Connect with us

ঢালিউড

বিমানবন্দরে হঠাৎ দেখা, শুভর সেলফিতে শাকিব

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

আরিফিন শুভ ও শাকিব খান (ছবি: ফেসবুক)


ঢালিউডের জনপ্রিয় দুই নায়ক শাকিব খান ও আরিফিন শুভ কেবল একটি সিনেমায় একসঙ্গে অভিনয় করেছেন। এটি হলো সাফিউদ্দিন সাফি পরিচালিত ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনি’ (২০১৩)। শাকিব ও শুভকে সচরাচর একসঙ্গে পাওয়া যায় না। কাকতালীয়ভাবে আজ (২৪ অক্টোবর) সকালে দুই নায়কের দেখা হয়ে গেলো এক ছাদের নিচে!

শাকিব নিজের নতুন সিনেমা ‘দরদ’-এর শুটিং করতে ভারতে যেতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন। অন্যদিকে বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ সিনেমার প্রচারে মুম্বাই যেতে বিমানবন্দরে হাজির আরিফিন শুভ। বহুদিন পর দেখা হতেই আড্ডায় মেতে ওঠেন তারা।

আরিফিন শুভ ও শাকিব খান (ছবি: ফেসবুক)

শাকিবের সঙ্গে সেলফি তুলেছেন শুভ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবিটি শেয়ার দিয়ে শাকিব লিখেছেন– “ভারতে ‘দরদ’ সিনেমার শুটিংয়ে যাচ্ছি। ঢাকা বিমানবন্দরে হঠাৎ আরিফিন শুভর সঙ্গে দেখা। তার গন্তব্য ‘মুজিব; একটি জাতির রূপকারদেখা সিনেমার ভারতে মুক্তি। লাউঞ্জ গল্পে উঠে এলো সিনেমাটি নিয়ে তার সংগ্রাম, ত্যাগ, পরিশ্রম ও অধ্যবসায়। শোনালো স্বপ্নের কথাও। ওর চোখে চকচক করছিল উচ্ছ্বাস।
আমি সত্যিই তোমাকে নিয়ে অনেক বেশি গর্বিত শুভ। অনেক শুভকামনা।”

আরিফিন শুভ ও শাকিব খান (ছবি: ফেসবুক)

শুভকে নিয়ে শাকিবের মন্তব্য ইতিবাচকভাবেই দেখছেন ভক্তরা। এবারই প্রথম নয়, কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ সিনেমার পোস্টার শেয়ার দিয়ে শাকিব লিখেছেন, “বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ নিয়ে নির্মিত ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ চলছে আপনার কাছের সিনেমাহলে। সবাইকে সিনেমাটি দেখার আমন্ত্রণ জানাই।”

‘প্রিয়তমা’র অভাবনীয় সাফল্যের পর ‘দরদ’ সিনেমা নিয়ে দর্শকদের সামনে আসবেন শাকিব। এতে তার বিপরীতে থাকছেন বলিউড অভিনেত্রী সোনাল চৌহান। এছাড়া থাকছেন কলকাতার পায়েল সরকার। আগামী ২৬ অক্টোবর ভারতের বারানসি শহরে শুরু হবে শুটিং। সিনেমাটি পরিচালনা করবেন অনন্য মামুন। বাংলাদেশ থেকে অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্ট ও কিবরিয়া ফিল্মসের সঙ্গে ভারতের এসকে মুভিজ ও ওয়ান ওয়ার্ল্ড মুভিজ প্রযোজনা করছে ‘দরদ’। এটি বাংলা ভাষার পাশাপাশি হিন্দি, তামিল, তেলুগু ও মালায়লাম ভাষায় মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

অন্যদিকে আগামী ২৭ অক্টোবর ভারতে মুক্তি পাচ্ছে বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক। এতে শ্যাম বেনেগালের পরিচালনায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ। তার সহশিল্পীরা হলেন নুসরাত ইমরোজ তিশা, নুসরাত ফারিয়া, প্রার্থনা দীঘি, সাবিলা নূর, তৌকীর আহমেদ, রাইসুল ইসলাম আসাদসহ অনেকে।

ঢালিউড

২৬ এপ্রিল থেকে আমেরিকা মাতাবে ‘ওমর’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ ও নাসিরউদ্দিন খান (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘ওমর’ ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার সিনেমাহলে সগৌরবে চলছে। সব বয়সী দর্শকরা সিনেমাটির প্রশংসা করেছেন। প্রতিদিনই মাল্টিপ্লেক্সে এর প্রতিটি শো হাউসফুল যাচ্ছে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এবার আমেরিকা মাতাতে যাচ্ছে এটি।

আগামী ২৬ এপ্রিল নিউইয়র্কে মুক্তি পাবে ‘ওমর’। জ্যামাইকা মাল্টিপ্লেক্সে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে এই সিনেমা। এছাড়া সান ফ্রান্সিসকোর সিনে লাউঞ্জ ফ্রিমন্ট সেভেন, শিকাগোর সিনে লাউঞ্জ নাইলস এবং ডালাসের ফান এশিয়া রিচার্ডসনে ২৬ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত উপভোগ করা যাবে এটি।

আমেরিকার আরো অনেক শহর এবং কানাডায় ‘ওমর’ যাবে মে মাসে।

‘ওমর’ সিনেমায় নাসিরউদ্দিন খান (ছবি: মাস্টার কমিউনিকেশন্স)

অ্যাকশন কাট এন্টারেটেইনমেন্টের পরিবেশনায় ঈদের দিন থেকে ২১টি সিনেমা হলে চলছে ‘ওমর’। এরমধ্যে ঢাকার ব্লকবাস্টার সিনেমাসে ঈদের তৃতীয় দিনে শো বেড়েছে।

‘ওমর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

‘ওমর’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ, নাসিরউদ্দিন খান, শহীদুজ্জামান সেলিম, ফজলুর রহমান বাবু, এরফান মৃধা শিবলু, আবু হুরায়রা তানভীর, নাফিস আহমেদ, রোজি সিদ্দিকী, তানজিলা হক মাইশা, আইমন সিমলা। মাস্টার কমিউনিকেশন্সের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন খোরশেদ আলম। চিত্রনাট্য লিখেছেন সিদ্দিক আহমেদ। চিত্রগ্রহণ করেছেন রাজু রাজ। শিল্প নির্দেশনায় সামুরাই মারুফ।

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ (ছবি: মাস্টার কমিউনিকেশন্স)

সিনেমাটির গান গেয়েছেন দিলশাদ নাহার কনা, আরফিন রুমি, ‘নাসেক নাসেক’ তারকা অনিমেষ রায় ও ভারতের ঈশান মিত্র। গানের কথা লিখেছেন জনি হক, সোমেশ্বর অলি ও রাসেল মাহমুদ। সুর ও সংগীত পরিচালনায় নাভেদ পারভেজ এবং ভারতের স্যাভি। ‘ভাইরাল বেবি’ গানে নেচেছেন ভারতীয় নায়িকা দর্শনা বণিক।

পড়া চালিয়ে যান

ঢালিউড

হাউসফুল ‘ওমর’, বাড়লো শো, দর্শক-তারকা সবার মুখে রাজের প্রশংসা

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘ওমর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘ওমর’ দেখে মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন সাধারণ দর্শক ও শোবিজ তারকারা। দর্শক চাহিদা থাকায় মুক্তির দুই দিন যেতেই শো-টাইম বাড়ানো হয়েছে। পরিবার-পরিজন ও বন্ধুবান্ধব নিয়ে সিনেমাহলে ভিড় করেছেন অনেকে। সিনেমাটির প্রতি সবার আগ্রহ দিন দিন বেড়ে চলেছে।

বেশিরভাগ দর্শক ‘ওমর’ সিনেমায় শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত থাকা টুইস্টের প্রশংসা করেছেন। তাদের মন্তব্য, পুরোটাই সাসপেন্স! এজন্য দর্শকেরা আটকে ছিলেন বড় পর্দায়। মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের নির্মাণশৈলী ও অভিনয়শিল্পীদের নৈপুণ্য বেশ প্রশংসিত হচ্ছে। ৫-এ ৪ রেটিং দিচ্ছেন সবাই। সাধারণ দর্শকদের কথায়, ‘গল্পটাই হিরো! এমন গল্প নিয়ে বাংলাদেশে খুব একটা সিনেমা হয়নি। ব্যতিক্রম ও অসাধারণ একটি গল্প। শ্বাসরুদ্ধকর উত্তেজনা, হাসি, থ্রিলার সবকিছুতে ভরপুর। এক সেকেন্ডের জন্য বিরক্তি আসেনি। এ ধরনের বাংলা সিনেমা কখনো দেখিনি। কেউ এই সিনেমা দেখলে বাসায় গিয়ে আরো পাঁচজনকে দেখতে বলবে।’

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ ও দর্শনা বণিক (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

ওমর চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ। তার প্রতি ভালো লাগা থেকে অনেক দর্শক সিনেমাটি দেখেছেন। তাদের বেশিরভাগই এই তারকার অভিনয় দক্ষতাকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন। পাশাপাশি নাসিরউদ্দিন খানের অভিনয়ের গুনগান গেয়েছেন ভক্তরা।

প্রয়াত নন্দিত কথাসাহিত্যিক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদ এবং চিত্রনায়ক মান্নাকে উৎসর্গ করা হয়েছে ‘ওমর’। এজন্য কৌতূহল থেকে সিনেমাটি দেখছেন অনেক দর্শক।

‘ওমর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা, “মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই তাকে আমরা কাছ থেকে দেখেছি। ‘ওমর’ দেখে বুঝলাম সে এখন অনেক পরিণত। তার উন্নতিতে আমার খুব ভালো লাগছে। সিনেমাটিতে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দর্শকদের যে সাসপেন্স দেওয়া দরকার, সবই এই গল্পে আছে। দর্শকদের সম্পৃক্ত করার আবেগ যতটা দরকার ততটুকুই আছে। প্রত্যেক অভিনয়শিল্পীর কাজ দারুণ লেগেছে। আমার মনে হয়েছে, একটি নৌকায় সব কলাকুশলী একসঙ্গে ট্রাভেল করছে। কেউই নৌকা থেকে পড়ে যায়নি। সবাই সমান্তরাল অভিনয় করেছেন। এটি একজন পরিচালকের কৃতিত্ব।”

অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা যেটা ভাবছি কিংবা অনুমান করছি, কিছুক্ষণ পরপর সেই বিষয়টা বদলে যাচ্ছে। পুরোপুরি রোমাঞ্চকর জার্নি বলা যায় গল্পটিকে। যেকোনো সম্পর্কই মানুষের জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এখানে বাবা, ছেলে, ভাইবোনের সম্পর্ক দেখানো হয়েছে। শেষটা এতো আবেগপ্রবণ যে, সবারই ভালো লাগার মতো।’

অভিনেত্রী সাবিলা নূর বলেন, “আগে থেকেই শরিফুল রাজের অভিনয় ভালো লাগে। ‘ওমর দেখার পর সেই ভালো লাগা আরো বেড়ে গেলো। প্রত্যেকেই দুর্দান্ত অভিনয় করেছেন। বিভিন্ন জনরার মিশ্রণ বলা যায় এই সিনেমাকে। শেষটা দেখলে সবাই আবেগপ্রবণ হয়ে যাবেন।”

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ ও নাসিরউদ্দিন খান (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ‘মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ যদি আমার বড় ভাই হতো তাহলে আজ তার পা ছুঁয়ে ধন্যবাদ জানাতাম। অবাক হয়ে গেলাম একজন পরিচালক পুরো একটি সিনেমায় নায়িকা ছাড়া শুধু গল্প, নির্মাণ ও অভিনয় দিয়ে টানটান উত্তেজনায় দর্শকদের বসিয়ে রাখলেন। এমন ঘটনা দেখিনি কখনোই। আমি শতভাগ নিশ্চিত কোনো দর্শক চোখের পলক ফেলতে পারেননি। চোখ ফেরাতেও পারেননি। এত সুন্দর সিনেমা! ‍মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ তার আগের সব সিনেমাকে ছাপিয়ে বানিয়েছেন ‘ওমর’। প্রত্যেক শিল্পী এককথায় অসাধারণ।’

ঢাকার ব্লকবাস্টার সিনেমাসে ‘ওমর’ ঈদের প্রথম দুই দিন তিনটি শো টাইম থাকলেও তৃতীয় দিনে বেড়ে হয়েছে চারটি শো। যমুনা ফিউচার পার্কে অবস্থিত এই মাল্টিপ্লেক্সে সিনেমাটি দেখা যাচ্ছে সকাল ১১টা ৩৫ মিনিট, দুপুর ১টা ৩৫ মিনিট, বিকেল ৪টা ৩০ মিনিট ও সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে।

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ (ছবি: মাস্টার কমিউনিকেশন্স)

আরেক অভিজাত মাল্টিপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্সে বিভিন্ন শাখায় প্রতিদিন ‘ওমর’ সিনেমার ১১টি প্রদর্শনী হচ্ছে। এগুলো হলো ঢাকার পান্থপথের বসুন্ধরা সিটি শপিং মল (সকাল ১১টা, দুপুর ১টা ৪৫ মিনিট, সন্ধ্যা ৭টা), ধানমন্ডির সীমান্ত সম্ভার (সকাল ১১টা ১৫ মিনিট, বিকেল ৪টা ৫০ মিনিট), মহাখালীর এসকেএস টাওয়ার (দুপুর ২টা ১০ মিনিট, সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিট), মিরপুর-১ নম্বরের সনি স্কয়ার (দুপুর ২টা, সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিট) এবং চট্টগ্রামের বালি আর্কেড শাখা (সকাল ১১টা ২০ মিনিট, বিকেল ৪টা ৫০ মিনিট)।

অ্যাকশন কাট এন্টারেটেইনমেন্টের পরিবেশনায় ঈদের দিন থেকে ২১টি সিনেমা হলে চলছে ‘ওমর’। বাকি ১৫টি পর্দা হলো– লায়ন সিনেমাস (কেরানীগঞ্জ), সিলভার স্ক্রিন, সিনেমা প্যালেস (চট্টগ্রাম), মিতালী (সরাইগাছি, রাজশাহী), চিত্রালী (খুলনা), রাজমণি (মুলাডুলি, পাবনা), রাধানাথ (রেলস্টেশন রোড, শ্রীমঙ্গল), তাজ (নওগাঁ), উল্কা (জয়দেবপুর, গাজীপুর), বিলাস (সাভার), মধুমিতা (ভৈরব), সোনিয়া (বগুড়া), সত্যবতী (শেরপুর), আনন্দ (কুলিয়ারচর), বিজিবি অডিটোরিয়াম (সিলেট)।

‘ওমর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

‘ওমর’ সিনেমায় শরিফুল রাজ ছাড়াও অভিনয় করেছেন নাসিরউদ্দিন খান, শহীদুজ্জামান সেলিম, ফজলুর রহমান বাবু, এরফান মৃধা শিবলু, আবু হুরায়রা তানভীর, নাফিস আহমেদ, রোজি সিদ্দিকী, তানজিলা হক মাইশা, আইমন সিমলা। মাস্টার কমিউনিকেশন্সের ব্যানারে এটি প্রযোজনা করেছেন খোরশেদ আলম। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন সিদ্দিক আহমেদ। চিত্রগ্রহণ করেছেন রাজু রাজ। শিল্প নির্দেশনায় সামুরাই মারুফ।

সিনেমাটির গান গেয়েছেন দিলশাদ নাহার কনা, আরফিন রুমি, ‘নাসেক নাসেক’ তারকা অনিমেষ রায় ও ভারতের ঈশান মিত্র। গানের কথা লিখেছেন জনি হক, সোমেশ্বর অলি ও রাসেল মাহমুদ। সুর ও সংগীত পরিচালনায় নাভেদ পারভেজ এবং ভারতের স্যাভি। আইটেম গান ‘ভাইরাল বেবি’তে নেচেছেন ভারতীয় নায়িকা দর্শনা বণিক।

পড়া চালিয়ে যান

ঢালিউড

ঈদে মুক্তি পেলো রেকর্ডসংখ্যক ১১ সিনেমা, কোনটি কতটি সিনেমাহলে

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

ঈদুল ফিতরে রেকর্ডসংখ্যক ১১টি নতুন সিনেমা মুক্তি পেলো। এগুলো হলো গিয়াসউদ্দিন সেলিমের ‘কাজলরেখা’, মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘ওমর’, হিমেল আশরাফের ‘রাজকুমার’, মিশুক মনি পরিচালিত ‘দেয়ালের দেশ’, কামরুজ্জামান রোমানের ‘মোনা: জ্বীন-২’ ও ‘লিপস্টিক’, কাজী হায়াতের ‘গ্রিন কার্ড’, ছটকু আহমেদের ‘আহারে জীবন’, ফুয়াদ চৌধুরীর ‘মেঘনা কন্যা’, জসিম উদ্দিন জাকিরের ‘মায়া: দ্য লাভ’ এবং জাহিদ হোসেনের ‘সোনার চর’। কোনটি কত সিনেমাহলে চলছে জেনে নিন।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সূত্রে জানা যায়, এবারের ঈদের সিনেমা প্রদর্শনের জন্য প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে দেশের নিয়মিত ৬০-৭০টি সিনেমাহল। এছাড়া ঈদ উৎসবে খুলেছে গত ঈদুল আজহার পর থেকে বন্ধ থাকা বেশ কিছু সিনেমাহল। পাশাপাশি স্টার সিনেপ্লেক্স, ব্লকবাস্টার সিনেমাস, লায়ন সিনেমাস, চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিন, সিরাজগঞ্জের রুটস সিনেক্লাবসহ মাল্টিপ্লেক্সে পর্দার সংখ্যা ৩৫। মাল্টিপ্লেক্সের মধ্যে সবচেয়ে বেশি শাখা স্টার সিনেপ্লেক্সের। এর সাতটি শাখায় ১৯টি পর্দা। সব মিলিয়ে প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা ২০০ ছুঁই ছুঁই। দর্শকদের স্বস্তির জন্য সব সিনেমাহল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। কিছু সিনেমাহলে রয়েছে আলোকসজ্জা। সিনেমাপাড়া থেকে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ঈদের সিনেমা নিয়ে জম্পেশ আলোচনা।

‘রাজকুমার’ সিনেমার পোস্টারে শাকিব খান (ছবি: ভার্সেটাইল মিডিয়া)

রাজকুমার (১২৭টি সিনেমাহল)
ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান অভিনীত হিমেল আশরাফের ‘রাজকুমার’ সিনেমাহলের সংখ্যায় অনেক এগিয়ে। ভার্সেটাইল মিডিয়ার প্রযোজনা ও পরিবেশনায় সব মাল্টিপ্লেক্সসহ দেশের ১২৭টি সিনেমাহলে দেখা যাচ্ছে এটি। এতে শাকিবের বিপরীতে বাংলাদেশের সিনেমায় নাম লিখিয়েছেন আমেরিকান তারকা কোর্টনি কফি। এছাড়া আছেন তারিক আনাম খান, এরফান মৃধা শিবলুসহ অনেকে। শাকিবের মায়ের চরিত্রে চমক মাহিয়া মাহি।

‘ওমর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

ওমর (২১টি সিনেমাহল)
মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘ওমর’ অ্যাকশন কাট এন্টারেটেইনমেন্টের পরিবেশনায় মাল্টিপ্লেক্সসহ মুক্তি পেয়েছে ২১টি সিনেমাহলে। এতে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ, নাসিরউদ্দিন খান, শহীদুজ্জামান সেলিম, ফজলুর রহমান বাবু, এরফান মৃধা শিবলু, আবু হুরায়রা তানভীর, নাফিস আহমেদ, রোজি সিদ্দিকী, তানজিলা হক মাইশা, আইমন সিমলা। মাস্টার কমিউনিকেশন্সের ব্যানারে এটি প্রযোজনা করেছেন খোরশেদ আলম। প্রয়াত কথাসাহিত্যিক-নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদ ও চিত্রনায়ক-প্রযোজক মান্নাকে উৎসর্গ করা হয়েছে ‘ওমর’। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন সিদ্দিক আহমেদ। চিত্রগ্রহণ করেছেন রাজু রাজ। শিল্প নির্দেশনায় সামুরাই মারুফ।

‘দেয়ালের দেশ’ সিনেমার পোস্টারে শরিফুল রাজ ও শবনম বুবলী (ছবি: মেট্রো সিনেমা ফিল্মওয়ার্কস)

দেয়ালের দেশ (১৩টি সিনেমাহল)
সরকারি অনুদান ও মেট্রো সিনেমা ফিল্মওয়ার্কস প্রযোজিত ‘দেয়ালের দেশ’ অভি কথাচিত্রের পরিবেশনায় মুক্তি পেয়েছে ১৩টি সিনেমাহলে। এতে প্রথমবার জুটি বেঁধেছেন শরিফুল রাজ ও শবনম বুবলী। এর কাহিনি, সংলাপ, চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় মিশুক মনি। এতে আরো অভিনয় করেছেন জিনাত শানু স্বাগতা, শাহাদাৎ হোসেন, আজিজুল হাকিম, সমাপ্তি মাসুক, সাবেরি আলম, এ কে আজাদ সেতু। আবহ সংগীতে ইমন চৌধুরী।

‘কাজলরেখা’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: বাঙাল ফিল্মস)

কাজলরেখা (১০টি সিনেমাহল)
গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত গীত নির্ভর সিনেমা ‘কাজলরেখা’ জাজ মাল্টিমিডিয়ার পরিবেশনায় মুক্তি পেয়েছে ঢাকার মাল্টিপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্স, ব্লকবাস্টার সিনেমাস, সিনেস্কোপ, লায়ন সিনেমাস ও চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিনে। সরকারি অনুদানে বাঙাল ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন মন্দিরা চক্রবর্তী, সাদিয়া আয়মান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা, শরিফুল রাজ, খাইরুল বাসার, আজাদ আবুল কালাম, ইরেশ যাকের, সাহানা রহমান সুমি, গাউসুল আলম শাওন ও ইরফান সেলিম সুজয়।

‘মায়া: দ্য লাভ’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ব্রাদার্স প্রোডাকশন হাউস)

মায়া: দ্য লাভ (৯টি সিনেমাহল)
জসিম উদ্দিন জাকিরের কাহিনি, সংলাপ, চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় ‘মায়া: দ্য লাভ’ মুক্তি পেয়েছে ৯টি সিনেমাহলে। এতে চিত্রনায়িকা শবনম বুবলীর বিপরীতে অভিনয় করেছেন সাইমন সাদিক, জিয়াউল রোশান ও আনিসুর রহমান মিলন। আলীনুর আশিক ভূঁইয়া প্রযোজিত সিনেমাটির পরিবেশনায় কাজ করছে ব্রাদার্স প্রোডাকশন হাউস।

‘লিপস্টিক’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ক্লিওপেট্রা ফিল্মস)

লিপস্টিক (৭টি সিনেমাহল)
কামরুজ্জামান রোমান পরিচালিত আরেক সিনেমা ‘লিপস্টিক’ অভি কথাচিত্রের পরিবেশনায় মুক্তি পেয়েছে ৭টি সিনেমাহলে। এতে জুটি বেঁধেছেন আদর আজাদ ও পূজা চেরি। এছাড়া আছেন শহীদুজ্জামান সেলিম, মিশা সওদাগর, ফারজানা ছবি, মনিরা মিঠু, নাদের চৌধুরী, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, এরফান মৃধা শিবলু, চিকন আলি, তনুশ্রী তন্বী, পারভেজ সুমন, এল কে সীমান্ত। এর কাহিনি ও সংলাপ লিখেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু। প্রযোজনায় ক্লিওপেট্রা ফিল্মস।

‘মোনা: জ্বীন-২’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: জাজ মাল্টিমিডিয়া)

মোনা: জ্বীন-২ (৬টি সিনেমাহল)
জাজ মাল্টিমিডিয়ার প্রযোজনা ও পরিবেশনায় ‘মোনা: জ্বীন-২’ মুক্তি পেয়েছে তিনটি মাল্টিপ্লেক্সে। এগুলো হলো স্টার সিনেপ্লেক্স, ব্লকবাস্টার সিনেমাস ও লায়ন সিনেমাস। কামরুজ্জামান রোমানের পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, দীপা খন্দকার, কাজী নওশাবা আহমেদ, আরিয়ানা জামান, সামিনা বাশার, সাজ্জাদ হোসেন, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, রেবেকা, শেহজাদ ওমর, শামীম, সাদিয়া মিম ও সুপ্রভাত। অতিথি চরিত্রে আছেন প্রয়াত অভিনেতা আহমেদ রুবেল। তাকেই সিনেমাটি উৎসর্গ করা হয়েছে।

‘মেঘনা কন্যা’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: আনোয়ার আজাদ ফিল্মস)

মেঘনা কন্যা (৫টি সিনেমাহল)
ফুয়াদ চৌধুরীর পরিচালনা ও অভি কথাচিত্রের পরিবেশনায় ৫টি মাল্টিপ্লেক্সে মুক্তি পেয়েছে। এতে অভিনয় করেছেন কাজী নওশাবা আহমেদ, সেমন্তী সৌমি, ফজলুর রহমান বাবু, শতাব্দী ওয়াদুদ, মোহাম্মদ বারী, জয়শ্রী কর জয়া, সানজিদা মিলা, সাইকা আহমেদ, সাজ্জাদ হোসাইন, আমিরুল ইসলাম, শেখ স্বপ্না, উপমা। সরকারি অনুদানে এটি প্রযোজনা করেছে আনোয়ার আজাদ ফিল্মস ও এস জে মোশনস পিকচার্স।

‘গ্রিন কার্ড’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: কাজী হায়াৎ ফিল্মস)

গ্রিন কার্ড (৩টি সিনেমাহল)
কাজী হায়াৎ ও রওশন আরা নীপা পরিচালিত ‘গ্রিন কার্ড’ জাজ মাল্টিমিডিয়ার পরিবেশনায় মুক্তি পেয়েছে ৩টি সিনেমাহলে। এর পুরো শুটিং হয়েছে আমেরিকায়। এতে অভিনয় করেছেন কাজী মারুফ।

‘আহারে জীবন’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: ঠিকানা চলচ্চিত্র)

আহারে জীবন (১টি সিনেমাহল)
চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা জুটির ‘আহারে জীবন’ ঠিকানা চলচ্চিত্রের প্রযোজনা ও কিবরিয়া ফিল্মসের পরিবেশনায় মুক্তি পেয়েছে শুধু মাল্টিপ্লেক্সে। এর কাহিনি, চিত্রনাট্য, সংলাপ ও পরিচালনায় ছটকু আহমেদ। সরকারি অনুদানে নির্মিত সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেছেন সুচরিতা, মিশা সওদাগর, কাজী হায়াৎ, তুষার খান, জয় চৌধুরী, মৌমিতা মৌ, মারুফ আকিব, অহনা, শাহনূর, আনোয়ার সিরাজী, রেবেকা, শিমু খান, আরিয়ান আরিশ।

‘সোনার চর’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: এক্সেল ফিল্মস)

সোনার চর
এক্সেল ফিল্মসের প্রযোজনা ও অভি কথাচিত্রের পরিবেশনায় মুক্তি পেয়েছে ‘সোনার চর’। জাহাঙ্গীর সিকদার প্রযোজিত ও জাহিদ হোসেন পরিচালিত সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন মৌসুমী, জায়েদ খান, ওমর সানি, স্নিগ্ধা, শহীদুজ্জামান সেলিম।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ