Connect with us

ওয়ার্ল্ড সিনেমা

যেসব রেকর্ড ভেঙেছে ‘আরআরআর’

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য
‘আরআরআর’ ছবিতে জুনিয়র এনটিআর ও রামচরণ

ভারতের বক্স অফিসে গর্জন অব্যাহত রেখেছে এসএস রাজামৌলির ‘আরআরআর’। প্রতিদিনই হুঙ্কার ছেড়ে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে সিনেমাটি। একইসঙ্গে বক্স অফিসে একের পর এক রেকর্ড ভেঙে যাচ্ছে। বিশ্বব্যাপী অভাবনীয় দর্শক সাড়া পাওয়ায় হাজার কোটি রুপি আয়ের মাইলফলকের সামনে ‘আরআরআর’।

দক্ষিণী তারকা রামচরণ ও জুনিয়র এনটিআর ছাড়াও ৫৫০ কোটি রুপি বাজেটে নির্মিত সিনেমাটিতে অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন বলিউড তারকা অজয় দেবগণ ও আলিয়া ভাট।

ভারতের প্রথম সিনেমা হিসেবে বিশ্বব্যাপী ১০ হাজারের বেশি প্রেক্ষাগৃহে গত ২৫ মার্চ মুক্তি পায় ‘আরআরআর’। এমন আরও কিছু নতুন রেকর্ড লিখেছে সিনেমাটি। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য

‘আরআরআর’ ছবিতে জুনিয়র এনটিআর, আলিয়া ভাট ও রামচরণ

১. মুক্তির প্রথম দিনে ভারতের প্রথম সিনেমা হিসেবে বিশ্বব্যাপী ২৩৫ কোটি রুপি আয় করেছে ‘আরআরআর’। এর আগে এসএস রাজামৌলির ‘বাহুবলী: দ্য কনক্লুশন’ পয়লা দিনে ২১৭ কোটি রুপি ঘরে তুলেছিল।

২. ‘আরআরআর’ সিনেমার শুধু হিন্দি সংস্করণের আয় ২০০ কোটি রুপি ছাড়িয়ে গেছে (২০৮ কোটি ৫৯ লাখ রুপি)। মুক্তির তৃতীয় দিনে ৫০ কোটি রুপি, পঞ্চম দিনে ১০০ কোটি রুপি, নবম দিনে ১৫০ কোটি রুপি এবং ১৩তম দিনে ২০০ কোটি রুপি আয়ের ঘর অতিক্রম করেছে এটি। অভিজাত এই ক্লাবে ‘আরআরআর’ হলো দ্বিতীয় দক্ষিণী সিনেমা। সব মিলিয়ে বলিউডের ২০০ কোটির ক্লাবে আছে ২৪টি সিনেমা।

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য

‘আরআরআর’ ছবিতে জুনিয়র এনটিআর ও রামচরণ

৩. মুক্তির ১২তম দিনে হায়দরাবাদের নিজাম এলাকায় ১০১ কোটি ৩৬ লাখ রুপি আয় করে ইতিহাস গড়েছে ‘আরআরআর’। ভারতের কোনও একটি অঞ্চল কিংবা রাজ্যে দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করা প্রথম সিনেমা এটি।

৪. মুক্তির ১৪তম দিনে এসে বিশ্বব্যাপী সিনেমাটির মোট আয় দাঁড়িয়েছে ৯৬৯ কোটি রুপি।

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য

‘আরআরআর’ ছবিতে জুনিয়র এনটিআর ও রামচরণ

৫. ভারতের সর্বকালের সবচেয়ে ব্যবসাসফল সিনেমার তালিকায় গত ৪ এপ্রিল পঞ্চম স্থান দখল করেছে ‘আরআরআর’। ওইদিনই হায়দরাবাদে বিশাল পার্টি দিয়ে স্মরণীয় সাফল্য উদযাপন করেছে ‘আরআরআর’ টিম।

৬. প্রথম প্যান-ইন্ডিয়া (তেলুগু) সিনেমা হিসেবে মুক্তির প্রথম দিনে ১৬৫ কোটি ৫০ লাখ রুপি আয় করেছে ‘আরআরআর’। এরমধ্যে অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানা থেকেই এসেছে ১১০ কোটি রুপি। এ দুটি অঞ্চলে একদিনে সর্বোচ্চ আয়ের রেকর্ড এটাই।

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য

‘আরআরআর’ ছবিতে রামচরণ ও জুনিয়র এনটিআর

৭. ‘বাহুবলী: দ্য কনক্লুশন’কে টপকে অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানা বক্স অফিসে সর্বকালের সবচেয়ে ব্যবসাসফল এখন ‘আরআরআর’। এটি মাত্র ১০ দিনে ৩১১ কোটি রুপি আয় করেছে। ‘বাহুবলী: দ্য কনক্লুশন’ ৪৫ দিনে আয় করেছিল ৩০৭ কোটি রুপি। অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানায় মুক্তির ১২ দিনে ৩৭১ কোটি রুপি আয় করেছে ‘আরআরআর’।

৮. শুধু ভারতের তেলুগু রাজ্যগুলো থেকে ৪০০ কোটি রুপি আয় করেছে ‘আরআরআর’।

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য

‘আরআরআর’ ছবিতে রামচরণ ও জুনিয়র এনটিআর

৯. শুধু ভারতেই ৭৫৬ কোটি রুপি আয় করেছে ‘আরআরআর’। ২০২২ সালে ভারতের সবচেয়ে বেশি আয় করা সিনেমার তালিকায় ৯ নম্বরে আছে ‘আরআরআর’।

১০. করোনা মহামারির পর দ্বিতীয় হিন্দি ছবি হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরি করলো ‘আরআরআর’। এর আগে ‘দি কাশ্মির ফাইলস’ ২৪৫ কোটি রুপির ব্যবসা করেছে।

‘আরআরআর’ ছবির দৃশ্য

‘আরআরআর’ ছবিতে জুনিয়র এনটিআর ও রামচরণ

১১. ‘আরআরআর’সহ ভারতের মাত্র ১৩টি সিনেমা মুক্তির প্রথম সপ্তাহে ২০০ কোটি রুপি ছাড়ানো ব্যবসা করেছে। ১৪তম দিনে এসে শুধু ভারতে সিনেমাটির আয় ৭৫৬ কোটি রুপি।

১২. ‘আরআরআর’ সিনেমার হিন্দি সংস্করণের সুবাদে ২০০ কোটি রুপি ছাড়ানো দুটি করে সিনেমার পরিচালকদের তালিকায় যুক্ত হলো এসএস রাজামৌলির নাম। বলিউড নির্মাতাদের মধ্যে রোহিত শেঠি, আলি আব্বাস জাফর এবং রাজকুমার হিরানির তিনটি করে সিনেমা আছে এই ক্লাবে।

ওয়ার্ল্ড সিনেমা

মস্কো উৎসবে স্পেশাল জুরি প্রাইজ পেলো বাংলাদেশের ‘নির্বাণ’

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

পুরস্কার হাতে আসিফ ইসলাম (ছবি: ফেসবুক)

মস্কো আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের (এমআইএফএফ) ৪৬তম আসরে স্পেশাল জুরি প্রাইজ পেলো বাংলাদেশের আসিফ ইসলাম পরিচালিত ‘নির্বাণ’। একটি ফটো অ্যালবামের মতো সাদাকালো এই নির্বাক সিনেমায় তিনটি চরিত্রের অভ্যন্তরীণ যাত্রার গল্প বলা হয়েছে।

গতকাল (২৬ এপ্রিল) উৎসবটির সমাপনীতে আসিফ ইসলামের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। তার সঙ্গে ছিলেন ‘নির্বাণ’ সিনেমার অভিনেত্রী প্রিয়াম অর্চি। এতে গল্পে বলা হয়েছে, অন্তর্নিহিত শান্তির খোঁজে প্রতিনিয়ত মানুষকে সংগ্রামের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। আনোয়ার হোসেনের গল্প ও চিত্রনাট্য নিয়ে তৈরি হয়েছে এটি। এতে আরো অভিনয় করেছেন ফাতেমা তুজ জোহরা, ইমরান মাহাথির প্রমুখ।

গত ১৯ এপ্রিল শুরু হয় ৪৬তম মস্কো আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল (এমআইএফএফ)। উদ্বোধনী আয়োজনের লালগালিচায় হেঁটেছেন প্রিয়াম অর্চি ও আসিফ ইসলাম। গত ২২ এপ্রিল তাদের সিনেমার প্রদর্শনী হয়েছে। এরপর ২৪ এপ্রিল ছিলো আরেকটি প্রদর্শনী।

লালগালিচায় প্রিয়াম অর্চি (ছবি: ফেসবুক)

এবারের উৎসবের সর্বোচ্চ পুরস্কার গোল্ডেন সেন্ট জর্জ জিতেছে মিগেল সালগাদো পরিচালিত মেক্সিকান সিনেমা ‘শেম’। এটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে মেক্সিকো ও কাতার। দুই কিশোর পেড্রো ও লুসিওকে কেন্দ্র করে এর গল্প, যারা অপহরণের পর বেঁচে থাকার জন্য একে অপরের সঙ্গে লড়াই করতে বাধ্য হয়। পেড্রো জিতে যায় এবং পালাতে সক্ষম হয়। কিন্তু লুসিওর প্রতি অপরাধবোধ তাকে পীড়া দিতে থাকে।

সেরা পরিচালক হিসেবে সিলভার সেন্ট জর্জ পুরস্কার পেয়েছেন ইরানের নাহিদ আজিজি সেদিস। তার পরিচালিত ‘কোল্ড সাই’ মোট তিনটি পুরস্কার জিতেছে। বাহা জানতে পারে, তার বাবা বাহরাম ২০ বছর পর জেল থেকে ছাড়া পেয়েছে। বাহার মাকে প্রতারণার অভিযোগে খুনের কারণে সাজা হয়েছিলো বাহরামের। সেই ঘটনায় বাবার ওপর ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত বাহা। তবুও সে সিদ্ধান্ত নেয় বাবাকে ঘরে ফেরাবে।

রুশ প্রিমিয়ার প্রতিযোগিতা শাখায় সিলভার সেন্ট জর্জ পুরস্কার পেয়েছে ইউলিয়া ট্রফিমোভা পরিচালিত ‘লায়ার’। বিশ্ব সিনেমায় অসামান্য অবদানের জন্য এমআইএফএফ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন সের্গেই উরসুলিয়াক।

বিচারকদের প্রধান ছিলেন আইসল্যান্ডের পরিচালক ফ্রিদরিক থর ফ্রিদরিকসন। তার ‘চিলড্রেন অব ন্যাচার’ অস্কারে মনোনীত হওয়া একমাত্র আইসল্যান্ডিক সিনেমা।

লালগালিচায় প্রিয়াম অর্চি ও আসিফ ইসলাম (ছবি: ফেসবুক)

‘নির্বাণ’ ছাড়াও মস্কোতে এবার বাংলাদেশের শর্টফিল্ম ‘হইতে সুরমা’ দেখানো হয়েছে। এটি যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন মনোজ প্রামাণিক ও সুব্রত সরকার। মস্কো উৎসবে এবারই প্রথম বাংলাদেশের শর্টফিল্ম নির্বাচিত হলো। ২০২৩ সালে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া টাঙ্গুয়ার হাওরে আয়োজন করে ‘ইকো ফিল্ম ল্যাব’। সেখানেই প্রকৃতি ও জলবায়ু পরিবর্তন থিমে ‘হইতে সুরমা’র যাত্রা শুরু। টাঙ্গুয়ার হাওর, শনির হাওর ও সুনামগঞ্জ জেলার আশেপাশের অঞ্চলের নির্মল প্রাকৃতিক দৃশ্যে শল্টফিল্মটির শুটিং হয়েছে। এসব এলাকার বাসিন্দারাই এর অভিনেতা-অভিনেত্রী। প্রকৃতির ওপর মানুষের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের ধ্বংসাত্মক প্রভাব ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের পরবর্তী প্রতিক্রিয়াগুলো তুলে ধরা হয়েছে এতে। সম্পাদনাসহ পোস্ট-প্রোডাকশনের কাজ তত্ত্বাবধান করেছে আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউট। এটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে বাংলাদেশের মনাপচিত্র, ওমানের ইন্টারন্যাশনাল ফোকাল ট্রেডিং, সৌদি আরবের থার্ড অ্যাকশন ও জার্মানির মোগাদর ফিল্ম।

২০২২ সালের মস্কো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে যুবরাজ শামীম পরিচালিত ‘আদিম’ দুটি শাখায় পুরস্কার জেতে। এছাড়া গত বছর নূরুল আলম আতিকের ‘পেয়ারার সুবাস’ এই উৎসবের প্রতিযোগিতা শাখায় প্রদর্শিত হয়েছে। ‘নির্বাণ’-এর মাধ্যমে টানা তিন আসরের অফিশিয়াল সিলেকশনে জায়গা পেলো বাংলাদেশের সিনেমা।

মস্কো উৎসব পরিচালক নিকিতা মিখালকোভ জানান, এবারের আসরে আট দিনে ৯টি পর্দায় ৫৬টি দেশের ২৪০টি সিনেমার ৩৮০টি প্রদর্শনী হয়েছে। সব প্রদর্শনী মিলিয়ে ৩৯ হাজার দর্শক উপস্থিতি ঘটেছে।

১৯৩৫ সালে শুরু হয় মস্কো আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল। তবে ১৯৯৯ সাল থেকে প্রতিবছর এটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

পড়া চালিয়ে যান

ওয়ার্ল্ড সিনেমা

অস্কার ২০২৪: পুরস্কার জিতলেন যারা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

(বাঁ থেকে) রবার্ট ডাউনি জুনিয়র, ডে’ভাইন জয় র‌্যান্ডলফ, এমা স্টোন ও কিলিয়ান মারফি (ছবি: অস্কার)

৯৬তম অস্কারে হলিউডসহ বিশ্ব সিনেমায় ২০২৩ সালের সেরা কাজগুলোকে ২৩টি শাখায় পুরস্কৃত করা হলো। অ্যাকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের প্রায় ১১ হাজার ভোটার বিজয়ীদের নির্বাচন করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলেসে হলিউডের ডলবি থিয়েটারে অস্কারের মহাযজ্ঞ শুরু হয় আজ (১১ মার্চ) বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টায়। জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানটি চতুর্থবারের মতো সঞ্চালনা করেছেন আমেরিকান টিভি তারকা জিমি কিমেল। এমি অ্যাওয়ার্ড জয়ী ৫৪ বছর বয়সী এই উপস্থাপক-প্রযোজক ২০১৭ সালে ৮৯তম, ২০১৮ সালে ৯০তম এবং ২০২৩ সালে ৯৫তম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডস মাতিয়েছেন।

অনুষ্ঠানে নিজেদের মনোনীত গান গেয়ে শুনিয়েছেন কানাডিয়ান অভিনেতা রায়ান গসলিং, আমেরিকান গায়িকা বিলি আইলিশ, বেকি জি, আমেরিকান গায়ক জন ব্যাটিস্ট ও ওসেজ সম্প্রদায়ের কণ্ঠশিল্পীরা। ‘ইন মেমোরিয়াম’ পর্বে গত ১২ মাসে প্রয়াত হওয়া বিশ্ব সিনেমার গুণীদের স্মরণ করা হয়েছে। মূল আয়োজন শুরুর আগে লালগালিচায় জৌলুস ছড়িয়েছেন তারকারা।

ওয়াল্ট ডিজনি কোম্পানির মালিকানাধীন এবিসি টেলিভিশন নেটওয়ার্ক বাংলাদেশসহ ২০০টিরও বেশি দেশে সরাসরি সম্প্রচার করেছে অস্কারের জমকালো অনুষ্ঠান। বিশ্বের কোটি কোটি দর্শক টিভি সেটের সামনে বসে উপভোগ করেছেন এই আয়োজন।

৯৬তম অস্কারের বিজয়ী তালিকা
সেরা সিনেমা
ওপেনহাইমার (ক্রিস্টোফার নোলান, এমা থমাস)

সেরা অভিনেতা
কিলিয়ান মারফি (ওপেনহাইমার)

সেরা পার্শ্ব অভিনেতা
রবার্ট ডাউনি জুনিয়র (ওপেনহাইমার)

সেরা অভিনেত্রী
এমা স্টোন (পুয়োর থিংস)

সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী
ডে’ভাইন জয় র‌্যান্ডলফ (দ্য হোল্ডওভারস)

সেরা পরিচালক
ক্রিস্টোফার নোলান (ওপেনহাইমার)

সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য
অ্যানাটমি অব অ্যা ফল (জাস্টিন ত্রিয়ে, আর্থার হারারি)

সেরা রূপান্তরিত চিত্রনাট্য
আমেরিকান ফিকশন (কর্ড জেফারসন)

সেরা অ্যানিমেটেড সিনেমা
দ্য বয় অ্যান্ড দ্য হেরন (হায়াও মিয়াজাকি ও তোশিও সুজুকি)

সেরা আন্তর্জাতিক সিনেমা
দ্য জোন অব ইন্টারেস্ট (যুক্তরাজ্য)

সেরা চিত্রগ্রহণ
ওপেনহাইমার (হয়তে ফন হয়তেমা)

সেরা পোশাক পরিকল্পনা
পুয়োর থিংস (হলি ওয়াডিংটন)

সেরা প্রামাণ্যচিত্র
টোয়েন্টি ডেজ ইন মারিউপোল (মিস্তিস্লাভ চেরনোভ)

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র
দ্য লাস্ট রিপেয়ার শপ (বেন প্রাউডফুট ও ক্রিস বাওয়ার্স)

সেরা সিনেমা সম্পাদনা
ওপেনহাইমার (জেনিফার লেম)

সেরা রূপসজ্জা ও চুলসজ্জা
পুয়োর থিংস (নাদিয়া স্টেসি, জশ ওয়েস্টন ও মার্ক কুলিয়ার)

সেরা মৌলিক আবহসংগীত
লুদবিগ গোরানসন (ওপেনহাইমার)

সেরা মৌলিক গান
হোয়াট ওয়াজ আই মেড ফর? (গীতিকবি ও সুরকার বিলি আইলিশ, ফিনিয়াস ও’কনেল, সিনেমা: বার্বি)

সেরা শিল্প নির্দেশনা
পুয়োর থিংস (জেমস প্রাইস, শনা হিথ ও জুজা মিহালেক)

সেরা শব্দ
দ্য জোন অব ইন্টারেস্ট (জনি বার্ন, টার্ন উইলার্স)

সেরা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস
গডজিলা মাইনাস ওয়ান (তাকাশি ইয়ামাজাকি, কিয়োকো শিবুয়া, মাসাকি তাকাহাশি, তাতসুজি নোজিমা)

সেরা শর্টফিল্ম
দ্য ওয়ান্ডারফুল স্টোরি অব হেনরি সুগার (ওয়েস অ্যান্ডারসন, স্টিভেন রালস)

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য অ্যানিমেটেড সিনেমা
ওয়ার ইজ ওভার! ইন্সপায়ার্ড বাই দ্য মিউজিক অব জন অ্যান্ড ইয়োকো (ডেভ মালিন্স, ব্র্যাড বুকার)

সম্মানসূচক অস্কার
আমেরিকান অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলা ব্যাসেট, আমেরিকান কমেডিয়ান, চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক মেল ব্রুকস, চলচ্চিত্র সম্পাদক ক্যারল লিটেলটন

জিন হার্শোল্ট মানবিক অ্যাওয়ার্ড
সানড্যান্স চলচ্চিত্র উৎসবের নির্বাহী মিশেল স্যাটার

পড়া চালিয়ে যান

ওয়ার্ল্ড সিনেমা

লাইভ অস্কার ২০২৪: বিজয়ীদের নাম ঘোষণা

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

হলিউডে চলতি বছরের পুরস্কার মৌসুমের চূড়ান্ত আয়োজন অস্কার। সিনেমা দুনিয়ার সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার এটাই। অ্যাকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের প্রায় ১১ হাজার সদস্য বিভিন্ন দেশের অভিনেতা-অভিনেত্রী, পরিচালক, প্রযোজকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করা কলাকুশলীরা। তাদের ভোটেই ৯৬তম অস্কার বিজয়ীদের চূড়ান্ত করা হয়েছে।

পড়া চালিয়ে যান
Advertisement

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ