Connect with us

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কান ২০২৩: লালগালিচায় সানি লিওনির ঝলক

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওনি কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের লালগালিচায় প্রথমবার হাঁটলেন। নিজের অভিনীত ‘কেনেডি’র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ারে অংশ নিতে এসে এই সুযোগ হলো তার। অফিসিয়াল সিলেকশনে স্থান পাওয়া ভারতের অনুরাগ কাশ্যাপ পরিচালিত সিনেমাটি স্পেশাল স্ক্রিনিং শাখায় দেখানো হয়েছে। কানে এই কানাডিয়ান-আমেরিকান অভিনেত্রীর নানান রূপ দেখুন ছবিতে।

কানের লালগালিচায় জমকালো গোলাপি কাট-আউট গাউনে সানি লিওনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

চোখধাঁধানো সৌন্দর্যের সুবাদে লালগালিচায় পা রাখতেই সবার নজর কেড়েছেন সানি লিওনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সানি লিওনির গালিচাছোঁয়া এক-পা খোলা এবং কাঁধ ও কোমরে কাটা পোশাকটি ডিজাইন করেছেন লেবাননের নাজা সাদ (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সানি লিওনি সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ‘এখন পর্যন্ত আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে অসাধারণ ও গর্বের মুহূর্ত এটাই। এজন্য অনুরাগ কাশ্যাপকে ধন্যবাদ। আমাকে পর্দা ভাগাভাগি করতে দেওয়ায় রাহুল ভাটকেও ধন্যবাদ। দুই জনের জন্যই ভালোবাসা।’ (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

গতকাল (২৪ মে) দিবাগত রাত ১২টা ১৫ মিনিটে পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে ‘কেনেডি’র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়েছে (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে স্থান পাওয়ার ব্যাপারকে স্বপ্নকে ছাড়িয়ে যাওয়া মনে করেন সানি লিওনি। তার চোখে, ‘গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়ের থিয়েটারে আমার সিনেমা, এর চেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ও সম্মান আর কিছু হতে পারে না।’ (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কানে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সানি লিওনি। তার মন্তব্য, ‘কেউ আর আমাকে নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারবে না এবং বলতে পারবে না যে, শুধুই গ্ল্যামারের মাধ্যমে এই সিনেমায় কাজ করেছি।’

লালগালিচায় ভারতীয় নির্মাতা অনুরাগ কাশ্যাপ ও অভিনেতা রাহুল ভাটের সঙ্গে সানি লিওনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

কান উৎসবে এর আগেও অনুরাগ কাশ্যাপ পরিচালিত বেশ কয়েকটি সিনেমা জায়গা পেয়েছে। ডিরেক্টরস’ ফোর্টনাইটে ‘গ্যাংস অব ওয়াসেপুর’ (২০১২), ‘আগলি’ (২০১৩), ‘রমণ রাঘব ২.০’ (২০১৬) এবং অফিসিয়াল সিলেকশনের গালা স্ক্রিনিংয়ে ‘বোম্বে টকিজ’ (২০১৩) দেখানো হয়েছে। এছাড়া তার প্রযোজিত কয়েকটি সিনেমা স্থান পেয়েছে কানে। এগুলো হলো আঁ সেঁর্তা রিগা শাখায় ‘উড়ান’ (২০১০) ও ‘মাসান’ (২০১৫), মিডনাইট স্ক্রিনিংয়ে ‘মনসুন শুটআউট’ (২০১৩) এবং ‌ইন্টারন্যাশনাল ক্রিটিকস উইকে ‘দ্য লাঞ্চবক্স’ (২০১৩) দেখানো হয় (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

আজ (২৫ মে) কান উৎসবের ফটোকলে রাহুল ভাট, সানি লিওনি ও অনুরাগ কাশ্যাপ। আজ সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে বুনুয়েল থিয়েটারে, দুপুর ২টায় আনিয়েস ভারদা থিয়েটারে, সন্ধ্যা ৬টায় সিনিয়াম অরোরে আবার ‘কেনেডি’ দেখানো হয় (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

‘কেনেডি’র গল্পে দেখা যায়, বছরের পর বছর মৃত বলে ধরে নেওয়া সাবেক পুলিশ কেনেডি (রাহুল ভাট) অনিদ্রায় ভোগে। দায়মোচনের জন্য দুর্নীতিগ্রস্তদের জন্য কাজ চালিয়ে যাচ্ছে সে (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

চার্লি নামের একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন সানি লিওনি। শুটিংয়ের আগে গাড়িতে বসে, পরিবার, স্বামী-সন্তান, বন্ধুদের সামনেও অনুশীলন করেছেন তিনি (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

কানসৈকতে এককাঁধ খোলা কাট-আউট ম্যাক্সি পোশাকে সানি লিওনি। পায়ে ছিলো সবুজ হিল (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সানি লিওনির পরা পান্না সবুজ রঙের পোশাকটি ডিজাইন করেছেন মোনাকোর মারিয়া কোকিয়া (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

ফরাসি উপকূলীয় শহরে কালো টপ ও সাদা প্যান্টে সানি লিওনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

কান থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা ছবিতে সানি লিওনির সব পোশাক দারুণ লেগেছে (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সানি লিওনির কালো টপ ডিজাইন করেছেন লেবাননের জেমি মালোফ। তার প্যান্ট বানিয়েছে আমেরিকান ফ্যাশন প্রতিষ্ঠান বিসিবিজি ম্যাক্স অ্যাজরিয়া (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

কানে তৃতীয় দিন ইতালিয়ান ফ্যাশন ডিজাইনার জুলফের মিলানোর পোশাক পরেছেন সানি লিওনি। তার জ্যাকেটটি প্যারিসের দ্য ফ্রাঙ্কি শপ থেকে নেওয়া (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

কানাডায় জন্মের পর এই তারকার নাম রাখা হয় কারেনজিৎ কৌর। ক্যারিয়ারের শুরুতে প্রাপ্তবয়স্কদের উপযোগী সিনেমার মাধ্যমে খ্যাতি পেয়েছেন সানি লিওনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এ অংশগ্রহণের সূত্র ধরে ২০১২ সালে ‘জিসম টু’র মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় সানি লিওনির। এরপর সফলভাবে মূলধারার সিনেমায় নিজের অবস্থান অর্জন করেন তিনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

পথচলাটা মোটেও মসৃণ ছিলো না বলে জানিয়েছেন সানি লিওনি। কারণ মানুষের মধ্যে থাকা গতানুগতিক ধ্যান-ধারণা বদলাতে হয়েছে তাকে (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সানি লিওনি অভিনীত হিন্দি সিনেমার তালিকায় আরো আছে ‘জ্যাকপট’ (২০১৩), ‘রাগিনি এমএমএস টু’ (২০১৪), ‘এক পাহেলি লীলা’ (২০১৫), ‘তেরা ইন্তেজার’ (২০১৭), ‘ওয়ান নাইট স্ট্যান্ড’ (২০১৬) প্রভৃতি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

২০২২ সালে তামিল ভাষায় নির্মিত ‘ওহ মাই গোস্ট’ (২০২২) সিনেমায় প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন সানি লিওনি (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কানের অফিসিয়াল পোস্টারে আকিরা কুরোসাওয়ার প্রতি সম্মান

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টার (ছবি: কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল)

৭৭তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অফিসিয়াল পোস্টারে জাপানের কিংবদন্তি পরিচালক আকিরা কুরোসাওয়ার প্রতি সম্মান জানানো হয়েছে। তার পরিচালিত ‘র‌্যাপসোডি ইন অগাস্ট’ সিনেমার একটি দৃশ্য রাখা হয়েছে পোস্টারে। ১৯৯১ সালে ৪৪তম কান উৎসবে প্রতিযোগিতার বাইরে এর উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়। এরপর ১৯৯৩ সালে ৪৬তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রতিযোগিতার বাইরে প্রদর্শিত হয় তাঁর শেষ সিনেমা ‘মাদাদায়ো’।

কানের এবারের আসরের অফিসিয়াল পোস্টারে দেখা যাচ্ছে, রাতে খোলা আকাশের নিচে পাশাপাশি বসে আছে শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ। তাদের ওপর ঠিকরে পড়েছে চাঁদের আলো। সামনে বিস্তৃত আকাশ, পাহাড় ও সবুজ বন। এতে ফুটে উঠেছে কাব্যিক সৌন্দর্য, সম্মোহনী জাদু ও চলচ্চিত্রের দৃশ্যমান সরলতা।

কান উৎসবের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘পোস্টারটি আমাদের একত্রিত থাকা ও সবকিছুর মধ্যে সম্প্রীতির গুরুত্বের কথা মনে করিয়ে দেয়।’ এটি ডিজাইন করেছে প্যারিসের চারু ও কারুশিল্প প্রতিষ্ঠান হার্টল্যান্ড ভিলার লিওনেল আভিনিয়োঁ ও স্টেফান দে ভিভিয়েজ।

আকিরা কুরোসাওয়া (জন্ম: ২৩ মার্চ, ১৯১০; মৃত্যু: ৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৮)

‘র‌্যাপসোডি ইন অগাস্ট’ সিনেমার গল্পে দেখা যায়, ১৯৪৫ সালের ৯ আগস্ট নাগাসাকি বোমা হামলার শিকার একজন বৃদ্ধা যুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রাচীর হিসেবে প্রেম ও সততার প্রতি নিজের বিশ্বাসকে নাতি-নাতনি ও আমেরিকান ভাগ্নের চিন্তাভাবনায় ছড়িয়ে দেন।

আগামী ১৪ মে ভূমধ্যসাগরের তীরে দক্ষিণ ফ্রান্সের কান শহরের পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে এবারের কান উৎসবের পর্দা উঠবে। মূল প্রতিযোগিতা শাখায় প্রধান বিচারকের দায়িত্বে থাকছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ। আঁ সাঁর্তে রিগা শাখায় প্রধান বিচারক থাকবেন কানাডিয়ান পরিচালক-অভিনেতা হাভিয়ার দোলান।

৭৭তম কান উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন ফরাসি কমেডিয়ান-অভিনেত্রী ক্যামিল কোতাঁন।

পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

ক্রিটিকস’ উইকে নির্বাচিত শর্টফিল্ম নিয়ে কানে যাচ্ছেন বাংলাদেশের দুই নির্মাতা

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

আদনান আল রাজীব, ‘র‌্যাডিক্যালস’ শর্টফিল্মের পোস্টার, তানভীর হোসেইন (ছবি: রানআউট ফিল্মস, গ্রিন স্ক্রিন)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের প্যারালাল শাখা ক্রিটিকস’ উইকের ৬৩তম আসরে প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হলো ১০টি শর্টফিল্ম। এরমধ্যে ‘র‌্যাডিক্যালস’ সহ-প্রযোজনা করেছেন বাংলাদেশি দুই নির্মাতা আদনান আল রাজীব ও তানভীর হোসেইন। আজ (১৮ এপ্রিল) রাতে সুখবরটি জানিয়েছেন তারা। এরপর থেকে দুইজনই অভিনন্দনে ভাসছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় আদনান আল রাজীব ও তানভীর হোসেইন লিখেছেন, “কানের অংশ হতে পেরে সত্যি আমরা রোমাঞ্চিত ও সম্মানিত। আমরা ফিলিপাইনের শর্টফিল্ম ‘র‌্যাডিক্যালস’ যৌথভাবে প্রযোজনা করেছি। পরিচালনা করেছেন আরভিন বেলারমিনো। তিনি ও কাইলা রোমেরো চিত্রনাট্য লিখেছেন। ৬৩তম স্যুমেন দ্যু লা ক্রিতিকে এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে। অসাধারণ প্রযোজক ক্রিস্টিন ডি লিওনকে আমার আন্তরিক ধন্যবাদ।”

‘র‌্যাডিক্যালস’ শর্টফিল্মের দৃশ্য (ছবি: রানআউট ফিল্মস)

সবশেষে ক্রিটিকস’ উইকের প্রধান নির্বাহী আভা কায়েনের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন আদনান আল রাজীব ও তানভীর হোসেইন। রাজীবের স্ট্যাটাসের মন্তব্যের ঘরে নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী লিখেছেন, ‘দারুণ খবর!’

আদনান আল রাজীবকে উদ্দেশ করে অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ‘কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশিদের নাম দেখা আমাদের জন্য গর্বের। যেকোনও শিল্পীর জন্য এটি স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো এবং এখন আপনার নাম দেখছি। মনে পড়ে আমাকে বলেছিলেন, প্রযোজক হিসেবে কাজ করতে আপনি কতটা উৎসাহী এবং এই কাজ করতে কতোটা ভালো লাগে আপনার। আবার সেটি প্রমাণিত হলো: আপনি যখন ভালো লাগার মতো কাজ করেন, সাফল্য ঠিকই ধরা দেয়। সময় এখন আপনার আদনান আল রাজীব। উড়তে থাকুন!’

‘র‌্যাডিক্যালস’ শর্টফিল্মের দৃশ্য (ছবি: রানআউট ফিল্মস)

স্যুমেন দ্যু লা ক্রিতিকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে আদনান আল রাজীবের ফোন নম্বর ও তার প্রতিষ্ঠান রানআউট ফিল্মস এবং তানভীর হোসেইনের ফোন নম্বর ও তার প্রতিষ্ঠান গ্রিন স্ক্রিনের নাম উল্লেখ রয়েছে। ছবিটি অন্য প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো ক্রিস্টিন ডি লিওনের ওয়াফ স্টুডিওস, ডমিনিক ওয়েলিনস্কির ডিডব্লিউ, গি গঞ্জালেসের অ্যা ফোর্সফুল টাইড প্রোডাকশন, ম্যাক্স নিসের নাইন ফিল্মস।

আরভিন বেলারমিনো সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের অনুভূতি জানিয়েছেন এভাবে, “আমাদের কাজ ও দর্শনকে বিশ্বাস করার জন্য কান ক্রিটিকস’ উইককে ধন্যবাদ। আমরা ভীষণ সম্মানিত। পুরো টিমের প্রতি আমার ভালোবাসা ও কৃতজ্ঞতা, যারা ছবিটি তৈরির জন্য উৎসাহী ও আন্তরিক ছিলেন।”

‘র‌্যাডিক্যালস’ শর্টফিল্মের দৃশ্য (ছবি: রানআউট ফিল্মস)

‘র‌্যাডিক্যালস’ শর্টফিল্মের গল্পে দেখা যাবে, একটি মোরগ-নৃত্যদলের আনাড়ি এক তরুণ বাজে নাচের কারণে উপহাসের মুখে পড়ে। একের পর এক অদ্ভুত ঘটনার সম্মুখীন হয়ে সে বুঝতে পারে দলটি তাদের দুর্বলতাকে কীভাবে উতরে ওঠে। এতে অভিনয় করেছেন টিমোথি কাস্তিলো, রস পেসিগ্যান, এলোরা এসপানো।

পড়া চালিয়ে যান

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

কানসৈকতে ৯ বছর পর ফিরছে ‘ফিউরিওসা’

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র দৃশ্যে আনিয়া টেলর-জয় (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের অফিসিয়াল সিলেকশনে প্রথমে যুক্ত হলো ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। আগামী ১৫ মে প্রতিযোগিতার বাইরে এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে। পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে এই প্রদর্শনীতে উপস্থিত থাকবেন সিনেমাটির পরিচালক জর্জ মিলার, আমেরিকান অভিনেত্রী আনিয়া টেলর-জয়, অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থ ও ব্রিটিশ অভিনেতা টম বার্ক।

২০১৫ সালে কান উৎসবের প্রতিযোগিতার বাইরে দেখানো হয় ‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’। সেই সিনেমার প্রিক্যুয়েল হিসেবে ৯ বছর পর তৈরি হয়েছে ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। সব মিলিয়ে ‘ম্যাড ম্যাক্স’ ফ্রাঞ্চাইজের পঞ্চম কিস্তি এটি। অন্য সিনেমাগুলো হলো– ‘ম্যাড ম্যাক্স’ (১৯৭৯), ‘ম্যাড ম্যাক্স টু: দ্য চ্যালেঞ্জ’ (১৯৮১), ‘ম্যাড ম্যাক্স: বিয়ন্ড থান্ডারডোম’ (১৯৮৫)। সবই পরিচালনা করেছেন জর্জ মিলার।

‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’ পাঁচটি শাখায় অস্কার জিতেছে। এতে ফিউরিওসা চরিত্রে অভিনয় করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকান-আমেরিকান তারকা শার্লিজ থেরন। কে এই ফিউরিওসা? তার শৈশব থেকে কৈশোরে পরিণত হওয়ার গল্প দেখা যাবে এবার। নতুন সিনেমায় নাম ভূমিকায় থাকছেন আনিয়া টেলর-জয়। লুটেরা দলের অন্যতম সদস্যের ভূমিকায় দেখা দেবেন ‘থর’ তারকা ক্রিস হেমসওয়ার্থ। এছাড়া আছেন অস্ট্রেলিয়ান তিন অভিনেতা লকি হিউম, নাথান জোন্স ও জন হাওয়ার্ড।

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র শুটিংয়ে আনিয়া টেলর-জয়, জর্জ মিলার ও ক্রিস হেমসওয়ার্থ (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

নতুন পর্বে থাকছে ‘ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড’-এর ১৫-২০ বছর আগের গল্প, যখন অল্প বয়সী মেয়ে ফিউরিওসাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় লুটেরা বাহিনী। তার মা লড়াকু মনোভাবের। মেয়েকে সেভাবেই তৈরি করেছেন তিনি। মাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভয়ঙ্কর সব বাধা পেরিয়ে ঘরে ফেরার রুদ্ধশ্বাস পথচলা শুরু করে ফিউরিওসা।

কান উৎসবে প্রদর্শনীর পর আগামী ২২ মে ওয়ার্নার ব্রাদার্স ডিসকভারির পরিবেশনায় ফ্রান্সে এবং আগামী ২৪ মে যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পাবে ‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’। এটি প্রযোজনা করেছেন ডগ মিচেল ও জর্জ মিলার। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন জর্জ মিলার ও নিকো লাথাউরিস।

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র পোস্টার (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

২০১৬ সালে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৬৯তম আসরের মূল প্রতিযোগিতা শাখার বিচারকদের প্রধান ছিলেন জর্জ মিলার। সর্বশেষ ২০২২ সালে ৭৫তম কান উৎসবে তার পরিচালিত ‘থ্রি থাউজেন্ড ইয়ারস অব লংগিং’ দেখানো হয় প্রতিযোগিতার বাইরে। আবার কানসৈকতে ফিরতে পারছেন বলে রোমাঞ্চিত ৭৯ বছর বয়সী এই অস্ট্রেলিয়ান নির্মাতা।

‘ফিউরিওসা: অ্যা ম্যাড ম্যাক্স সাগা’র পোস্টার (ছবি: ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

এবারের কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৭৭তম আসরের পুরো অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা করা হবে আগামী ১১ এপ্রিল। আগামী ১৪ মে উৎসবটির উদ্বোধন হবে। দক্ষিণ ফ্রান্সে ভূমধ্যসাগরের তীরে ১১ দিনের মহাযজ্ঞ চলবে ২৫ মে পর্যন্ত।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ