Connect with us

হলিউড

শততম বর্ষপূর্তির আগে হলিউড নিদর্শনে দেড় হাজার লিটার রঙ

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

হলিউড

হলিউডের বিখ্যাত নিদর্শন (ছবি: টুইটার)

যুক্তরাষ্ট্রে ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের অন্যতম নিদর্শন ‘হলিউড’ বিলবোর্ড। লস অ্যাঞ্জেলেসের গ্রিফিথ পার্কে সান্তা মনিকা পর্বতমালার চূড়া মাউন্ট লি’তে এটি স্থাপনের ১০০ বছর পূর্ণ হবে ২০২৩ সালে। এ উপলক্ষে বিশাল আকৃতির নয়টি ইংরেজি অক্ষরের প্রতিটিতে নতুন রঙের প্রলেপ দেওয়া হবে।

দূর থেকে ছবি তোলার সময় সাধারণ মানুষ বুঝতেই পারে না, হলিউড নিদর্শনের প্রতিটি অক্ষর ৪৫ ফুট উঁচু!

১০ বছর আগে সবশেষ হলিউড নিদর্শনে রঙ দেওয়া হয়েছিল। মোটামুটি একদশক পরপর এতে রঙ দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে। এবার ব্যবহার হবে প্রায় ৪০০ গ্যালন (১ হাজার ৫১০ লিটার) রঙ। হলিউড সাইন ট্রাস্টের চেয়ারপারসন জেফ জ্যারিন্যাম এই তথ্য জানান।

হলিউড চেম্বার অব কমার্সের তথ্যানুযায়ী, ১৯২৩ সালে মাউন্ট লি’র চূড়ায় স্থান পায় ‘হলিউডল্যান্ড’ নিদর্শন। পরে ‘ল্যান্ড’ শব্দটি ফেলে শুধু ‘হলিউড’ রাখা হয়। লস অ্যাঞ্জেলেস শহর কর্তৃপক্ষ এবং হলিউড সাইন ট্রাস্ট এটি পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে।

হলিউড

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’: মহাকাশে ট্রেলার প্রকাশ!

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ সিনেমার পোস্টার (ছবি: প্যারামাউন্ট পিকচার্স)

হলিউডের জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজ ‘ট্রান্সফরমার্স’ পৃথিবীর সীমানা পেরিয়ে পৌঁছে গেলো মহাকাশে! ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ১ লাখ ২৫ হাজার ফুট ওপরে এর নতুন কিস্তি ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’-এর ট্রেলার প্রকাশিত হয়েছে। ইতিহাসে এর আগে এমনটি ঘটেনি!

গতকাল (১৮ এপ্রিল) ইউটিউবে প্যারামাউন্ট পিকচার্সের চ্যানেলে, ট্রান্সফরমার্স মুভির সব সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে এবং ইনস্টাগ্রামে অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থের অ্যাকাউন্টে সরাসরি দেখানো হয় মনিটর নিয়ে একটি নভোযানের মহাকাশযাত্রা। ১ লাখ ২৫ হাজার ফুট ওপরে পৌঁছাতে লেগেছে প্রায় ১ ঘণ্টা। ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ সিনেমার ট্রেলারের প্রিমিয়ার শুরুর ৭ সেকেন্ড আগে পর্দায় হাজির হন অস্ট্রেলিয়ান অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থ ও আমেরিকান অভিনেতা ব্রায়ান টাইরি হেনরি। আগে থেকে ধারণকৃত ভিডিওতে তারা বলেন, “ট্রান্সফরমার্স বন্ধুরা, একটুও নড়বেন না। ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ ট্রেলার শুরু হচ্ছে এখন!”

ইউটিউবে মহাকাশযাত্রা ও ট্রেলারের প্রিমিয়ার দেখা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৬ লাখ বার। এর হাইলাইটসের ভিউ সংখ্যা ৬০ হাজার। ট্রেলারটির ভিউ ১৮ ঘণ্টায় ছাড়িয়েছে ৭০ লাখের ঘর।

সিনেমাটিতে অরিয়ন প্যাক্স ওরফে অপটিমাস প্রাইম চরিত্রে ক্রিস হেমসওয়ার্থ ও ডি-সিক্সটিন ওরফে মেগাট্রনের ভূমিকায় কণ্ঠ দিয়ে অভিনয় করেছেন ব্রায়ান টাইরি হেনরি। এছাড়া ভয়েস আর্টিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন স্কারলেট জোহানসন, কিগ্যান-মাইকেল কি, স্টিভ বুশেমি, লরেন্স ফিশবার্ন ও জন হ্যাম।

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’-এ দেখা যাবে, জনপ্রিয় দুই ট্রান্সফরমার অপটিমাস প্রাইম ও মেগাট্রনের শেকড়ের গল্প। তারা শত্রু হিসেবে পরিচিত হলেও একসময় ভাইয়ের মতো বন্ধু ছিলো। চৌকস এই দুই ট্রান্সফরমার মিলেই সাইবারট্রনের ভাগ্য চিরতরে বদলে দিয়েছিলো।

‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’ কম্পিউটার গ্রাফিক্স অ্যানিমেটেড সিনেমা। এবারই প্রথম ‘ট্রান্সফরমার্স’ সিরিজের কোনো সিনেমার পুরোটাই এভাবে তৈরি হলো। এটি পরিচালনা করেছেন জশ কুলি। নির্বাহী প্রযোজকদের মধ্যে আছেন স্টিভেন স্পিলবার্গ। চলতি বছরের ২০ সেপ্টেম্বর সিনেমাহলে মুক্তি পাবে ‘ট্রান্সফরমার্স ওয়ান’।

পড়া চালিয়ে যান

হলিউড

ঢাকায় বড় পর্দায় আবার গডজিলা বনাম কং

সিনেমাওয়ালা রিপোর্টার

Published

on

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ সিনেমার পোস্টার (ছবি:ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

মনস্টার জগতের দুই মহারথী গডজিলা ও কংয়ের দ্বৈরথ সিনেমাপ্রেমীদের কাছে বরাবরই বেশ উপভোগ্য। বিশাল আকারের এই দুটি চরিত্র আবার একসঙ্গে আসছে বড় পর্দায়। ‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ নামের সিনেমায় দেখা যাবে তাদের তাণ্ডব। ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্সের পরিবেশনায় আগামীকাল (২৯ মার্চ) আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে এটি। একই দিনে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাবে এই সিনেমা।

সর্বশেষ ২০২১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘গডজিলা ভার্সেস কং’ সিনেমায় কিং কং ও গডজিলার দ্বৈরথ দেখা গেছে। করোনা মহামারিতে এটি দর্শকদের দারুণ সাড়া পায়। এবার আসছে এর বহুল প্রতীক্ষিত সিক্যুয়েল। লিজেন্ডারি পিকচার্সের প্রযোজনায় আগের পর্বের সাফল্যের সুবাদে এবারের কিস্তিও পরিচালনা করেছেন অ্যাডাম উইনগার্ড। আগের সিনেমার অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে ফিরছেন রেবেকা হল, ব্রায়ান টাইরি হেনরি ও কেইলি হটেল। নতুন যুক্ত হয়েছেন ড্যান স্টিভেনস, অ্যালেক্স ফার্নস, ফালা চেন, র‌্যাচেল হাউস।

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি:ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ হলো ‘মনস্টারভার্স’ ফ্রাঞ্চাইজের পঞ্চম কিস্তি, গডজিলা ফ্রাঞ্চাইজের ৩৮তম পর্ব এবং কিং কং ফ্রাঞ্চাইজের ১৩তম সিনেমা। ১ ঘণ্টা ৫৫ মিনিটের সিনেমাটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ১৫ কোটি ডলার।

‘গডজিলা এক্স কং: দ্য নিউ এম্পায়ার’ সিনেমার দৃশ্য (ছবি:ওয়ার্নার ব্রাদার্স পিকচার্স)

গডজিলা আর কং প্রাগৈতিহাসিক দুই দানব। কং নির্জন রহস্যময় দ্বীপ স্কাল আইল্যান্ডের বাসিন্দা আর গডজিলা প্রশান্ত মহাসাগরের জলরাশির গভীর তলদেশ থেকে উঠে আসে। নতুন সিনেমায় বিশ্বে লুকিয়ে থাকা এক বিশাল অনাবিষ্কৃত হুমকি নিয়ে তাদের মধ্যে লড়াই হবে। গডজিলা আণবিক নিশ্বাস ছাড়লেও শেষ পর্যন্ত কাবু হয় কংয়ের বাহুবলের কাছে, নাকি ‘অবমানব’ কংয়ের মানবিক সত্তার কাছে? সেই উত্তর মিলবে গল্পে। টাইটানদের ইতিহাস, তাদের উৎস, স্কাল আইল্যান্ড এবং তার বাইরের রহস্যগুলো তুলে ধরা হয়েছে এই সিনেমায়। সেই সঙ্গে রয়েছে পৌরাণিক যুদ্ধ।

পড়া চালিয়ে যান

হলিউড

চতুর্থবার মা হলেন ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’, এবারও কোলে মেয়ে

সিনেমাওয়ালা ডেস্ক

Published

on

গল গ্যাদত (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

হলিউডের ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’ তারকা গল গ্যাদত চতুর্থবার মা হলেন। গত ৬ মার্চ তার কোল জুড়ে এসেছে আরেকটি কন্যাসন্তান। এতে চমকে গেছেন ভক্তরা। কারণ তার গর্ভধারণের কথা খুব একটা প্রকাশ্যে আসেনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করে আচমকাই সুখবর দিয়েছেন ৩৮ বছর বয়সী এই ইসরায়েলি অভিনেত্রী। মা হওয়ার খবর জানিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘আমার মিষ্টি মেয়ে, তোমাকে স্বাগত। সন্তান ধারণ করা সহজ নয়। তবে তুমি আমার জীবনে একরাশ আলো নিয়ে এসেছো। তাই তোমার নাম রেখেছি অরি। হিব্রু ভাষায় যার অর্থ আলো। আমাদের হৃদয় তোমায় পেয়ে পূর্ণ।’

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Gal Gadot (@gal_gadot)

গল গ্যাদতের পোস্ট করা ছবিতে দেখা গেছে, তার কোলে শুয়ে আছে সদ্যজাত সন্তান। মেয়েকে নিয়ে তৃপ্তিতে চোখ বুজে আছেন তিনি।

গল গ্যাদত আরো তিন কন্যাসন্তানের মা। ইসরায়েলি রিয়েল এস্টেট ডেভেলপার জ্যারোন ভার্সানের সঙ্গে তার দাম্পত্য জীবন ১৬ বছরের। ২০০৮ সালে বিয়ে করেন তার। তাদের প্রথম মেয়ে আলমার জন্ম হয় ২০১১ সালে। এরপর মায়া আসে ২০১৭ সালে। তিনি তৃতীয়বার মা হন ২০২১ সালে। তিন বছর পর আবার মাতৃত্বের স্বাদ পেলেন এই তারকা।

গল গ্যাদত (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

গল গ্যাদতের হাতে এখন আছে দুটি সিনেমা। এরমধ্যে ‘স্নো হোয়াইট’ সিনেমায় সর্বনাশী রানির ভূমিকায় দেখা যাবে তাকে। মার্ক ওয়েবের পরিচালনায় এতে নাম ভূমিকায় থাকছেন র‌্যাচেল জেগলার। এর চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘বার্বি’র পরিচালক গ্রেটা গারউইগ এবং এরিন ক্রেসিডা উইলসন। এটি হলো ১৯৩৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ডিজনির অ্যানিমেটেড সিনেমা ‘স্নো হোয়াইট অ্যান্ড দ্য সেভেন ডোয়র্ফস’-এর রূপান্তর।

গল গ্যাদত (ছবি: ইনস্টাগ্রাম)

অন্যদিকে জুলিয়ান শ্নাবেলের পরিচালনায় ‘ইন দ্য হ্যান্ড অব দান্তে’ সিনেমায় দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করছেন গল গ্যাদত। এতে আরো থাকছেন অস্কার আইজ্যাক, জেসন মোমোয়া, জেরার্ড বাটলার, আল পাচিনো, জন ম্যালকোভিচ। এটি নির্বাহী প্রযোজনা করছেন মার্টিন স্করসেসি।

গল গ্যাদতকে সর্বশেষ ২০২৩ সালের আগস্টে নেটফ্লিক্সের ‘হার্ট অব স্টোন’ সিনেমায় দেখা গেছে। এতে তার সহশিল্পী ছিলেন বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাট।

পড়া চালিয়ে যান

সিনেমাওয়ালা প্রচ্ছদ