অ্যাপ্রেনটিস (আলি আব্বাসি, ইরান/ডেনমার্ক)
  • মোটেল ডেস্টিনো (করিম আইনুজ, ব্রাজিল)

‘বার্ড’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: বিবিসি ফিল্ম)

  • বার্ড (আন্ড্রেয়া আর্নল্ড, যুক্তরাজ্য)

‘এমিলিয়া পেরেস’ সিনেমায় সেলেনা গোমেজ (ছবি: ফ্রান্স টু সিনেমা)

  • এমিলিয়া পেরেস (জ্যাক অদিয়াঁর, ফ্রান্স)

‘আনোরা’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: নিয়ন)

  • আনোরা (শন বেকার, যুক্তরাষ্ট্র)
  • মেগালোপলিস (ফ্রান্সিস ফোর্ড কপোলা, যুক্তরাষ্ট্র)
  • দ্য শ্রাউডস (ডেভিড ক্রোনেনবার্গ, কানাডা)
  • দ্য সাবস্ট্যান্স (কোরালি ফারজাঁ, ফ্রান্স)
  • গ্র্যান্ড ট্যুর (মিগেল গোমেজ, পর্তুগাল)

‘মার্সেলো মিয়ো’র পোস্টার (ছবি: আদ ভিতাম ডিস্ট্রিবিউশন)

  • মার্সেলো মিয়ো (ক্রিস্তফ অনোরেঁ, ফ্রান্স)

‘কট বাই দ্য টাইডস’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: এক্সস্ট্রিম পিকচার্স)

  • কট বাই দ্য টাইডস (জিয়া জাং-কি, চীন)
  • অল উই ইমাজিন অ্যাজ লাইট (পায়েল কাপাডিয়া, ভারত)

‘কাইন্ডস অব কাইন্ডনেস’ সিনেমায় এমা স্টোন (ছবি: সার্চলাইট পিকচার্স)

  • কাইন্ডস অব কাইন্ডনেস (ইয়োর্গোস লানতিমোস, গ্রিস)
  • বিটিং হার্টস (জিল লুঁলুশ, ফ্রান্স)
  • ওয়াইল্ড ডায়মন্ড (আগাত রিদাঁজে, প্রথম সিনেমা, ফ্রান্স)

‘ও কানাডা’ সিনেমায় জ্যাকব এলোর্ডি (ছবি: ফরগন ফিল্ম পিএসসি)

  • ও কানাডা (পল শ্রেডার, যুক্তরাষ্ট্র)

‘লিমোনোভ: দ্য ব্যালাড’ সিনেমায় বেন হুইশো (ছবি: ফ্রান্স থ্রি সিনেমা)

  • লিমোনোভ–দ্য ব্যালাড (কিরিল সেরেব্রেনিকোভ, রাশিয়া)
  • পার্তেনোপে (পাওলো সরেন্তিনো, ইতালি)

‘দ্য গার্ল উইথ দ্য নিডেল’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: নরডিস্ক ফিল্ম ডেনমার্ক)

  • দ্য গার্ল উইথ দ্য নিডেল (মান্নেস ফন হোর্ন, সুইডেন)
  • দ্য মোস্ট প্রেসাস অব কারগোজ (মিশেল অ্যাজানাভিসুস, ফ্রান্স)
  • দ্য সিড অব দ্য স্যাক্রেড ফিগ (মোহাম্মদ রাসুলফ)

‘থ্রি কিলোমিটারস টু দ্য এন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি: মেমেন্টো ডিস্ট্রিবিউশন)

  • থ্রি কিলোমিটারস টু দ্য এন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড (এমানুয়েল পারবু, রোমানিয়া)
পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কানের অফিসিয়াল পোস্টারে আকিরা কুরোসাওয়ার প্রতি সম্মান

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টার (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টারে জাপানের কিংবদন্তি পরিচালক আকিরা কুরোসাওয়ার প্রতি সম্মান জানানো হয়েছে। তার পরিচালিত ‘র‌্যাপসোডি ইন অগাস্ট’ সিনেমার একটি দৃশ্য রাখা হয়েছে পোস্টারে। ১৯৯১ সালে ৪৪তম কান উৎসবে প্রতিযোগিতার বাইরে এর উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়। এরপর ১৯৯৩ সালে ৪৬তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রতিযোগিতার বাইরে প্রদর্শিত হয় তাঁর শেষ সিনেমা ‘মাদাদায়ো’।

কানের এবারের আসরের অফিসিয়াল পোস্টারে দেখা যাচ্ছে, রাতে খোলা আকাশের নিচে পাশাপাশি বসে আছে শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ। তাদের ওপর ঠিকরে পড়েছে চাঁদের আলো। সামনে বিস্তৃত আকাশ, পাহাড় ও সবুজ বন। এতে ফুটে উঠেছে কাব্যিক সৌন্দর্য, সম্মোহনী জাদু ও চলচ্চিত্রের দৃশ্যমান সরলতা।

কান উৎসবের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘পোস্টারটি আমাদের একত্রিত থাকা ও সবকিছুর মধ্যে সম্প্রীতির গুরুত্বের কথা মনে করিয়ে দেয়।’ এটি ডিজাইন করেছে প্যারিসের চারু ও কারুশিল্প প্রতিষ্ঠান হার্টল্যান্ড ভিলার লিওনেল আভিনিয়োঁ ও স্টেফান দে ভিভিয়েজ।

আকিরা কুরোসাওয়া (জন্ম: ২৩ মার্চ, ১৯১০; মৃত্যু: ৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৮)

‘র‌্যাপসোডি ইন অগাস্ট’ সিনেমার গল্পে দেখা যায়, ১৯৪৫ সালের ৯ আগস্ট নাগাসাকি বোমা হামলার শিকার একজন বৃদ্ধা যুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রাচীর হিসেবে প্রেম ও সততার প্রতি নিজের বিশ্বাসকে নাতি-নাতনি ও আমেরিকান ভাগ্নের চিন্তাভাবনায় ছড়িয়ে দেন।

আগামী ১৪ মে ভূমধ্যসাগরের তীরে দক্ষিণ ফ্রান্সের কান শহরের পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে এবারের কান উৎসবের পর্দা উঠবে। মূল প্রতিযোগিতা শাখায় প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় প্রধান বিচারক থাকবেন কানাডিয়ান পরিচালক-অভিনেতা হাভিয়ার দোলান।

৭৭তম কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন ফরাসি কমেডিয়ান-অভিনেত্রী ক্যামিল কোতাঁন।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ