Connect with us

ঢালিউড

দ্বিতীয় সপ্তাহে আরও বেশিসংখ্যক সিনেমা হলে ‘দামাল’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

দামাল

‘দামাল’ তারকা (বাঁ থেকে) ইন্তেখাব দিনার, বিদ্যা সিনহা মিম, শরিফুল রাজ, শাহনাজ সুমি, সিয়াম আহমেদ, একে আজাদ সেতু ও সুমিত সেনগুপ্ত (ছবি: ফেসবুক)

রায়হান রাফী পরিচালিত ‘দামাল’ সিনেমার দর্শক সংখ্যা বেড়ে চলেছে। ফলে মুক্তির দ্বিতীয় সপ্তাহে আরও বেশিসংখ্যক সিনেমা হলে চলছে এটি। সাধারণ দর্শকদের চোখে, ‘দামাল’ চলতি বছরের অন্যতম সেরা সিনেমা। অভিনয়, পরিচালনা, চিত্রনাট্য, চিত্রগ্রহণ, সম্পাদনা, আবহ সংগীতসহ সবকিছুর প্রশংসা করেছেন তারা। অনেকের মতে, এমন ছবি বাংলাদেশে আগে হয়নি বললেই চলে। কারও মতে, এটি দেশপ্রেমের দারুণ অনুপ্রেরণাদায়ক সিনেমা। সব মিলিয়ে মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়েছে এসব গুণগান।

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকাসহ দেশের ২২টি সিনেমা হলে মুক্তি পায় ‘দামাল’। দ্বিতীয় সপ্তাহে এসে সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫। জাজ মাল্টিমিডিয়ার পরিবেশনায় ‘দামাল’ আজ (৪ নভেম্বর) থেকে এটি উপভোগ করা যাচ্ছে ঢাকার স্টার সিনেপ্লেক্সের বসুন্ধরা সিটি (পান্থপথ), সনি স্কয়ার (মিরপুর), সীমান্ত সম্ভার (ধানমন্ডি), এসকেএস টাওয়ার (মহাখালী), সামরিক জাদুঘর (বিজয় সরণি), ব্লকবাস্টার সিনেমাস (যমুনা ফিউচার পার্ক), মধুমিতা, শ্যামলী, সৈনিক ক্লাব, বিজিবি, চিত্রামহল, লায়ন সিনেমাস, সেনা অডিটোরিয়াম (সাভার ক্যান্টনমেন্ট), নারায়ণগঞ্জের সিনেস্কোপ, সিলেটের গ্র্যান্ড সিলেট সিনেপ্লেক্স, চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিন ও সুগন্ধা, ময়মনসিংহের ছায়াবাণী, রংপুরের শাপলা, পাবনার রূপকথা, খুলনার শঙ্খ ও লিবার্টি, বগুড়ার মধুবন সিনেপ্লেক্স ও মম-ইন এবং সিরাজগঞ্জের রুটস সিনেক্লাবে।

দামাল

‘দামাল’ সিনেমার বিভিন্ন দৃশ্য (ছবি: ইমপ্রেস টেলিফিল্ম)

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সত্যি ঘটনায় অনুপ্রাণিত ‘দামাল’ সিনেমার চিত্রনাট্য। স্বাধীন বাংলা ফুটবল দল কীভাবে খেলার মাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অবদান রেখেছে এবং সেই অবদানে কিভাবে গোটা বাংলার মানুষকে বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড় করিয়েছে সেটাই মূলত তুলে ধরা হয়েছে সিনেমায়। মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমার গতানুগতিক অবয়ব বদলে দিয়েছেন নির্মাতা রায়হান রাফী।

দামাল

‘দামাল’ তারকা সিয়াম আহমেদ ও শরিফুল রাজ (ছবি: ফেসবুক)

সিনেমায় ফুটবল দলের অধিনায়ক মুন্না চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ। ‘গুণিন’, ‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’র পর চলতি বছর এটি তার চতুর্থ সিনেমা। ‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’র মতো আবার দারুণ সাফল্য পাওয়ায় হ্যাটট্রিক করলেন তিনি। দর্শকদের ‘পরাণ’ ভরিয়ে ‘হাওয়া’য় ভেসে ‘দামাল’ হয়ে নৈপুণ্য দেখালেন এই তারকা।

দামাল

‘দামাল’ সিনেমার বিভিন্ন দৃশ্য (ছবি: ইমপ্রেস টেলিফিল্ম)

স্ট্রাইকার দুর্জয়ের ভূমিকায় আছেন সিয়াম আহমেদ। শরিফুল রাজ ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় সাফল্য পেয়েছেন ‘পরাণ’ সিনেমায়। আর সিয়াম বড় পর্দায় পথচলা শুরু করেন রায়হান রাফীর পরিচালনায় ‘পোড়ামন ২’ সিনেমার মাধ্যমে। এরপর ‘দহন’ সিনেমায় তারা একসঙ্গে কাজ করেন। তবে শরিফুল রাজ ও সিয়াম এবারই প্রথম একসঙ্গে অভিনয় করলেন।

‘পরাণ’-এর পর ‘দামাল’ সিনেমায় শরিফুল রাজ ও বিদ্যা সিনহা মিম আবার জুটি বেঁধেছেন। হাসনা চরিত্রে প্রেমিকা, গৃহবধূ, নির্যাতিতা ও একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মিমের অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে।

দামাল

‘দামাল’ তারকা (বাঁ থেকে) বিদ্যা সিনহা মিম, শরিফুল রাজ, সিয়াম আহমেদ ও সুমিত সেনগুপ্ত (ছবি: ফেসবুক)

এতে গোলরক্ষকের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সুমিত সেনগুপ্ত। এছাড়াও আছেন ইন্তেখাব দিনার, রাশেদ মামুন অপু, শাহনাজ সুমি, একে আজাদ সেতু, সাঈদ বাবু, নাসির উদ্দিন খান, আহসান হাবিব নাসিম, সামিয়া অথৈ, পূজা আনিয়েস ক্রুজ, সারওয়াত আজাদ বৃষ্টি, কায়েস চৌধুরী, সমু চৌধুরী, মিলি বাশার, নাজিবা বাশার, ফরহাদ লিমন, টাইগার রবি, আজম খান, দাউদ নূর, ইন্দ্রানী ঘাতক, বৈদ্যনাথ সাহা, কামরুজ্জামান তপু, শেখ মাহবুবুর রহমান, হামিদুর রহমান ও সৈয়দ নাজমুস সাকিব।

‘দামাল’ গল্পটি লিখেছেন ফরিদুর রেজা সাগর। নিজের প্রতিষ্ঠান ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেডের ব্যানারে তিনিই সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন। রায়হান রাফীর সঙ্গে মিলে চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন নাজিম উদ্দৌলা।

দামাল

‘দামাল’ সিনেমার দৃশ্যে বিদ্যা সিনহা মিম ও শরিফুল রাজ (ছবি: ইমপ্রেস টেলিফিল্ম)

সিনেমাটিতে রয়েছে ‘ঘুরঘুর পোকা’, ‘আমি দুর্জয়’ ও ‘মন পোষ মানে না’ শিরোনামের তিনটি গান। এগুলো গেয়েছেন মমতাজ বেগম, প্রীতম হাসান, দিলশাদ নাহার কণা ও ইমরান মাহমুদুল। এছাড়া প্রচারণার অংশ হিসেবে সাজানো ‘দামাল দামাল’ শিরোনামের একটি গান গেয়েছেন সাকিব চৌধুরী ও ঐশী। সবক’টি লিখেছেন রাসেল মাহমুদ, সুর ও সংগীত পরিচালনায় আরাফাত মহসিন নিধি।

ঢালিউড

মিশা-ডিপজল পরিষদের একচেটিয়া জয়, কে পেলেন কত ভোট

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

মনোয়ার হোসেন ডিপজল ও মিশা সওদাগর (ছবি: ফেসবুক)

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে (২০২৪-২৬) একচেটিয়া জয় পেয়েছে মিশা-ডিপজল পরিষদ। সভাপতি পদে মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। এছাড়া মোট প্রার্থীর তিন জন ছাড়া বাকি সবাই জিতেছেন এই প্যানেল থেকে।

আজ (২০ এপ্রিল) সকালে নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার খোরশেদ আলম খসরু। এবারের নির্বাচনে ৫৭০ ভোটারের মধ্যে ভোট পড়েছে ৪৭৫টি।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের (২০২৪-২৬) ফল

সভাপতি পদে মিশা সওদাগর ভোট পেয়েছেন ২৬৫টি। এ নিয়ে তৃতীয়বার সভাপতি নির্বাচিত হলেন তিনি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী মাহমুদ কলি ১৭০ ভোট পেয়ে হেরেছেন।

সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী অভিনেতা-প্রযোজক মনোয়ার হোসেন ডিপজল ২২৫ ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার ২০৯ ভোট এবং শ্রাবণ শাহ পেয়েছেন মাত্র ১ ভোট।

মিশা সওদাগর ও মনোয়ার হোসেন ডিপজল (ছবি: ফেসবুক)

মিশা-ডিপজল পরিষদের হয়ে নির্বাচিত হয়েছেন সহ-সভাপতি পদে মাসুম পারভেজ রুবেল (২৩১ ভোট) ও ডি এ তায়েব (২৩৪ ভোট), সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে আরমান (২৩৭ ভোট), সাংগঠনিক সম্পাদক পদে জয় চৌধুরী (২৫০ ভোট), আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে আলেকজান্ডার বো (২৮৬ ভোট), দফতর ও প্রচার সম্পাদক পদে জ্যাকি আলমগীর (২৪৫ ভোট) এবং কোষাধ্যক্ষ পদে কমল (২৩১)। এছাড়া সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক হিসেবে কলি-নিপুণ প্যানেলের মামনুন ইমন (২৩৫ ভোট) বিজয়ী হয়েছেন।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের (২০২৪-২৬) ফল

কার্যনির্বাহী সদস্য পদে মিশা-ডিপজল পরিষদ থেকে নির্বাচিত হয়েছেন রত্না কবির (২৬৩ ভোট), চুন্নু (২৪৮ ভোট), শাহনূর (২৪৫ ভোট), রোজিনা (২৪৩ ভোট), আলীরাজ (২৩৯ ভোট), সুচরিতা (২২৮ ভোট), সুব্রত (২১৬ ভোট), দিলারা ইয়াসমিন (২১৮ ভোট), নানা শাহ (২১০ ভোট)। এছাড়া কলি-নিপুণ পরিষদ থেকে পলি (২২০ ভোট) ও সনি রহমান (২৩০ ভোট) কার্যনির্বাহী সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

গতকাল (১৯ এপ্রিল) কড়া নিরাপত্তার মধ্যে এফডিসিতে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। আজ সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে ভোটগ্রহণ শেষ হয়।

পড়া চালিয়ে যান

ঢালিউড

‘প্রিয় মালতী’ হয়ে বড় পর্দায় আসছেন মেহজাবীন

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

(বাঁ থেকে) শঙ্খ দাশগুপ্ত, মেহজাবীন চৌধুরী, আদনান আল রাজীব ও রেদওয়ান রনি (ছবি: চরকি)

অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরীর জন্মদিন আজ (১৯ এপ্রিল)। জন্মদিনে নতুন সিনেমার ঘোষণায় হাজির তিনি। এর নাম ‘প্রিয় মালতী’। এটি পরিচালনা করছেন শঙ্খ দাশগুপ্ত। আদনান আল রাজীবের ফ্রেম পার সেকেন্ড এবং চরকির যৌথ প্রযোজনায় এই সিনেমা চলতি বছরেই মুক্তি পাবে বড় পর্দায়।

আজ (১৯ এপ্রিল) বিকেলে ঢাকার একটি পাঁচতারকা হোটেলে জমকালো আয়োজনে ‘প্রিয় মালতী’র ঘোষণা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে শুরুতে মঞ্চে আসেন তারকা দম্পতি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ও নুসরাত ইমরোজ তিশা। মেহজাবীনকে নিয়ে তারা মজার কিছু তথ্য দেন। তিশা বলেন, ‘মেহজাবীন তার প্রজন্মের সবচেয়ে বলিষ্ঠ অভিনেত্রী। সিনেমার জন্য সে নিজেকে দুর্দান্তভাবে প্রস্তুত করেছে।’

এরপর মঞ্চে আসেন আরেক তারকা দম্পতি আশফাক নিপুন ও এলিটা করিম। মেহজাবীনকে নিয়ে তারাও মজার কিছু তথ্য জানান। আশফাক নিপুন বলেন, ‘মেহজাবীন অভিনয়ে নিজেকে যেভাবে গড়েছেন সেটা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে।’

মেহজাবীন চৌধুরী (ছবি: চরকি)

ফ্রেম পার সেকেন্ড-এর প্রযোজক আদনান আল রাজীব বলেন, “প্রযোজনার কাজটা আমার জন্য একটু ভিন্ন। প্রথমত, পুরো বিশ্বে প্রযোজনা মানে শুধু টাকা বিনিয়োগ না। এটা আসলে সৃজনশীলতার সঙ্গে থাকা, টিজি কারা হবে, গল্পটা কেমন হবে, সিনেমা মুক্তি নিয়ে কাজ করা। এটা পুরো একটা প্রক্রিয়া। আমি এই প্রক্রিয়ার সঙ্গেই থাকতে চেয়েছি। আর দ্বিতীয়ত, ‘প্রিয় মালতী’র গল্প একদম ইউনিক। গল্পটা শঙ্খ (পরিচালক) যখন আমাদের সঙ্গে শেয়ার করে তখনই সবার ভালো লেগেছে। এমন গল্প আমরা কখনও দেখিনি। সেই সঙ্গে মেহজাবীন এই সিনেমায় যুক্ত হওয়ায় অন্য একটা মাত্রা যোগ হয়েছে।’

চরকির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি বলেন, ‘এই সিনেমার সঙ্গে থাকতে পারা আমার জন্য খুব আবেগের। প্রতিটি সিনেমাই স্পেশাল। কাছের মানুষ নিয়ে একটা সিনেমা নির্মাণের আনন্দ ভাষার প্রকাশ করার নয়। গুণী পরিচালক, গুণী অভিনেত্রীসহ দুর্দান্ত একটি টিম এই সিনেমায় যুক্ত হয়েছে। সিনেমাহলে দর্শকের কাছ পর্যন্ত পৌঁছানোটা এখন আমাদের অপেক্ষা।’

মেহজাবীন চৌধুরী (ছবি: চরকি)

পরিচালক শঙ্খ দাশগুপ্ত বলেন, “ফিল্মমেকিং আমার কাছে সবসময় কষ্টের কাজ মনে হয়। তবে ‘প্রিয় মালতী’ কাজটা আমার জন্য একেবারে সহজ করে দিয়েছে দুই প্রযোজক। আমি শুধু নির্মাণ ও গল্প নিয়েই ভেবেছি। সেই সঙ্গে যাদের কাস্ট হিসেবে চিন্তা করেছি তাদেরকে সাথে পেয়েছি। মেহজাবীনের মতো অভিনেত্রীতে ডিরেক্ট করতে পারাটাও আনন্দের। এই সিনেমার ক্যামেরার সামনে-পেছনে যারাই কাজ করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা।’

সিনেমার ঘোষণা দেওয়ার পাশাপাশি কেক কেটে মেহজাবীনের জন্মদিন উদযাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে আরো ছিলেন মোস্তফা মন্ওয়ার, জেফার রহমান, রাকা নওশীন নাওয়ারসহ অনেকে।

চরকিতে ‘রেডরাম’ সিনেমা দিয়ে ওটিটিতে যাত্রা শুরু করেন মেহজাবীন চৌধুরী। ‘প্রিয় মালতী’ নিয়ে তিনি বেশ রোমাঞ্চিত। তার কথায়, ‘জন্মদিনে সিনেমার ঘোষণা আমার জন্য খুব স্পেশাল। সিনেমাটিতে দর্শক ভিন্ন এক মেহজাবীনকে দেখতে পাবেন আশা করি। এমন একটি টিমের সঙ্গে কাজ করতে পেরে নিজেকে সত্যিই ভাগ্যবতী মনে হচ্ছে।’

মেহজাবীনের পাশাপাশি ‘প্রিয় মালতী’তে অভিনয় করেছেন নাদের চৌধুরী, শাহজাহান সম্রাট, রিজভী রিজুসহ অনেকে। গত বছরের সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ঢাকা-বরিশালসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে এর শুটিং হয়েছে।

পড়া চালিয়ে যান

ঢালিউড

২৬ এপ্রিল থেকে আমেরিকা মাতাবে ‘ওমর’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ ও নাসিরউদ্দিন খান (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘ওমর’ ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার সিনেমাহলে সগৌরবে চলছে। সব বয়সী দর্শকরা সিনেমাটির প্রশংসা করেছেন। প্রতিদিনই মাল্টিপ্লেক্সে এর প্রতিটি শো হাউসফুল যাচ্ছে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এবার আমেরিকা মাতাতে যাচ্ছে এটি।

আগামী ২৬ এপ্রিল নিউইয়র্কে মুক্তি পাবে ‘ওমর’। জ্যামাইকা মাল্টিপ্লেক্সে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে এই সিনেমা। এছাড়া সান ফ্রান্সিসকোর সিনে লাউঞ্জ ফ্রিমন্ট সেভেন, শিকাগোর সিনে লাউঞ্জ নাইলস এবং ডালাসের ফান এশিয়া রিচার্ডসনে ২৬ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত উপভোগ করা যাবে এটি।

আমেরিকার আরো অনেক শহর এবং কানাডায় ‘ওমর’ যাবে মে মাসে।

‘ওমর’ সিনেমায় নাসিরউদ্দিন খান (ছবি: মাস্টার কমিউনিকেশন্স)

অ্যাকশন কাট এন্টারেটেইনমেন্টের পরিবেশনায় ঈদের দিন থেকে ২১টি সিনেমা হলে চলছে ‘ওমর’। এরমধ্যে ঢাকার ব্লকবাস্টার সিনেমাসে ঈদের তৃতীয় দিনে শো বেড়েছে।

‘ওমর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

‘ওমর’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ, নাসিরউদ্দিন খান, শহীদুজ্জামান সেলিম, ফজলুর রহমান বাবু, এরফান মৃধা শিবলু, আবু হুরায়রা তানভীর, নাফিস আহমেদ, রোজি সিদ্দিকী, তানজিলা হক মাইশা, আইমন সিমলা। মাস্টার কমিউনিকেশন্সের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন খোরশেদ আলম। চিত্রনাট্য লিখেছেন সিদ্দিক আহমেদ। চিত্রগ্রহণ করেছেন রাজু রাজ। শিল্প নির্দেশনায় সামুরাই মারুফ।

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ (ছবি: মাস্টার কমিউনিকেশন্স)

সিনেমাটির গান গেয়েছেন দিলশাদ নাহার কনা, আরফিন রুমি, ‘নাসেক নাসেক’ তারকা অনিমেষ রায় ও ভারতের ঈশান মিত্র। গানের কথা লিখেছেন জনি হক, সোমেশ্বর অলি ও রাসেল মাহমুদ। সুর ও সংগীত পরিচালনায় নাভেদ পারভেজ এবং ভারতের স্যাভি। ‘ভাইরাল বেবি’ গানে নেচেছেন ভারতীয় নায়িকা দর্শনা বণিক।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ