Connect with us

টালিউড

মৃণাল সেনকে নিয়ে সৃজিতের সিনেমা, চঞ্চলের নায়িকা মনামী

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

চঞ্চল চৌধুরী (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

ভারতের পরিচালক সৃজিত মুখার্জির পরিচালনায় প্রথমবার কলকাতার সিনেমায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। এর নাম রাখা হয়েছে ‘পদাতিক’। এতে ভারতের বাংলা সিনেমার কিংবদন্তি পরিচালক মৃণাল সেনের ভূমিকায় দেখা যাবে তাকে।

‘পদাতিক’ সিনেমায় চঞ্চলের সঙ্গে জুটি বাঁধবেন কলকাতার অভিনেত্রী মনামী ঘোষ। মৃণাল সেনের স্ত্রী গীতা সেনের ভূমিকায় অভিনয় করবেন তিনি। দুই দশকের ক্যারিয়ারে কলকাতার টেলিভিশন অঙ্গন ও সিনেমা পাড়ায় তাকে জনপ্রিয় কিছু কাজে দেখা গেছে।

মনামী ঘোষ (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

মনামী ঘোষ অভিনীত সিনেমার তালিকায় উল্লেখযোগ্য ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’ (২০১২), ‘বেলা শেষে’ (২০১৫), ‘বেলা শুরু’ (২০২২)। ছোট পর্দায় স্টার জলসার ‘ইরাবতির চুপকথা’ এবং ইটিভি বাংলার ‘বিন্নি ধানের খই’ সিরিয়ালে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা পান তিনি।

মনামী ঘোষ (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

স্টার জলসার রিয়েলিটি শো ড্যান্স ড্যান্স জুনিয়র-এর দ্বিতীয় ও তৃতীয় মৌসুমে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মনামী ঘোষ।

মনামী ঘোষ (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সৃজিত মুখার্জি গত বছরের ১৪ মে মৃণাল সেনের জীবনে অনুপ্রাণিত একটি ওয়েব সিরিজ নির্মাণের ঘোষণা দেন। পরে তিনি এটি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেন।

গত ৩০ ডিসেম্বর ‘পদাতিক’ সিনেমার একটি পোস্টার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন সৃজিত মুখার্জি। এতে দেখা গেছে, একটি বড় রাস্তায় পাজামা-পাঞ্জাবি পরে হেলে আছেন মৃণাল সেন। তার নিচে লেখা ‘পদাতিক’। এতে উল্লেখ রয়েছে চঞ্চল চৌধুরীর নাম।

‘পদাতিক’ সিনেমার প্রচারণামূলক পোস্টার (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

বাংলা সিনেমার ইতিহাসে সর্বকালের সেরা পরিচালক ভাবা হয় সত্যজিৎ রায়, মৃণাল সেন ও ঋত্বিক ঘটককে। তাদের মধ্যে ঋত্বিক ঘটককে নিয়ে কাজ হয়েছে বহু বছর আগে। সম্প্রতি সত্যজিৎ রায়ের ‘পথের পাঁচালি’ নির্মাণের গল্প নিয়ে সাজানো হয় ‘অপরাজিত’। এবার মৃণাল সেনের জীবন আসতে চলেছে বড় পর্দায়।

ফ্রেন্ডস কমিউনিকেশন এবং বিগ স্ক্রিন প্রোডাকশনের ব্যানারে তৈরি হবে ‘পদাতিক’। ফ্রেন্ডস কমিউনিকেশনের প্রযোজনায় এর আগে তৈরি হয়েছে অনীক দত্ত পরিচালিত ‘অপরাজিত’।

চঞ্চল চৌধুরী (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচই-এর ‘কারাগার’ ওয়েব সিরিজের সুবাদে ওপার বাংলায় বেশ জনপ্রিয় চঞ্চল চৌধুরী। সম্প্রতি ২৮তম কলকাতা আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের উদ্বোধনী আয়োজনে অমিতাভ বচ্চন ও শাহরুখ খানের সঙ্গে একমঞ্চে দেখা যায় তাকে।

গত বছরের আগস্টে ওয়েব সিরিজ ‘কারাগার পার্ট-১’ দেখে চঞ্চল চৌধুরীর ভূয়সী প্রশংসা করেন সৃজিত মুখার্জি। কোনো বাক্য উচ্চারণ না করেও সাত পর্বের পুরো সিরিজ জুড়ে অনবদ্য অভিনয় দক্ষতা দেখিয়েছেন তিনি। যেন কিছু না বলেই কতো কথা বলে দিলেন! সোশ্যাল মিডিয়ায় সৃজিত লিখেছেন, ‘অভিনয় শেখার প্রতিষ্ঠানে চঞ্চল চৌধুরীর চোখ সংরক্ষণ করলে আগামী প্রজন্ম শিখতে পারবে।’

চঞ্চল চৌধুরী (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সৃজিতের ফেসবুক স্ট্যাটাসে তখন অনেক ভক্ত-দর্শক চঞ্চল চৌধুরীকে নিয়ে ভালো গল্পের সিনেমা কিংবা ওয়েব সিরিজ বানাতে আহ্বান জানান। দুই বাংলার এই দুই প্রতিভার রসায়ন দেখতে উন্মুখ ছিলেন সবাই। তাদের সেই প্রতীক্ষার অবসান হতে চলেছে।

কয়েকদিন আগে বাবাকে হারিয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী। আশা করা হচ্ছে, শিগগিরই সেই শোক কাটিয়ে উঠে কলকাতায় শুটিংয়ের জন্য যাবেন তিনি।

টালিউড

মৃণাল সেনের ভূমিকায় নতুন পোস্টারে চঞ্চল, ‘পদাতিক’ মুক্তির তারিখ ঘোষণা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘পদাতিক’ সিনেমার পোস্টারে চঞ্চল চৌধুরী ও কোরাক সামন্ত (ছবি: ফ্রেন্ডস কমিউনিকেশন)

ভারতের খ্যাতিমান চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেনের বায়োপিক ‘পদাতিক’ মুক্তি পেতে যাচ্ছে আগামী ১৫ আগস্ট। এতে প্রয়াত নির্মাতার চরিত্রে বড় পর্দায় আসছেন বাংলাদেশের অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। সিনেমাটির নতুন পোস্টার শেয়ার করে মুক্তির তারিখ জানিয়েছেন তিনি। ভারতের স্বাধীনতা দিবসে তাকে মৃণাল সেনের ভূমিকায় দেখা যাবে।

নতুন পোস্টারে চঞ্চলকে মধ্যবয়সী ও পূর্ণবয়স্ক মৃণাল সেনের অবয়বে দেখা গেছে। এর সঙ্গে তরুণ মৃণাল সেনের ভূমিকায় আরেকজনের স্থিরচিত্র স্থান পেয়েছে।

ফেসবুকে চঞ্চল লিখেছেন, “অনেক অপেক্ষার পর আসছে ‘পদাতিক’।” এর সঙ্গে টিজারের লিংক পোস্ট করেছেন তিনি।

গত ১৪ মে প্রকাশিত হয় ‘পদাতিক’-এর ১ মিনিটি ৩৭ সেকেন্ডের টিজার। এতে মৃণাল সেনের ভূমিকায় চঞ্চল চৌধুরীকে দেখে চমকে গেছেন দর্শকেরা। সিনেমায় মৃণাল সেনের শৈশব থেকে শুরু করে ফিল্মমেকিংয়ে আসার ঘটনা ও ব্যক্তিজীবনের অজানা গল্প পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

চঞ্চল চৌধুরী ও সৃজিত মুখার্জি (ছবি: ফেসবুক)

‘পদাতিক’ পশ্চিমবঙ্গে চঞ্চল চৌধুরীর প্রথম সিনেমা। এটি পরিচালনা ও সম্পাদনা করেছেন সৃজিত মুখার্জি। ‘পদাতিক’ নামটি মৃণাল সেনের একটি সিনেমার নাম থেকে নেওয়া। কলকাতা শহরকে নিয়ে ট্রিলজি নির্মাণ করেন তিনি। এগুলো হলো ‘ইন্টারভিউ’ (১৯৭১), ‘কলকাতা ৭১’ (১৯৭১) এবং ‘পদাতিক’ (১৯৭৩)।

২০২৩ সালের ১৪ মে ছিলো মৃণাল সেনের জন্মশতবার্ষিকী। এ উপলক্ষে তার জীবন, কর্ম ও সময়ের গল্প নিয়ে তৈরি হয়েছে ‘পদাতিক’। কলকাতা ও মুম্বাই ছাড়াও ভারতের বাইরে কিছু দৃশ্যের চিত্রায়ন হয়েছে। ফ্রেন্ডস কমিউনিকেশন এবং বিগ স্ক্রিন প্রোডাকশন্স হাউসের ব্যানারে এটি প্রযোজনা করেছেন ফিরদাউসুল হাসান ও প্রবাল হালদার। সহ-প্রযোজনায় শুভজিৎ মণ্ডল।

চঞ্চল চৌধুরী ও মনামী ঘোষ (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

সিনেমাটিতে মৃণাল সেনের স্ত্রী গীতা সেনের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কলকাতার অভিনেত্রী মনামী ঘোষ। এছাড়া অন্যান্য চরিত্রে আছেন কোরাক সামন্ত, সম্রাট চক্রবর্তীসহ অনেকে। কিছুদিন আগে নিউইয়র্ক ইন্ডিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা চিত্রনাট্যের পুরস্কার পেয়েছে ‘পদাতিক’।

গত ৮ জুন ‘পদাতিক’-এর প্রথম গান অবমুক্ত হয়েছে। এর শিরোনাম ‘তু জিন্দা হ্যায়’। এটি গেয়েছেন ভারতের জনপ্রিয় দুই কণ্ঠশিল্পী সনু নিগাম ও অরিজিৎ সিং। এবারই প্রথম কোনো গানে এই দুই জনের গায়কী শোনা গেলো। ভারতীয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জি মিউজিক ‘তু জিন্দা হ্যায়’ গানটি মুক্তি দিয়েছে। এর কথা লিখেছেন শৈলেন্দ্র, সুর করেছেন সলিল চৌধুরী। প্রয়াত এই দুই জনের সৃষ্টির সঙ্গে সনু নিগাম ও অরিজিৎ সিংয়ের কণ্ঠের সম্মিলনে ইতিহাস সৃষ্টিকারী একটি গান হয়েছে বলে ইউটিউবে মন্তব্য করেছেন অনেকে।

পোস্টারে দেওয়া তথ্যানুযায়ী, সিনেমায় রবীন্দ্রসংগীত থাকছে। এছাড়া কবীর সুমন গান বেঁধেছেন। আবহ সংগীত করেছেন ইন্দ্রদীপ দাসগুপ্ত।

পড়া চালিয়ে যান

টালিউড

জন্মদিনে জয়ার ভাবনা, ‘চাঁদের কলঙ্ক কি পরিষ্কার হয়?’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

জয়া আহসান (ছবি: ফেসবুক)

দুই বাংলার নন্দিত অভিনেত্রী জয়া আহসানের জন্মদিন আজ (১ জুলাই)। সহকর্মী ও ভক্তদের শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছেন তিনি। জন্মদিন উপলক্ষে প্রকাশিত হয়েছে তার অভিনীত ‘ওসিডি’ সিনেমার ১৬ সেকেন্ডের ফার্স্টলুক টিজার। এতে মানসিক ভারসাম্যহীন চিকিৎসকের ভূমিকায় দেখা যাবে তাকে।

‘ওসিডি’র পূর্ণাঙ্গ রূপ অবসেসিভ কমপালসিভ ডিজঅর্ডার। এটি একধরনের মনোরোগ। পশ্চিমবঙ্গের সিনেমাটির টিজার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে ক্যাপশনে জয়া লিখেছেন, “চাঁদের কলঙ্ক কি পরিষ্কার হয়? জীবনের কলঙ্ক? সমাজের কলঙ্ক? উত্তর নিয়ে আসছে ‘ওসিডি’। এবার প্রাণপণে সরাবে জঞ্জাল!”

একঝলকে দেখা গেছে, আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে হ্যান্ডগ্লাভস পরে কিছু একটা পরিষ্কার করছেন জয়া। এতে তার চরিত্রের নাম শ্বেতা। সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্র এটাই। এছাড়া অভিনয় করেছেন কৌশিক সেন, কণীনিকা ব্যানার্জি, শ্রেয়া ভট্টাচার্য, অনসূয়া মজুমদার, বাংলাদেশের অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবুসহ অনেকে।

জয়া আহসান (ছবি: ফেসবুক)

জয়াকে ভেবেই ‘ওসিডি’র গল্প লিখেছেন পরিচালক সৌকর্য ঘোষাল। করোনাকালে লকডাউনে সাইকোলজিক্যাল ড্রামা ঘরানার গল্পটি মাথায় আসে তার। দুই বছর আগেই সিনেমাটির শুটিং শেষ হয়। তবে এখনও মুক্তির দিনক্ষণ জানানো হয়নি। ২০২২ সালে ২৮তম কলকাতা আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ভারতীয় ভাষার সিনেমা শাখায় প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হয় ‘ওসিডি’।

জয়া আহসান (ছবি: ফেসবুক)

সৌকর্য ঘোষালের পরিচালনায় এর আগে ‘ভূতপরী’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন জয়া আহসান। গত বছর পশ্চিমবঙ্গের সিনেমাহলে মুক্তির পর এটি দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে।

পড়া চালিয়ে যান

টালিউড

‘আজব কারখানা’র জন্য ঢাকায় জন্মদিনের কেক কাটলেন পরমব্রত

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘আজব কারখানা’র সংবাদ সম্মেলনে (বাঁ থেকে) লাবিক কুমার গৌরব, সামিয়া জামান, দিলরুবা দোয়েল, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, শাবনাজ সাদিয়া ইমি, শবনম ফেরদৌসী ও খালিদ হাসান রুমি (ছবি: সিনেমাওয়ালা)

ভারতীয় অভিনেতা ও পরিচালক পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের জন্মদিন আজ (২৭ জুন)। কলকাতায় নয়, এবার ঢাকায় কেক কেটেছেন তিনি। সন্ধ্যায় ঢাকা ক্লাবে নিজের অভিনীত নতুন সিনেমা ‘আজব কারখানা’র সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন ৪৩ বছর বয়সী এই তারকা।

‘আজব কারখানা’য় রকতারকা রাজীব চরিত্রে অভিনয় করেছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। গল্পটি তাকে কেন্দ্র করেই। গ্রামবাংলার বাউল শিল্পীদের সংস্পর্শে এসে নিজের জীবনের নতুন অর্থ খুঁজতে শুরু করে সে। গল্পে আবহমান বাংলার বিভিন্ন গানের ধারা, ঘরানা ও মর্মবাণী তুলে ধরা হয়েছে।

আগামী ১২ জুলাই মুক্তি পাবে শবনম ফেরদৌসী পরিচালিত প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা ‘আজব কারখানা’। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে তৈরি হয়েছে এটি। প্রায় ৪০টিরও বেশি প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করেছেন তিনি। এরমধ্যে ‘জন্মসাথী’ ২০১৬ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছে।

‘আজব কারখানা’র মাধ্যমে র‌্যাম্প মডেল শাবনাজ সাদিয়া ইমির অভিষেক হচ্ছে বড় পর্দায়। এতে আরো অভিনয় করেছেন দিলরুবা দোয়েল, খালিদ হাসান রুমি, সেলিম বয়াতি, দিলু বয়াতি, কিতাব আলী, ক্রিস্টিয়ানো তন্ময়, মুনতাকা অর্পণ, মায়মুনা মম ও মাহরিন মান্যসহ অনেকে। সৈয়দা নিগার বানুর রচনায় সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন প্রযোজক-পরিচালক সামিয়া জামান।

‘আজব কারখানা’য় পাঁচটি মৌলিক গান রয়েছে। এরমধ্যে কবি হেলাল হাফিজের ৪টি কবিতাকে গানে রূপ দেওয়া হয়েছে। তিনটি গানের সংগীতায়োজন করেছে ভাইকিংস ব্যান্ড, আরেকটির সুর-সংগীত লাবিক কামাল গৌরবের। অন্যটি সাজিয়েছে সেভেন মিনিটস ব্যান্ড। আবহ সংগীত পরিচালনা করেছেন লাবিক কামাল গৌরব।

বিশ্বের ১৫টি আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে অংশ নিয়েছে ‘আজব কারখানা’। দুটি পুরস্কারও জিতেছে। ২০২২ সালে ২৭তম কলকাতা আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ‘এশিয়ান সিলেক্ট: নেটপ্যাক অ্যাওয়ার্ড’ শাখায় প্রদর্শিত হয় এটি। এর আগে একই বছরের জানুয়ারিতে ২০তম ঢাকা আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের বাংলাদেশ প্যানোরমা শাখায় দেখানো হয়েছে সিনেমাটি। এছাড়া ২০২৩ সালের অক্টোবরে ফ্রান্সের প্যারিসে ‘গঙ্গা থেকে সিন’ ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শিত হয় ‘আজব কারখানা’।

পড়া চালিয়ে যান
Advertisement

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ